চার বছর মন দেওয়া-নেওয়ার পর আনুশকা শর্মা ও বিরাট কোহলির চারহাত এক হলো। সোমবার (১১ ডিসেম্বর) ইতালির তাস্কানি গ্রামে বোর্গো ফিনোচ্চিয়েতো রিসোর্টে হিন্দু রীতি মেনে হয়েছে তাদের বিয়ে।


তবে বিয়ের আনুষ্ঠানিকতা এখানেই শেষ নয়। ভারতের পারিবারিক আদালতে এই বিয়ের নিবন্ধন করতে হবে। বিয়ে বিষয়ে ভারতের সকল নাগরিকের ক্ষেত্রে সেটাই নিয়ম। জানা গেছে, আগামী বছরের ৪ জানুয়ারি মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় অবস্থিত পারিবারিক আদালতে বিয়ের নিবন্ধন করবেন আনুশকা-বিরাট দম্পতি।  

ভারতে ফিরে মুম্বাইয়ের ওরলিতে কেনা নতুন অ্যাপার্টমেন্টে সংসার সাজাবেন আনুশকা ও বিরাট। আগামী ২১ ডিসেম্বর বিরাটের শহর নয়াদিল্লিতে আত্মীয়স্বজনদের জন্য জাঁকালো অনুষ্ঠানের পরিকল্পনা চূড়ান্ত হয়েছে। এরপর ২৬ ডিসেম্বর মুম্বাইয়ের পাঁচতারা হোটেলে বিবাহোত্তর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হবে ধুমধাম করে। এখানে হাজির থাকবেন বলিউড ও ভারতীয় ক্রীড়াঙ্গনের তারকারা।

সোমবার রাত ৯টা ২১ মিনিটে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আনুশকা শর্মা ও বিরাট কোহলি লিখেছেন, ‘আজ আমরা নিজেদের কথা দিয়েছি, ভালোবাসায় বাঁধা থাকবো চিরদিন। আপনাদের খবরটা (বিয়ে) জানাতে পেরে আমাদের খুব ভালো লাগছে। পরিবার, বন্ধু ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের ভালোবাসা ও সমর্থন এই দিনটাকে আরও বিশেষ করে তুলেছে। আমাদের এই পথচলার অংশ হওয়ার জন্য ধন্যবাদ।’

টুইটারে নবদম্পতিকে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন অনেকে। তাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য অমিতাভ বচ্চন, শাহরুখ খান, শ্রীদেবী, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, অনিল কাপুর, ফারহান আখতার, শহিদ কাপুর, অভিষেক বচ্চন, সোনম কাপুর, আলিয়া ভাট, বরুণ ধাওয়ান, পরিণীতি চোপড়া, অর্জুন কাপুর, শ্রদ্ধা কাপুর, জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ, রিচা চাড্ডা, রিতেশ দেশমুখ, হুমা কোরেশি, নেহা ধুপিয়া, করণ জোহর, কপিল শর্মাসহ অনেকেই।

আগামী বছর জানুয়ারিতে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাবে ভারতের ক্রিকেট দল। তাই ধারণা করা হচ্ছে, নবদম্পতি মধুচন্দ্রিমা উদযাপন করবেন ওই দেশেই।

গত ৭ ডিসেম্বর বাবা অজয় কুমার, মা অসীমা ও বড় ভাই কর্নেশকে নিয়ে মুম্বাই থেকে ইতালির উদ্দেশে রওনা দেন আনুশকা। একই দেশে যাওয়ার জন্য বিরাট যাত্রা শুরু করেন দিল্লি থেকে। তখনই শোনা গিয়েছিল, ইউরোপের দেশটিতেই তাদের বিয়ের যাবতীয় আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হবে। সেই গুঞ্জনই হয়ে গেলো সত্যি।

জল্পনার অবসান ঘটিয়ে ক্রিকেটারকেই জীবনের নায়ক করেছেন আনুশকা। একইভাবে তার সঙ্গে নতুন ইনিংস শুরু করলেন বিরাট। গাঁটছড়া বাঁধার মাধ্যমে দুই ভুবনের দুই বাসিন্দা মিলে গেলেন একই মোহনায়।

আনুশকা ও বিরাটের প্রথম সামনাসামনি দেখা হয়েছিল ২০১৩ সালে। দু’জনই একটি বিজ্ঞাপনচিত্রে অভিনয় করেন তখন। এরপর তাদের মধ্যে গড়ে ওঠে সখ্য। পরিণয়ের মধ্য দিয়ে দু’জনের মন দেওয়া-নেওয়ার সফল সমাপ্তি হলো।

 


খুব কম মানুষ আছে বই পড়তে পছন্দ করেন না। সেই সংখ্যাটা হাতের আঙ্গুলে গুণে নেওয়া যাবে হয়তো। যারা বই পড়তে ভালোবাসেন তাদের কাছে বই হলো অমূল্য সম্পদের মতো। বইপড়ুয়ার মাঝে রয়েছে ভিন্নতা। কেউ হয়ত সকালে ঘুম থেক উঠে দুই পাতা বই পড়তে ভালোবাসেন। কিংবা অবসর সময়ে অন্যান্য যেকোন কাজ একপাশে রেখে একটি বই পড়ে ফেলতে চান অনেকে। আবার এমন বইপড়ুয়াও রয়েছে এক মাসের মাঝে ১৫-২০ টি বই পড়ে শেষ করে ফেলেন! 


আপনি যে ধরণের বইপড়ুয়াই হোন না কেন বই পড়ার অভ্যাস যদি আপনার মাঝে থাকে তবে আপনার জন্যে রয়েছে ইতিবাচক কিছু তথ্য! বই পড়ার তালিকা দেখে অথবা পছন্দের বইয়ের তালিকা দেখে কাউকে পছন্দ করেছেন কি কখনো? উত্তর যদি হ্যাঁ হয়ে থাকে তবে দারুণ একটি ব্যাপার জেনে রাখুন। এমন মানুষ শুধু আপনি একাই নন। মজার ব্যাপার হচ্ছে, নিজের বই পড়ার অভ্যাস খুব গুরুত্বপূর্ণভাবে আপনার প্রেম-ভালোবাসার জীবনের ওপরে প্রভাব ফেলে থাকে!

বাইরের দেশের বেশকিছু ডেটিং ওয়েবসাইট তাদের পরিসংখ্যান থেকে বের করেছে, ব্যক্তিগত প্রোফাইলে বই পড়ার অভ্যাসকে শখ হিসেবে দেখালে, সেই প্রফাইলে ব্যক্তির প্রতি মানুষের বিশেষ আগ্রহের সৃষ্টি হয়। একইসাথে বিপরীত লিঙ্গের মানুষের কাছে উক্ত ব্যক্তিকে আকর্ষণীয় মনে হতে থাকে।

এমনকি, আরো কিছু তথ্য থেকে জানা যায় মজার কিছু তথ্য। যে সকল পুরুষ তাদের নিজস্ব প্রফাইলে শখ হিসেবে বই পড়ার কথা উল্লেখ করেন, অন্য পুরুষদের তুলনায় তাদের কাছে ১৯ শতাংশ বেশী বার্তা আসে। নারীদের ক্ষেতে এই সংখ্যাটা অবশ্য কমে যায়। বই পড়ার অভ্যাস রয়েছে যে সকল নারীদের, অন্য নারীদের তুলনায় তারা ৩ শতাংশ বেশী বার্তা পান।

কিছু ব্যাপারে সকলেই একমত পোষণ করেন। আর সেই ব্যাপারটি যখন বই পড়ার ক্ষেত্রে তখন দ্বিমত পোষণ করার কোন অবকাশ একেবারেই থাকে না। বইপড়ুয়া মানুষদের বুদ্ধিমত্তা অন্যান্যদের চাইতে বেশী হয়ে থাকে। আরো দারুণ একটি ব্যাপার সম্পর্কেও অবগত হওয়া যায়। যারা বইপড়ুয়া তাদেরকে কোন এক কারণে সকলে খুব বিশ্বস্ত বলে ধরে নেন। এ কারণে, বইপড়ুয়া কারোর সাথে সম্পর্কে জড়ানোর ক্ষেত্রে অনেকেই আগ্রহী থাকেন।

তবে শুধুমাত্র বই পড়ার অভ্যাসই যথেষ্ট নয়, কোন বই রয়েছে আপনার পছন্দের তালিকায় সেটাও নির্ধারণ করে কতটা সাড়া পাবেন বিপরীত লিঙ্গের কারোর কাছ থেকে। পুরুষদের ক্ষেত্রে- যাদের বই পড়ার তালিকায় দেখা যায় একশন, অ্যাডভেঞ্চার ঘরানার বই পড়ার অভ্যাস রয়েছে তারা বেশী সাড়া পেয়ে থাকেন। এর মধ্যে গেইম অব থ্রোনস, লর্ড অব দ্যা রিংস রয়েছে। অন্যদিনে যে সকল নারীদের পছন্দের বইয়ের তালিকায় দ্যা হাংগার গেমস, দ্যা গার্ম উইথ দ্যা ড্রাগন ট্যাটু, প্রাইড এন্ড প্রিজুডিস, ফিফটি শেডস অব গ্রে, হ্যারি পটার সিরিজ বইয়ের নাম উল্লেখ করা হয়েছে তারা বেশী সাড়া পেয়ে থাকেন!

কাল শুরু হচ্ছে ল্যাপটপ মেলা 

১৪ ডিসেম্বর বৃহস্পতিবার শুরু হতে যাচ্ছে ‘টেকশহর ল্যাপটপ মেলা-২০১৭’। মেলার এবারের স্লোগান ‘শোক থেকে শক্তি, প্রযুক্তিতে মুক্তি’। ৩ দিনব্যাপী এই মেলাটি শুরু হচ্ছে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি)। যেখানে অংশ নিচ্ছে দেশ-বিদেশের শীর্ষস্থানীয় প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতা ও বিপণনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো।


এই মেলা আয়োজন করছে এক্সপো মেকার। ১৯তম বারের মতো দেশে ল্যাপটপ মেলার আয়োজন করছে তারা। এবারের মেলায় একটি মেগা-প্যাভিলিয়ন, পাঁচটি প্যাভিলিয়ন, ১৪টি মিনি প্যাভিলিয়ন ও ২৭ স্টলে প্রযুক্তিপণ্য পণ্য প্রদর্শন ও বিক্রি হবে। মেলায় এসার, আসুস, ডেল, এইচপি, লেনোভোসহ দেশের প্রায় সব ল্যাপটপ ব্র্যান্ড থাকবে এবং মেলায় ২০ হাজার থেকে এক লাখ ৭০ হাজার টাকার মধ্যে ল্যাপটপ পাওয়া যাবে।

সকাল ১০টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত মেলা চলবে। মেলায় প্রবেশমূল্য ৩০ টাকা। স্কুলের শিক্ষার্থীরা ইউনিফর্ম পরে বা পরিচয়পত্র প্রদর্শন করে বিনা মূল্যে প্রবেশ করতে পারবে। মেলায় টিকিটের অর্থ দুরারোগ্য ক্যানসারে আক্রান্ত একজন সাংবাদিকের চিকিৎসায় সহায়তা হিসেবে দেওয়া হবে।
Blogger দ্বারা পরিচালিত.