বিদায় হতে পারে ৭ প্রযুক্তি, সেবা

প্রযুক্তি নিয়ত পরিবর্তনশীল এক খাত। এখানে টিকে থাকতে হলে পণ্য বা সেবায় নতুনত্ব যোগ করতেই হয়, নয়ত হারিয়ে যাওয়াটাই নিয়ম।
প্রতিযোগিতামূলক এই খাতে প্রায় প্রতিদিনই নতুন পণ্য বা সেবা আসে। তার সবই প্রযুক্তিপ্রেমীদের নজর কাড়ে না। নজর কাড়ে সেই সব পণ্য বা সেবা যাতে চমক বা চমৎকারিত্ব থাকে।
২০১৫ সালে এসেছে নতুন নতুন নানা পণ্য ও সেবা। এর সাথে তাল রেখে যেসব পণ্য বা সেবায় নতুন সুবিধা যোগ করা হয়েছে তার আবেদন এখনো ব্যবহারকারীদের মাঝে আছে। তবে যে সব পণ্য বা সেবায় এই নতুনত্ব যোগ করা হয়নি বাধ্য হয়ে তা হারিয়ে যেতে বসেছে। চলতি বছর হারিয়ে যাওয়া প্রযুক্তি সেবা নিয়েই এই প্রতিবেদন।
FirefoxOS
মজিলা ফায়ারফক্স ওএস
স্মার্টফোনের অপারেটিং সিস্টেমের বাজারে শীর্ষে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড। অ্যান্ড্রয়েডের সাথে বাজার দখল করতে ফায়ারফক্স অপারেটিং সিস্টেম বাজারে আনে মজিলা। তবে বাজার দখল আর হয়নি মজিলার, নতুনত্ব যোগে ব্যর্থ হয়ে অপারেটিং সিস্টেমটিকে বন্ধের সিদ্ধান্ত নিয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। ২০১৫ সালে ডিসেম্বর মাসেই এই ঘোষণা দিয়েছে জনপ্রিয় এই প্রতিষ্ঠান।
২০১৩ সালে গিকফোন ও পিক নামের দুটি হ্যান্ডসেটের মাধ্যমে ফায়ারফক্স ওএসের যাত্রা শুরু হয়। এই ওএস দিয়ে স্পাইস ফায়ার ওয়ান, এমআই-এফএক্স ২, অ্যালকাটেল ওয়ানটাচ ফায়ার সি, অরেঞ্জ ক্লিফ, ইনটেক্স ক্লাউড এফএক্স, ফায়ারফক্স ইউ ১০৫ প্রভৃতি নামের স্বল্পদামী ফোন বাজারে আসে। পরে এল এফএক্স ও কিছু এইচডিটিভিতেও এই ওএস ব্যবহার করা হয়। কিন্তু তা জনপ্রিয়তা অর্জন করতে পারেনি।

amazon-fire-phone-header

অ্যামাজন ফায়ার ফোন
বিকাশমান স্মার্টফোনের বাজার দখলের চেষ্টা করেছে বিশ্বের বিখ্যাত ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান অ্যামাজন। আর তাই ২০১৪ সালের জুনে সিয়াটলে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ‘ফায়ার ফোন’ নামের এক স্মার্টফোন উন্মোচন করেন কোম্পানির প্রধান নির্বাহী জেফ বিজোস। তবে ডিভাইসটি সাশ্রয়ী হওয়া স্বত্বেও গ্রাহকপ্রিয়তা পেতে ব্যর্থ হয়। যার দরুন এ বছরই হ্যান্ডসেট উৎপাদন বন্ধ করার ঘোষণা দিয়েছে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানটি।
off technology_techshohor
ফেইসবুকে অ্যাডোবির ফ্ল্যাশ বিদায়
চলতি বছর অ্যাডোবির ফ্ল্যাশ প্রযুক্তিকে বিদায় জানিয়েছে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুক। আর এর পরিবর্তে এইচটিএমএলফাইভ প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে একটি আলাদা ভিডিও প্লেয়ার উন্নয়ন করেছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটটি। আপাতত এই প্লেয়ারটিকেই সাইটটিতে ডিফল্ট প্লেয়ার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে।
এইচটিএমএলফাইভ প্রযুক্তি ব্যবহার করায় ফেইসবুকের ভিডিও ব্যবস্থাপনা সিস্টেম আরও দ্রুত কাজ করছে। এইচটিএমএল মৌলিক কম্পিউটার ল্যাঙ্গুয়েজ, যা ওয়েবে বিভিন্ন ফিচারের কার্যক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়।
বিশ্লেষকরা ধারণা করছেন, ফেইসবুকের মতই অনেক সাইট অ্যাডোবি ফ্ল্যাশ থেকে সরে এইটিএমএলফাইভ প্রযুক্তির দিকে নজর দেবে।
apple-beats
বিটস মিউজিক সেবা
টেক জায়ান্ট অ্যাপল বিটস মিউজিক কিনে তা বন্ধ করে দেয় চলতি বছরের নভেম্বরে। ওই সময় অ্যাপলের পক্ষ থেকে জানানো হয়, বিটস মিউজিক গ্রাহকরা চাইলে তাদের অ্যাপল মিউজিক সেবা সাবস্ক্রাইব করতে পারবেন। অ্যাপল মিউজিকের বেশিরভাগ সেবা বিটস মিউজিকের আদলে তৈরি করা হয়েছে। মাত্র এক বছর আগে ৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচে উচ্চ প্রযুক্তির অডিও সামগ্রী তৈরি এবং বিটস মিউজিক সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠান বিটস ইলেক্টোনিক্স কিনে নেয়।
ফেইসবুক ক্রিয়েটিভ ল্যাবস
২০১৫ সালের ডিসেম্বরে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইট ফেইসবুক তাদের জনপ্রিয় বিভাগ ‘ক্রিয়েটিভ ল্যাবস’ বন্ধ করে দেয়। বেশ কিছু পরীক্ষামূলক সামাজিক অ্যাপের নির্মাতা এই ক্রিয়েটিভ ল্যাবস। দুই বছর আগে স্টার্টআপ কোম্পানি হিসেবে ল্যাবসটি প্রতিষ্ঠা করে মার্ক জাকারবার্গের প্রতিষ্ঠান। তারপর এখান থেকে স্লিংশট, রুমস ও রিফের মতো জনপ্রিয় সামাজিক অ্যাপ তৈরি করা হয়।
Screenshot_1
ইয়াহু ম্যাপস
২০১৫ সালের জুনে ইয়াহু ম্যাপস বন্ধ করে দেয়া হয়। মূলত গুগল ম্যাপসের সাথে জনপ্রিয়তায় পেরে না উঠতে পারায় এই সেবা বন্ধ করা হয়। ইয়াহু ম্যাপস শুরু থেকেই গুগলের ম্যাপসের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পিছিয়ে ছিল। সেবাটিকে প্রতিযোগিতার মূল ধারায় আনতে প্রচুর খরচও করা হয়। কিন্তু সফলতা শূন্য। এতে গত কয়েক বছরে সাইটটিতে নতুন কোন টুল যোগ করা হয়নি।
২০০২ সালে বাজারে আসে ইয়াহু ম্যাপস, গুগল ম্যাপস তখনো আসেনি। তা স্বত্বেও নিত্য নতুন ফিচার যোগ করে গ্রাহকপ্রিয়তার শীর্ষে চলে আসে গুগল ম্যাপস।
samsung-chaton-2
স্যামসাংয়ের চ্যাটঅন সেবা
জনপ্রিয়তায় দৌড়ে পিছিয়ে থাকায় ম্যাসেজিং সেবা ‘চ্যাটঅন’ বন্ধ করে দিয়েছে দক্ষিণ কোরিয়ান প্রযুক্তি জায়ান্ট স্যামসাং। ২০১৫ সালের ফেব্রুয়ারিতে বন্ধ করে দেয়া হয় সেবাটি।
২০১১ সালে চালু হওয়া এই সেবার ১০ কোটি গ্রাহক রয়েছে বিশ্বজুড়ে। ৬২ দেশে ১২০ ভাষায় সেবা দিয়ে আসছিল চ্যাটঅন।