বীজয় দিবসে গ্রামীণ ফোনের চলো বিজয়োল্লাসে !

চলো বিজয়োল্লাসে

১৯৪৭-এ ব্রিটিশদের কলমের আচড়ে ভারত ভাগ করার সময় সীমান্তের দুদিকে অপর দেশের কিছু টুকরো রয়ে যায়, যারা অন্য দেশের ভেতর পরবাসির মতো বন্দী জীবন পার করতে থাকে।। সেই ১৯৭১-এ বাংলাদেশ স্বাধীনতা পেলেও, বিজয়ের সেই আলো পৌছেনি বাংলাদেশের ছিটমহলগুলোতে। দীর্ঘ ৬৪ বছর পর, ২০১৫ এর ৩১ জুলাই প্রথমবার তাদের জীবনে স্বাধীনতার সূর্য উঠে।
বাংলাদেশ সরকারের উদ্যোগে প্রথমবার বাংলাদেশের সাথে এক হলো ছিটমহলবাসি। তারা এখন আর ছিটমহলবাসি না, আজ তারা বাংলাদেশী নাগরিক। আর এই ১৬ই ডিসেম্বর, স্বাধীনতার ৪৪ বছর পর, প্রথমবারের মত বিজয় দিবস উদযাপন করবে এই নতুন বাংলাদেশীরা।
ছিটের সেই ভুলে যাওয়া মুক্তিযোদ্ধা আজ প্রধমবারের মত নিজ ভিটেতে ওড়াবেন বিজয়ের পতাকা। দেশহীন সেই ছোট্ট ছেলেমেয়েরা আজ বাংলাদেশী হিসেবে মাতবে তাদের প্রথম বিজয়ের উল্লাসে। আর এই আনন্দঘন দিনে, জাগোর তরুণদের সহযোগিতায় আর সুরের ধারার মূর্ছনায়, গ্রামীণফোন গাইবে বিজয়ের গান, আর সারাদেশের সাথে একসাথে করবে বিজয়োল্লাসে। কারন নতুন এই বাংলাদেশীদের সাথে নিয়ে, নতুন বাংলাদেশে একসাথে বহুদূর যাবার এই তো সময়। চলো বাংলাদেশ, চলো বহুদূর।