সেক্স এবং পর্ণময় ২০১৫




নতুন বছরের মুখে দাঁড়িয়ে ফেলে আসা বছরটাকে ফিরে দেখা যাক একটু অন্যভাবে। ২০১৫-য় গ্যাজেট ও ইন্টারনেট নির্ভর বিশ্ব একটা বড় সময় ভার্চুয়াল দুনিয়ায় কাটিয়েছে বললে বেশি বলা হবে না। দেখা যাচ্ছে, ২০১৫ সালটি আদিরসে পকেট খালি করেছেন বিশ্বের বৃহত্‍‌ অংশের মানুষ। অ্যাশলি ম্যাডিসন থেকে শুরু করে মহাকাশে সেক্স-২০১৫ সালকে নিঃসন্দেহে একটি কামুক বছরের খেতাপ দেওয়াই যায়। সেক্স, পর্ন, পরকীয়া-শব্দগুলি আলোচনা হয়েছে বিভিন্নভাবে।বিভিন্ন বিষয়ে।

১. মিয়া খলিফাঃ  ২০১৫ সালেই উত্থান। আপাতত পর্ন ইন্ডাস্ট্রিতে দাপিয়ে কাজ করছেন। পর্ন ছবির দুনিয়ায় মিয়া খলিফাই এখন জনপ্রিয়তার শীর্ষে। লেবাননের মতো একটি রক্ষণশীল দেশ থেকে পর্ন ফিল্মের বাজারে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। এশীয় অ্যাডাল্ট স্টারদের মধ্যে সানি লিওন পর্ন ফিল্ম থেকে সরে আসার পর মিয়াই এখন সবচেয়ে চর্চিত নাম। এক নম্বর পর্নস্টার ঘোষিত হওয়ার পর থেকেই মিয়া লেবানন থেকে প্রাণহানির হুমকি পাচ্ছেন। 

২. পর্নহাবঃ পর্ণহাবএর মহাকাশ যাত্রা মিয়া খলিফা যদি পর্ন ফিল্মের দুনিয়াকে আরও সমৃদ্ধ করে থাকেন, তাহলে পর্ন সাইট পর্নহাব ইন্ডাস্ট্রিকে একটা অন্যমাত্রায় নিয়ে গিয়েছে ২০১৫ সালেই। বিশ্বের এক নম্বর এই পর্নসাইট শুধুই পর্ন ভিডিয়োয় থেমে থাকেনি। পর্ন স্কলারশিপ চালু করার পাশাপাশি এই সাইট এবছর একটি সেক্স ভিডিয়ো মহাকাশে শ্যুট করার জন্য ক্রাউড ফান্ডিং শুরু করেছে। অর্থাত্‍‌ মহাকাশেই শ্যুটিং করা হবে গোটা ভিডিওটি। 

৩. ভারতে পর্ন ব্যানঃ  ২০১৫ সালে সবচেয়ে বেশি সাড়া ফেলে ভারতে পর্ন ব্যান-এর সিদ্ধান্ত। পর্নহাব-এর সমীক্ষায় দেখা গেছে, বিশ্বে পর্ন ইন্ডাস্ট্রির তৃতীয় বৃহত্তম বাজার ভারত। সেখানে ভারত সরকার হঠাত্‍‌ প্রায় সাড়ে ৮০০ পর্ন সাইচ ব্লক করে দেয়। তুমুল বিতর্ক তৈরি হয় দেশে। নারী নির্যাতন, ধর্ষণ ঠেকানোর চেয়ে পর্নসাইট ব্যান কতটা জরুরি, তা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। শেষ পর্যন্ত তুমুল চাপে পড়ে, কেন্দ্র ঘোষণা করে, পর্ন সাইট ব্যান করা হচ্ছে না। তবে চাইল্ড পর্ন-এর উপর ব্যান জারি থাকবে। 

৪. অ্যাশলি ম্যাডিসনঃ  'Life's short, have an affair'। এটাই অ্যাশলি ম্যাডিসন-এর ট্যাগ লাইন। পরকীয়ার স্বাদ পেতে এক নম্বর ডেটিং ওয়েবসাইট। বিশ্বের একটা বড় অংশের মানুষ এই সাইটের গ্রাহক। টাকা খরচ করলেই পরকীয়া নিশ্চিত। অত্যন্ত গোপনে। পারিবারিক শান্তি বজায় রেখে। কিন্তু গোল বাঁধে হঠাত্‍‌ কিছু হ্যাকারের হুমকিতে। অ্যানোনিমাস নামে হ্যাকার গোষ্ঠী হুমকি দেয়, অ্যাশলি ম্যাডিসন-এর গ্রাহকদের সব ব্যক্তিগত তথ্য তারা হ্যাক করে নিয়েছে। যে কোনও মুহূর্তে ইন্টারনেটে ফাঁস করে দেবে। ব্যস, রাতারাতি পথে বসার উপক্রম হয় কয়েক লক্ষ মানুষের। শুধু ভারতেই সংখ্যাটা ছিল প্রায় আড়াই লক্ষ। 

৫. সেক্স রোবোট এটাও এই বছরেরই আবিস্কার। সেক্স টয় বহু ছিল। নতুন অনেক আসছেও বাজারে। কিন্তু সেক্স রোবোট ব্যাপারটি সাড়া ফেলে দেয় তামাম দুনিয়ায়। এমন এক রোবোট, যা আপনার যৌন ইচ্ছে বুঝবে। সেই মতো আপনার সঙ্গে ব্যবহার করবে। এমনকি সেক্স রোবোটের সঙ্গে যাতে গল্পও করা যায়, তার ব্যবস্থাও করছেন বিজ্ঞানীরা। মানুষের কষ্ট কমাতে মেশিনের আবিষ্কার যদি মানব সভ্যতার সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হয়ে থাকে, তাহলে সেক্সের দুনিয়ায় সেক্স রোবোট নিঃসন্দেহে যুগান্তকারী।