কম্পিউটার থেকে মুছে যাওয়া ফাইল উদ্ধার করবেন যেভাবে !



ভুল করে বা কোনো কারণে কম্পিউটার থেকে ফাইল মুছে ফেলার পর ব্যাপারটা দ্রুত ধরতে পারলে সাধারণত তথ্য উদ্ধার করার সম্ভাবনা বেশি থাকে। মুছে যাওয়ার পর যতবারই হার্ডডিস্কে নতুন কোনো তথ্য লেখা বা ফাইল তৈরি হবে, তথ্য উদ্ধারের সম্ভাবনাও তত কমতে থাকবে। তাই কোনো গুরুত্বপূর্ণ ফাইল যদি মুছেই যায়, তাহলে কম্পিউটার একটু কম ব্যবহার করলে তথ্য উদ্ধার করাটা সহজ হবে।
রিসাইকল বিন পরীক্ষা করুন
উইন্ডোজ অপারেটিং সিস্টেমচালিত কম্পিউটারগুলোতে নিরাপদ ব্যবস্থা হিসেবে স্বাভাবিকভাবে মুছে যাওয়া ফাইলগুলো রিসাইকল বিনে জমা রাখে। ব্যবহারকারী পরবর্তী সময়ে প্রয়োজন মনে করলে সেখান থেকে মুছে যাওয়া ফাইল সহজে উদ্ধার করতে পারেন। তাই মুছে যাওয়া ফাইল উদ্ধার করতে চাইলে প্রথমে সেখানেই খোঁজ করুন।
ডেস্কটপে সাধারণত রিসাইকল বিনের একটি আইকন থাকে, এটি খুলে যদি সেখানে প্রয়োজনীয় ফাইলটি পাওয়া যায়, তাহলে তাতে ডান ক্লিক করে রিস্টোর অপশনে ক্লিক করুন। যেখান থেকে ফাইলটি মুছে ফেলা হয়েছিল, সেখানে আবার চলে আসবে।
ব্যাকআপ ব্যবহার
হার্ডড্রাইভ বা ডকুমেন্ট লাইব্রেরি যদি নিয়মিতভাবে অন্য কোথাও ব্যাকআপ নেওয়ার ব্যবস্থা থাকে, তাহলে সেখানে মুছে যাওয়া ফাইলের একটা কপি থাকতে পারে। ব্যাকআপ যদি বহনযোগ্য হার্ডডিস্ক বা পেনড্রাইভে নেওয়া হয়ে থাকে, তাহলে তথ্য উদ্ধারের জন্য সেটিও ভালো একটি উৎস।
তৃতীয় পক্ষের সফটওয়্যার ব্যবহার
মুছে যাওয়া ফাইল যদি রিসাইকল বিনেও পাওয়া না যায়, তাহলেও সেসব ফাইল হার্ডডিস্কে থাকতে পারে। এসব তথ্য উদ্ধারের জন্য বিভিন্ন সফটওয়্যার রয়েছে। Recuva Portable তেমনই একটি সফটওয়্যার। সহজ ব্যবহারবিধির পাশাপাশি বহনযোগ্য এ সফটওয়্যারটি বিনা মূল্যেই পাওয়া যায়। তাই সফটওয়্যারটি ইন্টারনেট থেকে নামিয়ে নিলেই হলো, ইনস্টল করার প্রয়োজন পড়বে না। সবচেয়ে ভালো হয়, অন্য কোনো কম্পিউটার থেকে এটি নামিয়ে আনজিপ করে কোনো পেনড্রাইভে কপি করলে।
তারপর মুছে যাওয়া ফাইলের কম্পিউটারে পেনড্রাইভটি প্রবেশ করিয়ে সেখান থেকে সফটওয়্যারটি চালু করুন। সফটওয়্যারটি নামানো যাবে http://goo.gl/KUpJYM ঠিকানার ওয়েবসাইট থেকে। এভাবে যদি তথ্য উদ্ধার করা সম্ভব না হয়, তাহলে কম্পিউটার যথাসম্ভব কম ব্যবহার করে পেশাগতভাবে দক্ষ এমন কারও সাহায্য নিতে হবে।