স্যাটেলাইটের ডিজাইন হচ্ছে

মহাকাশে বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইটের নকশা প্রণয়নের কাজ অনেকটাই এগিয়ে নিয়েছে ফ্রান্সের কোম্পানি থ্যালেস অ্যালেনিয়া স্পেস। গত নভেম্বরের চুক্তি অনুসারে এই কোম্পানিটিই বাংলাদেশের প্রথম স্যাটেলাইট ডিজাইন, তৈরি এবং উৎক্ষেপণের কাজ করবে।
এদিকে স্যাটেলাইটের জন্য আলাদা কোম্পানি গঠনের তোড়জোড় এগিয়ে চলেছে। ইতোমধ্যে  রেজিস্টার অব জয়েন্ট স্টক কোম্পানির কাছে আবেদন করেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। কোম্পানির নাম ঠিক করা হয়েছে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন্স লিমিটেড।
bangobondhu-satelite-orbital slot-techshohor
নিজেরা কোম্পানির জন্যে একটি লোগোর ডিজাইন করলেও আবার লোগো এবং ট্রেড মার্কের জন্যে প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে বিটিআরসি।
আগামী ২০ জানুয়ারির মধ্যে যে কেউ তার নিজের পছন্দমতো রং ব্যবহার করে লোগো এবং ট্রেড মার্কের নকশা করে বিটিআরসিতে পাঠাতে পারবেন। তবে শর্ত হচ্ছে লোগোর মধ্যে বাংলাদেশ স্যাটেলাইট কমিউনিকেশন্স লিমিটেড পুরো লিখতে হবে।
এর আগে নভেম্বরের ১১ তারিখে থ্যালেসের সঙ্গে কাঙ্খিত এ স্যাটেলাইট তৈরিতে এক হাজার ৯৫১ কোটি টাকার চুক্তি করে ।
সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নিজস্ব স্যাটেলাইট টেলিমেডিসিন, ই-লার্নিং, ই-গবেষণা, ভিডিও কনফারেন্সিংয়সহ তথ্যপ্রযুক্তির বিভিন্ন খাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। প্রস্তাবিত স্যাটেলাইটে ৪০টি ট্রান্সপন্ডার ক্যাপাসিটির মধ্যে ২০টি বিক্রি করে বৈদেশিক মুদ্রা অজর্ন সম্ভব হবে।
অন্যদিকে বর্তমানে দেশে টিভি চ্যানেল, ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানসহ বিভিন্ন কাজে বিদেশি স্যাটেলাইট ব্যবহার করায় বছরে ১৪ মিলিয়ন ডলার ব্যয় হয়। বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট আকাশে উড়লে এ অর্থ সাশ্রয় হবে।
সরকার ২০১৭ সালের ১৬ ডিসেম্বর বঙ্গবন্ধু-১ স্যাটেলাইট মহাকাশে ওড়ানোর লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। এ উপগ্রহ মহাকাশে উড়ানোর মাধ্যমে নিজেদের একটি উপগ্রহের স্বপ্নপূরণ হবে বাংলাদেশের।