৩৬০ টেরাবাইটের ছোট্ট কাচের ডিস্ক,


ছোট্ট কাচের ডিস্কে ৩৬০ টেরাবাইট পর্যন্ত তথ্য সংরক্ষণ সম্ভব হবে যা ১৯০ ডিগ্রী তাপমাত্রায় টিকে থাকতে পারবে ১ হাজার ৩৮০ কোটি বছর পর্যন্ত।


সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের ইউনিভার্সিটি অব সাউদাম্পটনের অপ্টোইলেকট্রনিকস গবেষণা কেন্দ্রের একদল বিজ্ঞানী খুদে আকৃতির কাচের তথ্যভান্ডার তৈরি করেছেন। নথির আকার এবং কৌণিক দিক গুরুত্বপূর্ণ বলেই এটাকে তথ্য সংরক্ষণের ৫ডি মাধ্যম বলা হচ্ছে। কাচের স্তরের ভেতর দিয়ে আলো পরিবহনের ধরনের ওপর ভিত্তি করে কাজ করে এই প্রযুক্তি। এ ক্ষেত্রে তিন স্তরের কাচের চাকতির ভেতর দিয়ে দ্রুত গতির লেজার রশ্মির মাধ্যমে ছোট কিন্তু দৃঢ় আলোক স্পন্দন প্রবাহ করে নথিপত্র সংরক্ষণ করা হয়। বিজ্ঞানীরা কাচের ডিস্কটির নাম দিয়েছেন ‘সুপারম্যান মেমোরি ক্রিস্টাল’। 

 অপ্টোইলেকট্রনিকস গবেষণাকেন্দ্রের অধ্যাপক পিটার কাজানস্কি বলেন, ‘এটা ভাবতেই ভালো লাগছে যে আমরা এমন এক প্রযুক্তি উদ্ভাবন করেছি, যা দিয়ে তথ্য এবং নথিপত্র ভবিষ্যৎ প্রজন্মের জন্য সংরক্ষণ করতে পারব। এই প্রযুক্তি আমাদের শেষ অস্তিত্বটুকু সংরক্ষণ করবে, আমরা এত দিন যা শিখেছি তা হারিয়ে যাবে না।’ নতুন এই প্রযুক্তি বাণিজ্যিকভাবে বাজারে ছাড়তে হলে দরকার অংশীদারের। তবে ধারণা করা হচ্ছে, জাতীয় সংগ্রহশালা, জাদুঘর বা গ্রন্থাগার কাজে লাগাবে কাচের এই তথ্যভান্ডার।