সকালের নাস্তায় কখনোই খাবেন না যে খাবারগুলো!


সকালে নাস্তা করা একটি সাস্হ্যকর অভ্যাস । বিশেষ করে যারা ওজন কমাতে চান । গবেষনায় দেখা গেছে যারা সকালে পরিমানমত নাস্তা নেন তারা অনেক বেশি চিকন ও সতেজ থাকেন। সহজে মুটিয়ে যান না ।তবে আমরা অনেকেই সকালের নাস্তায় এমন সব খাবার খেয়ে থাকি যা আমাদের খাওয়া মোটেও উচিত নয় । এ খাবার খেয়ে আমাদের ওজন তো বাড়ছেই, সাথে আক্রান্ত হচ্ছি আরও নানান রকম অসুখে। যেমন ধরুন, আপনার ব্রেকফাস্ট টেবিলে কমলার রস, পরোটা, কর্ণফ্লেক্স বা পাউরুটি থাকেই, তাইনা? মনে রাখবেন, এই খাবারগুলো সকাল বেলা আপনার জন্য মোটেই ভালো নয়! আসুন জানি এসব খাবারের ক্ষতিকর দিকগুলো………

১।পাউরুটিঃ

সকালের নাস্তায় পাউরুটি একটি দারুণ সহজ সমাধান। কিন্তু সহজ হলেই তো হবে না, থাকতে হবে পুষ্টিও। সাদা ময়দার পাউরুটি ঘরে তৈরি হোক বা বেকারিতে, এতে পুষ্টিগুণ প্রায় থাকে না বললেই চলে। উল্টো এই পাউরুটি খেয়ে দিন শুরু করার পর অকারণেই আপনার আবার খিদে পাবে। পাউরুটি যদি খেতে হয় তবে ব্রাউন ব্রেড কিনুন বা বাড়তি ফাইবার যোগ করা আছে এমন রুটি কিনুন। তবে সবচাইতে ভালো হাতে গড়া আটার রুটি খেলে।
২। কর্ণফ্লেক্সঃসময় বাঁচাতে গিয়ে স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করি আমরা এই খাবারটি দিয়ে। প্রায় প্রতিটি কর্ণফ্লেক্সেই থাকে অনেকটা বাড়তি চিনি ও কৃত্রিম ফ্লেভার, যা খাওয়া মারাত্মক ক্ষতিকর। কেবল সকালে নয়, দিনের যে কোন সময়ে। একান্তই খেতে হলে হোল গ্রেইনে তৈরি কর্ণফ্লেক্স বেছে নিন।
৩। কমলার রসঃসকালের নাস্তার টেবিলে কমলার রস বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় একটি খাবার। কিন্তু বলাই বাহুল্য যে দোকান থেকে কেনা কমলার রসে থাকে প্রচুর পরিমাণে চিনি ও কৃত্রিম রঙ-ফ্লেভার, যা স্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। আর ঘরে তৈরি কমলার রসও সকালে খালি পেটে খাওয়া ঠিক নয়। যদি খেতেই চান, তাহলে নাস্তা করের ৩০ মিনিট পর পান করুন। এতে শরীর প্রয়োজন পুষ্টি পাবে।
৪। পরোটাঃসকালের নাস্তায় পরোটা আরও একটি জনপ্রিয় খাবার আমাদের দেশে। ময়দায় তৈরি পরোটায় পাউরুটির মতই কোন পুষ্টিগুণ থাকে না, বরং সাথে থাকে বাড়তি তেল ও ঘি। ফলে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যায় আক্রান্ত হওয়া ছাড়াও ওজন বাড়তে দেরি লাগে না আপনার। সেটা আপনি আধা পরোটা খান কিংবা একটি, ফলাফল সেই একই।
৫। ক্ষীর/সেমাই/ পিঠা/হালুয়াঃসকালের নাস্তায় ক্ষীর, হালুয়া বা সেমাইর মত মিষ্টি খাবার খাওয়ার প্রচলন অনেক বাড়িতেই আছে। কিন্তু সকাল সকাল এতটা মিষ্টি ও ফ্যাট যুক্ত খাবার আপনার পাকস্থলীর জন্য ভালো নয় মোটেও। সকালে পিঠে-পুলি খাওয়াটাও আমাদের দেশীয় ঐতিহ্য। চিতই পিঠা বা তেল/মিষ্টি ছাড়া যে কোন পিঠা খেতে পারেন। কিন্তু তেলে ভাজা বা খুব বেশী মিষ্টি দেয়া পিঠা নয়।
৬। ফ্রেঞ্চ টোস্টঃসকাল সকাল ডিম খাওয়া ভালো, তবে অবশ্যই ফ্রেঞ্চ টোস্ট হিসাবে নয়! কারণ ফ্রেঞ্চ টোস্টে আরও থাকছে প্রচুর ফ্যাট, চিনি ও পাউরুটি। ডিম ও হাতে গড়া রুটি খান, সেটাই বেশী স্বাস্থ্যকর। ফ্রেঞ্চ টোস্টের মত যে কোন মিষ্টি খাবার (যেমন মাফিন বা ডোনাট) সকালে এড়িয়ে চলুন।
৭। চা-কফিঃচা কিংবা কফি ছাড়া দিন একদমই চলে না। অথচ চিকিৎসকেরা বলেন সকালে খালি পেটে চা-কফি তো খাওয়া ভালো নয় মোটেই, এমনকি নাস্তার সাথে খাওয়াও অনুচিত। চা-কফি যদি পান করতেই হয়, সেটা বেলা ১১ টায় হলে সবচাইতে ভালো। নিদেনপক্ষে নাস্তা করার এক ঘণ্টা পর।