এক ফোনে দুই ডিসপ্লে



স্মার্টফোনের মূল আকর্ষণ ডিসপ্লে। আর তাইতো হ্যান্ডসেট উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বড় আকারের ডিসপ্লে বাজারে ছাড়ছে। এবার ফোনের বাজারে যুক্ত হলো নতুন চমক। দুই ডিসপ্লের ফোন তৈরি করেছে রাশিয়ার ইয়োটা ডিভাইসেস নামের একটি প্রতিষ্ঠান। ফোনটির নাম ইয়োটা ফোন। এই ফোনের বিশেষত্ব হলো এটির সামনে ও পেছনে উভয় পাশেই ডিসপ্লে রয়েছে। 
ইয়োটাফোনের দ্বিতীয় স্ক্রিন অর্থাৎ ব্যাকস্ক্রিনটি হল ‘অলওয়েজ অন’ ডিসপ্লে। দু’টি স্ক্রিনেরই সাইজ ৪.৩ ইঞ্চি। অলওয়েজ অন ব্যাকস্ক্রিনটি হল ইলেকট্রনিক পেপার ডিসপ্লে। 
এই স্ক্রিনটিকে অলওয়েজ অন বলার কারণ হল ব্যাটারি প্রায় শেষ হয়ে গেলেও চালু থাকবে ডিসপ্লে। এই ব্যাক স্ক্রিনটিতে রয়েছে কার্ভড কর্নিং গরিলা গ্লাস প্রযুক্তি এবং তার ফলে স্ক্রিনটি যেকোনো ধরনের ড্যামেজ রেসিট্যান্ট।
এই অভিনব ফাংশনের পিছনে রয়েছে ই-ইংক প্রযুক্তি। এই ব্যাকস্ক্রিনের ডিসপ্লেটি বিশেষভাবে তৈরি করা হয়েছে ই-রিডারদের জন্য। যারা দীর্ঘক্ষণ ইন্টারনেটে বিভিন্ন আর্টিকেল, ব্লগ বা সংবাদ পড়েন অথবা অফলাইনে ই-বুক পড়েন, তাঁদের চোখে যাতে স্ট্রেইন না পড়ে সেকথা ভেবেই এই স্ক্রিনটি বানানো।
কোম্পানিটি দাবি করছে, টানা ৫০ ঘণ্টা এই স্ক্রিনে লেখা পড়লেও চোখে কোনও কষ্ট হবে না।
এই অভিনব স্মার্টফোনটির দ্বিতীয় এডিশন অর্থাৎ ইয়োটাফোন ২ সম্প্রতি বাজারে এসেছে। 
ইয়োটাফোন ১ এ আছে ৪.৩ ইঞ্চির আইপিএস এলসিডি ফ্রন্ট ডিসপ্লে ডিসপ্লের রেজুলেশন ১২৮০x৭২০ পিক্সেল। এইচডি রেজলিউশন ডিসপ্লের এই ফোনটি আছে ১.৭ গিগাহার্টজ ডুয়াল কোর কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন প্রসেসর। র‌্যাম ২ জিবি। বিল্টইন মেমোর ৩২ জিবি।
এতে আরও আছে ১৩ মেগাপিক্সেল রিয়ার ক্যামেরা ও ১ মেগাপিক্সেল ফ্রন্ট ক্যামেরা
অন্যদিকে ইয়োটাফোন ২ তে আছে ডুয়াল কার্ভড স্ক্রিন। এটির ডিসপ্লে ৫ ইঞ্চির অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১০৮০x১৯২০ পিক্সেল।
ডিসপ্লের সুরক্ষার জন্য ব্যবহৃত হয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৩ ব্যাকস্ক্রিন প্রোটেকশন। 
এতে আছে ৩২ জিবি ইন্টারনাল মেমোরি। র‌্যাম ২ জিবি। ৮ মেগাপিক্সেল লেড ফ্ল্যাশ অটোফোকাস ক্যামেরা। যা দিয়ে  ১০৮০পিক্সেল ভিডিও রেকর্ডিং করা যাবে। 
ফ্রন্ট ক্যামেরা ২.১ মেগাপিক্সেলের। ফোনটিতে ব্যবহৃত হয়েছে ২.৩ গিগাহার্টজ কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮০১ প্রসেসর। ব্যাটারি ২৫০০ এমএএইচ ব্যাটারি। এই ফোনটি জিপিএস, ব্লু-টুথ, এফএম, ওয়াই-ফাই ইত্যাদি  নেটওয়ার্ক সমর্থন করে।