নিশ্চিত সরকারি চাকরি পেতে কি করতে হবে ?

 
সরকারি চাকরি যেন সোনার হরিণ। নিয়োগ পেতে মোটা অংকের ঘুষ দেওয়ার অভিযোগ লোকমুখে শোনা যায় প্রায়ই। কিন্তু এবার অনেকটাই দিন পাল্টেছে। তবে দিন দিন শিক্ষিতের হার বেড়ে যাওয়ায় আগের তুলনায় এখন প্রার্থীর সংখ্যা অনেক বেশি। তাই নিয়ম মেনে সেই প্রস্তুতি নিতে হয়। তবেই আপনি অন্যদের পিছনে ফেলে একটি সরকারি চাকরির অ্যাপয়েন্টমেন্ট লেটার পকেটস্থ করতে পারবেন। 
১. একাধিক বিষয়ে সঠিক তথ্য রাখতে হবে। এখন একটি ক্লিকেই আপনি যে কোনও বিষয়ের তথ্য পেয়ে যেতে পারেন অনলাইনে। তবে আপনার তথ্য সংগ্রহের উৎস যেন ভুল না হয়, খেয়াল রাখুন সেদিকে। সবসময় নিজেকে আপডেট রাখার চেষ্টা করতে হবে।
২. একাধিক জায়গায় চাকরির জন্য আবেদন করুন। ঠিক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার পর ছাত্রছাত্রীরা যেমন উচ্চশিক্ষিত হওয়ার লক্ষ্যে বিভিন্ন কলেজে ফর্ম ফিল আপ করে থাকেন। এখানেও ঠিক তেমন ভাবেই এগোতে হবে। অর্থৎ যখন যেখানে চাকরির আবেদনপত্র চাওয়া হচ্ছে তখনই সেখানে আবেদন করতে হবে। এক জায়গায় একই ধরনের চাকরির জন্য অপেক্ষা করলে হবে না। মাথায় রাখুন, যত বেশি জায়গায় আবেদন করবেন তত আপনার কাছে চাকরি পাওয়ার সুযোগ আসবে তত বেশি।
৩. পে স্কেল কম দেখে বা কাজের ধরন পছন্দ না হলে অনেকেই চাকরির পরীক্ষার আবেদন করেন না। প্রার্থীদের পরামর্শ, কখনওই এমন করবেন না। কারণ, ক্যারিয়ারের শুরুর দিকে এইসব লক্ষ্য করা ঠিক নয়। প্রথমে আপনি যে কোনও একটি চাকরি পেয়ে গেলে তারপর পছন্দ মতো অন্য চাকরির জন্য ফের চেষ্টা করতে পারবেন। তাই কোনও কাজই ছোটো নয়। এটা মাথায় রাখুন।
৪. একই ধরনের চাকরির পরীক্ষার জন্য আবেদন করুন বেশি জায়গায়। অর্থাৎ কেউ হয়তো ব্যাঙ্কের ক্লারিক্যাল পদে চাকরির প্রস্তুতি নিচ্ছেন। এবার এধরনের যত ক্লারিক্যাল পরীক্ষার বিজ্ঞাপন দেখতে পাবেন, সব জায়গায় আবেদন করুন। কারণ, আপনাকে আর আলাদা করে কোনও প্রস্তুতি নিতে হচ্ছে না। সেক্ষেত্রে যে কোনও জায়গায় ওই ধরনের কাজ পাওয়ার সুযোগ থাকবে বেশি।
৫. চাকরির জায়গা দূরে। অন্যকোনো বিভাগ বা দূরের কোনো জেলায় কাজ করতে যাবো না, এমন ভাবনা রাখলে কিন্তু চলবে না। সব জায়াগায় বিভিন্ন ধরনের সরকারি চাকরির জন্য আবেদন করলে আপনারই সুযোগ বাড়বে। একাধিক জায়গায় চেষ্টা করলে দেখবেন ঠিক এক জায়গায় আপনি চাকরি পেয়ে গেছেন।
৬. প্রতিযোগিতা নয়। আপনি যদি কোনও সরকারি চাকরির প্রস্তুতি নিতে শুরু করেন তাহলে সেটিকে সাধারণ পরীক্ষা মনে করুন। কারণ, প্রতিযোগিতার কথাটি মাথায় এলেই তৈরি হবে অস্বস্তি। আপনি আত্মবিশ্বাসও হারাতে পারেন।
৭. সরকারি চাকরি পেতে হলে জেনারেল নলেজ ও আইকোতে ফোকাস করতে হবে বেশি করে। এই দুটি সেকশনে যে যতো ভালো হবে, তার পক্ষে সরকারি চাকরি পাওয়া ততো সহজ।
৮. অনেকগুলো জায়গায় আবেদন তো করে দিলেন। এবার কোনটির কবে পরীক্ষা তার একটি ক্যালেন্ডার তৈরি করে ফেলুন। সেই অনুযায়ী শুরু করে দিন প্রস্তুতি। তার জন্য সঠিক মেটেরিয়ালও জোগাড় করে নিতে হবে আগে থেকে।
৯. পরীক্ষার লক্ষ্য স্থির রাখতে হবে। পরীক্ষার লেভেল যে ধরনের প্রস্তুতিও নিতে হবে সেই ধরনের।
১০. পরীক্ষা দিতে গিয়ে কোনোরকম মানসিক চাপ নিলে হবে না। রিল্যাক্স থেকে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে পরীক্ষা দিন। মানসিক চাপ নিলেই পরীক্ষার খাতায় উত্তর লিখতে সমস্যা তৈরি হবে।