রবি-এয়ারটেল বিষয়ে বিটিআরসির গণশুনানি ১৭ ফেব্রুয়ারি

 
 
একীভূত হতে টেলিকম প্রতিষ্ঠান রবি ও এয়ারটেলের আবেদন নিষ্পত্তিতে ১৭ ফেব্রুয়ারি গণশুনানির আয়োজন করেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)। বিটিআরসির বিদ্যমান আইন ২০০১ এর ৮৭ ধারা অনুসারে এ গণশুনানি হবে।
 বিটিআরসির জ্যেষ্ঠ সহকারী পরিচালক (লিগ্যাল অ্যান্ড লাইসেন্সিং) এস এম গোলাম সারোয়ার স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে রোববার এ তথ্য জানানো হয়েছে।  বিজ্ঞপ্তিতে  বলা হয়,  সংশ্লিষ্ট সরকারি আধা সরকারি, স্বায়ত্বশাসিত সংস্থা, টেলিযোগাযোগ সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান, মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী, ভোক্তা সংস্থা, পেশাজীবী আগ্রহী যে কোনো ব্যক্তি এতে অংশ নিতে পারবে। আগ্রহীদের ৮ ফেব্রুয়ারির মধ্যে অনলাইনের মাধ্যমে নিবন্ধন করতে বিটিআরসির পক্ষ থেকে অনুরোধ জানানো হয়। এদের মধ্য থেকে দৈবচয়নের ভিত্তিতে নির্বাচিতদের ১৫ ফেব্রুয়ারির মধ্যে গণশুনানির স্থান ও সময় অবহিত করা হবে।
এছাড়া  একীভূতকরণের বিষয়ে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের মতামত থাকলে তা লিখিত  আকারে ১৭ ফেব্রুয়ারির মধ্যে বিটিআরসির কাছে পাঠানোর অনুরোধ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।
এর আগে বৃহস্পতিবার এক বিজ্ঞপ্তিতে রবি আজিয়াটা লিমিটেড একীভূত হতে রবি ও এয়ারটেল উভয়ের প্রধান প্রতিষ্ঠানের মধ্যে চুক্তি হয়েছে বলে জানায়। কোম্পানি দুটির মালিক যথাক্রমে মালয়েশিয়ার আজিয়াটা বারহাদ ও ভারতীয় এয়ারটেল লিমিটেড (ভারতী)। বাংলাদেশে নিজেদের ব্যবসায়িক কার্যক্রম একীভূত করতে গত বছরের ৯ সেপ্টেম্বর আলোচনা শুরু করে আজিয়াটা ও ভারতী কর্তৃপক্ষ।  ২৮ জানুয়ারি মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে তারা একটি চুক্তিতে সই করে । চুক্তিতে বলা হয়,  এক হওয়ার পর কোম্পানির ৬৮.৩ শতাংশ শেয়ার থাকবে আজিয়াটার হাতে। আর ভারতী’র কাছে থাকবে ২৫ শতাংশ । এছাড়া বাকী  ৬.৭%  শেয়ারের শেয়ারহোল্ডার জাপানের এনটিটি ডকোমো। বিটিআরসি ও রবির তথ্যমতে দুই কোম্পানি এক হলে  গ্রাহক সংখ্যা দাঁড়াবে প্রায় ৪ কোটি। এতে বাংলাদেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম অপারেটরে পরিণত হবে রবি। বর্তমানে সবচেয়ে বেশি গ্রাহক আছে গ্রামীণফোনের। এর গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি।