গ্রহাণু ছুটে আসছে : ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশংকা



একটি গ্রহাণু পৃথিবীর দিকে ছুটে আসছে। এটি পৃথিবীকে আঘাত করলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার আশংকা করা হচ্ছে। এমন পূর্বাভাস দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। ওই গ্রহাণুর নাম ‘২০১৩ টিএক্স৬৮’। আগামী সপ্তাহে একটি মহাজাগতিক পাথরের সঙ্গে গ্রহাণুর সংঘর্ষ হতে পারে। তবে তা থেকে মানবজাতি রক্ষা পাবে বলে আশা করছে নাসা। তবে একেবারে বিপদের আশংকা থেকে মুক্তি মিলবে এমনটাও নিশ্চিত করে বলতে পারেনি তারা।

নাসা বলছে, ওই গ্রহাণুটি ১০০ ফুট চওড়া। এখন এটি পৃথিবীর দিকে এগিয়ে আসছে। তবে এবার যদি কোনো বিপদ না-ও ঘটে তাহলে আগামী বছর তা আরও একবার পৃথিবীর কাছ দিয়ে উড়ে যাবে। অর্থাৎ ২০১৭ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর আরেকটি সংঘর্ষ ঘটতে পারে। তবে সে সম্ভাবনা খুব কম। যদি এমন সংঘর্ষের ফলে তা বিস্ফোরিত হয় পৃথিবীর আবহাওয়া মণ্ডলে তাহলে তা থেকে যে শক্তি পৃথিবীকে আঘাত করবে তা হবে একটি শক্তিশালী পারমাণবিক বোমার সমান। ফলে এর আওতার মধ্যে যা থাকবে তার সবকিছুকে বিনাশ করে দিতে পারবে। তবে শুক্রবার রাতে নাসা এক টুইট বার্তায় বলেছে, এমন আশংকা খুব কমই। তবে এই গ্রহাণুর আঘাত থেকে পৃথিবী আরও কমপক্ষে এক শতাব্দী নিরাপদ থাকবে। জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা সুনির্দিষ্ট করে এ গ্রহাণুর চলাচলের বিষয়ে পূর্বাভাস দিতে পারছেন না। তারা বলতে পারছেন না যে, এ গ্রহাণুটি পৃথিবীর ১১ হাজার মাইলের মধ্যে চলে আসবে কিনা। এ সীমার মধ্যে চলে এলে তা হবে ক্ষতিকর।