দেশের ডিজিটাল অগ্রযাত্রায় সঙ্গে থাকবে ভিম্পেলকম

স্পেনের রাজধানী বার্সেলোনায় বসা মোবাইল ফোন নিয়ে সবচেয়ে বড় ওয়ার্ল্ড মোবাইল কংগ্রেস (ডাব্লিউএমসি) থেকে দেশে শুরু হওয়া কানেক্টিং স্টার্টআপস বাংলাদেশ নিয়ে  কথা বলেছেন ভিম্পেলকমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা অগি কে ফাবেলা।
বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে সরাসরি একটি ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে ফাবেলা তরুণ উদ্যোক্তাদের উদ্দেশ্যে কথা বলেন।
একটি উদ্যোগ অনেককিছু পরিবর্তন করে দিতে পারে জানিয়ে ফাবেলা বলেন, ভিম্পেলকম একটি স্টার্টআপ হিসেবে প্রায় ২০ বছর আগে মাত্র ৩০জন কর্মী নিয়ে কাজ শুরু করে। আর এখন বিশ্বে প্রায় ১৬ হাজার কর্মী রয়েছে যারা ডিজিটাল ওয়ার্ল্ড গড়তে কাজ করে যাচ্ছেন।
Fabela
সরাসরি ভিডিও কনফারেন্সে এই কথা বলা তখন বিশ্বের প্রায় তিন হাজার মানুষ অনলাইনে দেখছিল। ফাবেলা বলেন, গত বছর এই মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেস থেকেই ভিম্পেলকম বাংলাদেশের আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদের সঙ্গে কাজ করার অঙ্গীকার করে।
একবছর ঘুরতে না ঘুরতেই ভিম্পেলকম সেই কাজ শুরু করেছে  বলে জানান ফাবেলা। তিনি বলেন, বাংলাদেশের আইটি খাত ও বিভিন্ন সেবা ডিজিটাল করতে ভিম্পেলকম বিভিন্ন কোম্পানি ও আইসিটি বিভাগের সঙ্গে কাজ শুরু করেছে।
তবে এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কানেক্টিং স্টার্টআপস বাংলাদেশের সঙ্গে পৃষ্ঠপোষক হিসেবে যুক্ত হয়েছে। যারা দেশের তরুণ উদ্যোক্তাদের সবধরনের সহযোগিতা করবে বলে ভিডিওতে বলেন ফাবেলা। একটা ইকো সিস্টেম গড়ে তোলে উদ্যোক্তাদের সহায়তা করবে ভিম্পেলকমের প্রতিষ্ঠান মোবাইল অপারেটর বাংলালিংক।
বাংলাদেশকে ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার আন্দোলনে ভিম্পেলকম যোগ দিয়েছে জানিয়ে ফাবেলা বলেন, বিশ্বে এখন বাংলাদেশের অপার সম্ভাবনা। সেই সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে ভিম্পেলকম কাজ করছে।
কনফারেন্সে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক যোগ দিয়ে বলেন, কানেক্টিং স্টার্টআপস বাংলাদেশ প্রতিযোগীদের মধ্যে সেরা দশজনকে রাজধানীর জনতা টাওয়ারের সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে এক বছরের জন্য তাদের উদ্যোগকে এগিয়ে নিয়ে বিনামূল্যে স্পেসসহ যাবতীয় সুবিধা দেওয়া হবে। এছাড়াও সিলিকন ভ্যালির ভেঞ্চার ক্যাপিটাল থেকে বিনিয়োগের ব্যাপারে সহায়তা করা হবে।
একইদিনে দেশে বাংলালিংকের সিইও সংবাদ সম্মেলন করে ঘোষণা দেন দেশে তাদের সেবাগুলোকে ডিজিটাল করার অর্থাৎ ডিজিটাল বাংলালিংক এর।