ফ্যাশন যখন বর্ণিল ব্লাউজ


ব্লাউজের সঙ্গে মিলিয়ে দেশীয় শাড়ির পাড়েও একই কাপড়ের ব্যবহার

শাড়ির সঙ্গে মিলিয়ে ব্লাউজ নয়, বরং এখন ব্লাউজের সঙ্গে মিলিয়ে শাড়ি বাছাই করছেন অনেক তরুণী। হাল সময়ে ব্লাউজের নকশায় বেশি মনোযোগ দেওয়া হচ্ছে। এমনভাবে তৈরি করা হচ্ছে যেন এক ব্লাউজ কয়েকটি শাড়ির সঙ্গে পরা যায়। সেই গতানুগতিক গোল গলা ও চোলি কাট নয়, ব্লাউজের কাটে এখন চলছে নানা পরীক্ষা-নিরীক্ষা। নকশায়ও এসেছে ভিন্নতা। ফিউশন ধরনের ব্লাউজই বেশি নজর কাড়ছে। এমনকি ব্লাউজের ওপর কটি পরার চলও দেখা যাচ্ছে, যেটা কটি ব্লাউজ নামেই পরিচিত।
ছাপছোপ
ফ্যাশন ডিজাইনার এমদাদ হক জানালেন, পয়লা বৈশাখে এবার ব্লক, বাটিক, শিবুরি ও টাইডাইয়ের ব্লাউজ খুব বেশি চলবে। প্রচুর গরম থাকে; তাই ব্লাউজের জন্য সুতি, খাদি বা ভয়েল কাপড়ই সেরা। এ ছাড়া চলবে বড় বড় ফুলেল প্রিন্টের ব্লাউজ। এক রঙের বা প্লেইন পাড়ের শাড়ির সঙ্গে এ ধরনের ব্লাউজ দারুণ ফুটবে। আর এখন তো শাড়ির সঙ্গে রং না মিলিয়ে বিপরীত রঙের ব্লাউজ পরার চল।
ব্লাউজের কাট কেমন হবে সেটি নির্ভর করে নিজের পছন্দের ওপর। অনেকে সব সময় একই কাটের ব্লাউজ পরতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন, সে ক্ষেত্রে ভিন্নতা আনা যেতে পারে ব্লাউজের কাপড় ও নকশায়। এক রঙা ব্লাউজের বদলে প্রিন্টের ব্লাউজ পরে নিলে অনেকটা স্টাইলিশ লুক চলে আসে। ছাপা নকশার মধ্যে এখন ফুলেল প্রিন্ট সবচেয়ে ট্রেন্ডি। এ ছাড়া চলছে চেক, ব্লক, বাটিক, স্ক্রিন প্রিন্ট ও পলকা ডট।
ডিজাইনার রামীম রাজের মতে, গরমের এই সময়টায় ব্লাউজের জন্য আরামদায়ক কাপড় বেছে নিতে হবে। সামনে আসছে বৈশাখ। পয়লা বৈশাখে ঐতিহ্যবাহী সাজেই বের হন মেয়েরা। সুতি শাড়ির সঙ্গে ব্লক, বাটিকের ব্লাউজ ভালো লাগবে। তৈরি করে নেওয়া যেতে পারে কোটা বা খাদি কাপড়ের ব্লাউজ। লেস, কড়ি, ইয়কের ব্যবহারে নকশায় নতুনত্ব আনা যায়। পাতলা গড়নের মেয়েদের বড় প্রিন্টের ব্লাউজ পরার পরামর্শ দেন তিনি। যাঁদের স্বাস্থ্য একটু ভারীর দিকে তাঁরা প্রিন্টের কাপড় এড়িয়ে গেলেই ভালো। সে ক্ষেত্রে কয়েক ধরনের কাপড় মিলিয়ে একটি ব্লাউজ বানানো যেতে পারে। হাতায় অন্য রকম কাপড় ব্যবহার করে পাইপিং ও বর্ডারের মাধ্যমে ভিন্নতা আনা যেতে পারে এক রঙের ব্লাউজের নকশায়। এক রঙের চিকেন কাপড়ের ব্লাউজও বেশ স্টাইলিশ। জমকালো ভাব আনতে শুধু হাতায় অ্যান্ডি সিল্ক, মসলিন বা নেট ব্যবহার করা যেতে পারে। চাইলে ব্লাউজের সঙ্গে মিলিয়ে পরার জন্য দেশীয় শাড়ির দোকান থেকে পছন্দমতো শাড়ি কিনে নিতে পারেন। একটু ভিন্নতা আনতে ব্লাউজের সঙ্গে মিলিয়ে শাড়িটিতে পাড় লাগিয়ে নিন।
কটি ব্লাউজ
বর্তমানে ব্লাউজের ফ্যাশনে একেবারে নতুন সংযোজন হলো, কটি ব্লাউজ। কোমর পর্যন্ত উচ্চতার কটির মতো ব্লাউজ পরতে দেখা যাচ্ছে আজকাল। আবার একটি ব্লাউজের ওপর ছোট কটি পরার চলও চলছে। এ ধরনের ব্লাউেজর সঙ্গে শাড়ির আঁচল পেছন থেকে সামনে নিয়ে এসে পরলে ভালো দেখাবে। চাইলে অাঁচল পেছনে নিয়েও পরতে পারেন।
কাটে বৈচিত্র্য

‘ব্লাউজের কাটে এখন বোট নেক খুব চলছে। চোলি কাটের ব্লাউজ বিদায় নিয়েছে, এখন চলছে প্রিন্সেস কাট ব্লাউজ। অর্থাৎ গাউনের সামনের অংশ ও হাতায় যেমনটি দেখা যায় সে ধরনের ব্লাউজই এখন সবচেয়ে ফ্যাশনেবল। পুরোনো দিনের ঢঙে হাইনেক ও লেইসের ব্যবহারও দেখা যাচ্ছে। এ ধরনের ব্লাউজে পেছনের দিকটা বেশির ভাগ সময় খোলা রাখা হচ্ছে। পিঠের কাছে নানা রকম বোতাম বা ফিতা দিয়ে চাকচিক্য আনা যায় এতে’—বললেন রামীম রাজ।
সন্ধ্যার দাওয়াতের জন্য জমকালো ব্লাউজ বানিয়ে নিতে পারেন। আজকাল বাজারে সেকুইন, ডলার বসানো ও নানা রকম এমব্রয়ডারি করা কাপড় কিনতে পাওয়া যায়। গজ কাপড় কিনে ব্লাউজ বানিয়ে নিতে পারেন। আবার নকশাহীন কাপড়ের ওপর কারিগর দিয়ে কাজও করিয়ে নেওয়া যায়। হাইনেকের ব্লাউজে গলায় ভারী কাজ থাকতে পারে। পেছনেও নকশা করা যায়।হুর ফ্যাশন হাউসের ডিজাইনার সৌমিন আফরিন বলেন, ‘পেছনে গোল মোটিফের এমব্রয়ডারি করানো যেতে পারে। পিঠ খোলা হলে বো থাকতে পারে পেছনে। বেবি কলার এবং বন্ধ গলার ব্লাউজও চলছে এখন। এ ধরনের কাটে চুলটা পিঠের ওপর ছেড়ে না দিয়ে উঁচু করে কোনো স্টাইলিশ ঢঙে বেঁধে নিতে পারেন। আর শাড়ির আঁচলটা তখন গুছিয়ে রাখা চাই।’
 
ব্লাউজের পেছনে ছোট বা বড় আকারের বো এনে দেবে ফিউশন লুকব্লাউজের হাতা
লো-কাটের হাতাকাটা আর কনুই পর্যন্ত হাতার ব্লাউজ এবার বেশি পরতে দেখা যাবে বলেও জানিয়েছেন ডিজাইনাররা। হাইনেক, বা পেছনে লো-কাট দুটোই এখন ট্রেন্ডি। একটু ফোলানো ঘটিহাতা ব্লাউজ ঐতিহ্যবাহী শাড়ির সঙ্গে দারুণ মানাবে। ফিউশন আনতে চাইলে জর্জেট বা সিফনের সঙ্গেও এটি মন্দ লাগবে না। ফুলহাতা হলে চুড়িদারও ভালো লাগবে। স্লিভলেস হলে শুধু কাঁধের কাছে নকশা থাকতে পারে। হাইনেকে থ্রি কোয়ার্টার বা ফুলহাতা দুটোই মানাবে। যদি কনুইয়ের ওপর পর্যন্ত লম্বা হয় তাহলে হাতার শেষে পাড় না লাগিয়ে মাঝ বরাবর পাড়টি বসাতে পারেন। জমকালো অনুষ্ঠানের জন্য ব্লাউজের হাতায় সামান্য উঁচু করে কয়েকটা কুচি দিলেও দেখতে মন্দ লাগবে না।