পয়েন্ট অ্যান্ড শ্যুট ক্যামেরায় ২৪ এক্স জুম


ডিএসএলআরের ভিড়ে সাধারণ ক্যামেরার জনপ্রিয়তা কমেছে অনেকখানি। তার ওপর রয়েছে স্মার্টফোন। ছবি তোলার সব ফিচার মোবাইলে পাওয়া গেলে পয়েন্ট অ্যান্ড শ্যুট ক্যামেরার কি দরকার? তবে ক্যামেরা বিশেষজ্ঞরার বলছে ভিন্ন কথা। আপনি যদি আপনার ছবি তোলার উদ্দেশ্য নির্দিষ্ট করতে পারেন, একটি পয়েন্ট অ্যান্ড শ্যুট ক্যামেরার মেটাতে পারে আপনার ক্যামেরার চাহিদা।   
জাপানের বিখ্যাত প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান প্যানাসনিক ক্যামেরা বাজারে নিয়ে এলো নতুন পয়েন্ট অ্যান্ড শ্যুট ক্যামেরা প্যানাসনিক লুমিক্স এফজেড৩০০। পানি নিরোধক এই ক্যামেরাটির রয়েছে ২৪ এক্স জুম এবং ২৫-৬০০ মিলিমিটার লেন্স। 
ক্যামেরাটির অন্যতম বৈশিষ্ট্য হল ক্যামেরাটি পানি এবং ধুলো নিরোধক। যেকোনো প্রতিকুল আবহাওয়াতেও ক্যামেরাটি ব্যবহার করা যাবে। এতে আছে ওয়েদার গার্ড। ক্যামেরাটি দিয়ে ৪কে মানের ভিডিও ধারণ করা যাবে। এটি প্রতি সেকেন্ড ৬০টি ফ্রেম ধারণ করতে সক্ষম। এতে ১/২.৩ ইঞ্চির সেন্সর রয়েছে। ক্যামেরাটির জুম লেন্স এফ২.৮ পর্যন্ত বিস্তৃত। 
১২.১ মেগা পিক্সেলের এই ক্যামেরাতে এমওএস সেন্সরের সঙ্গে ভেনাস ইঞ্জিন ইমেজ প্রসেসর ব্যবহার করা হয়েছে। লুমিক্স এফজেড৩০০ এ ইলেকট্রনিক ভিউ ফাইন্ডারে একটি আই সেন্সর রয়েছে। যেখানে চোখ লাগার সাথে সাথে ক্যামেরার এলসিডি স্ক্রিনটি বন্ধ হয়ে ইলেকট্রনিক ভিউ ফাইন্ডার চালু হবে। দুটি উপায়ে ক্যামেরাটির জুম নিয়ন্ত্রণ করা যায়। একটি শ্যুট পয়েন্টের সাথে এবং অন্যটি লেন্সের পাশে। ক্যামেরাটিতে বিল্ট ইন ফ্ল্যাশ রয়েছে। অতিরিক্ত ফ্ল্যাশগান যুক্ত করার সুযোগ রয়েছে।
৩ ইঞ্চির ডিসপ্লে প্যানেলটি টাচ স্ক্রিন। এইচডিএমআই পোর্ট রয়েছে নতুন মডেলের এই ক্যামেরাতে। 
ক্যামেরাটির সর্বোচ্চ আইএসও ১২৬০০। কম আলোতে দারুণ ছবি তোলার সুযোগ রয়েছে ক্যামেরাটি দিয়ে। খুব ক্ষুদ্র বিষয়ের ছবি তোলার জন্য ক্যামেরাটিতে বিল্ট ইন ম্যাক্রো ল্যান্স রয়েছে।
জেপিইজি এবং র দুই ফরম্যাটে ছবি তোলা যায় ক্যামেরাটি দিয়ে। ছবি শেয়ার করার জন্য এতে রয়েছে ওয়াইফাই সুবিধা। 
ক্যামেরাটির মূল্য ৪৬৫ ডলার। ভ্যাট ও ট্যাক্স বাদে বাংলাদেশি টাকায় ৩৭ হাজার ২০০ টাকা।