ফেসবুকে কার কাছে চাকরি পাবেন?


চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে অনলাইন বন্ধুদের থেকে সাহায্য পাওয়ারও যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আর এ বিষয়টি মাথায় রেখে অনেকেই চাকরি খুঁজতে গিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের বন্ধুদেরও বাদ দেন না? তবে সব বন্ধু কি এ ক্ষেত্রে সমান কার্যকর? এ প্রসঙ্গে সম্প্রতি এক গবেষণায় বেশ কিছু তথ্য প্রকাশ করেছেন গবেষকরা। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে বিজনেস নিউজ ডেইলি।
অনলাইনের বন্ধুদের কোনোভাবেই হেলাফেলা করা ঠিক নয়। এমনকি আপনার যে বন্ধুদের কাছ থেকে সহায়তা পাওয়া যাবে বলে আপনি আশাবাদী নন, তাদের কাছ থেকেও সহায়তা পাওয়া যেতে পারে। তবে চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে আপনি কাদের গুরুত্ব দেবেন এ বিষয়টি কয়েকটি বিষয়ের ওপর নির্ভর করে।
সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের টাফস ইউনিভার্সিটি ইন ম্যাসাচুসেটস ও স্টোনি ব্রুক ইউনিভার্সিটি একত্রে একটি গবেষণা করেছে। এ গবেষণায় উঠে এসেছে অল্প পরিচিত বন্ধুরা যেমন আপনার চাকরির সন্ধানে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে পারে তেমন বহুদিনের পুরনো বন্ধুরাও সহায়তা করতে পারে।
গবেষকরা জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তথ্য সংগ্রহে তারা বিভিন্ন তথ্য ও উপাত্তের ব্যবহার করেছেন। এ ক্ষেত্রে ফেসবুকের তথ্যও নেওয়া হয়েছে। গবেষকরা জানান, অধিকাংশ মানুষ চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে অনলাইনে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে অল্প পরিচিত ব্যক্তিদের সহায়তা নেন। তবে যাদের সঙ্গে বহুদিনের পরিচয় তেমন বন্ধুদের কাছ থেকে বেশি সহায়তা পাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
এ বিষয়ে গবেষণাপত্রটির লেখক ফেসবুক ব্লগ পোস্টে লিখেছেন, ''দুর্বল সম্পর্ক গুরুত্বপূর্ণ হতে পারে তাদের সংখ্যাধিক্যের জন্য। কিন্তু অনলাইনে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে যাদের সঙ্গে, তাদের বিষয়টি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে সম্পর্কের গভীরতার কারণে।''
এ ক্ষেত্রে গবেষকরা বিষয়টি ব্যাখ্যা করেছেন যে, স্বাভাবিকভাবেই ফেসবুকের সব বন্ধুর সঙ্গে আপনার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়া সম্ভব নয়। কিন্তু চাকরি সন্ধান করতে গেলে সব বন্ধুর সঙ্গেই যোগাযোগ স্থাপন করে চাকরির সন্ধান করা প্রয়োজন। এ ক্ষেত্রে যে বন্ধুরা আপনার সঙ্গে ঘনিষ্ঠ তারা স্বাভাবিকভাবেই বেশি চেষ্টা করবেন। কিন্তু তাদের সংখ্যা কম হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। অন্যদিকে অল্প পরিচিত বন্ধুদের সংখ্যা বেশি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ অল্প পরিচিত বন্ধুরা হয়ত আপনার ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের মতো চাকরির চেষ্টা করবেন না। কিন্তু তার পরও তারা যদি সত্যিই চেষ্টা করেন তাহলে আপনার চাকরি পাওয়ার বেশি সম্ভাবনা সৃষ্টি হতে পারে।
বিষয়টি অনুসন্ধানের জন্য গবেষকরা বিভিন্ন ব্যক্তির মধ্যে ঘনিষ্ঠ নাকি অল্প বন্ধুত্ব রয়েছে তাও নির্ণয় করেন। এ জন্য তারা উভয়ের ছবিতে ট্যাগ করা, একে অন্যের ওয়াল লেখা ও মিউচুয়াল বন্ধুর সংখ্যা নির্ণয় করেন।
ফেসবুকে অল্প পরিচিত বন্ধুদের সংখ্যাই এখন অনেকের বেশি থাকে। আর এ অল্প পরিচিতরাই চাকরি ক্ষেত্রে সবচেয়ে ফলপ্রসূ হয় বলে গবেষকরা জানিয়েছেন। তাই ফেসবুকের মতো সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে কাউকে হেলাফেলা না করে বরং সম্পর্ক সৃষ্টির দিকেই মনোযোগী হতে পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা।