রমজানের রেসিপি

এই রমজানে ইফতার টেবিলে ভাঁজাপোড়া না থাকলে ইফতারই অসম্পূর্ণ রয়ে যায়। তাছাড়া সারাদিন রোজা রাখার পর একটু ভাঁজাপোড়া খেতে কার না ভালো লাগে! তাই আজ আপনাদের ইফতারের জন্য রইলো একটি চমৎকার স্বাদের 'রোল' রেসিপি। রোল আপনারা অনেকেই বানাতে জানেন, তারপরেও এই রেসিপিটা করে দেখতে পারেন। একদিনের জন্য হলেও হয়তো আপনার ইফতার একটি ভিন্নমাত্রা পেতে পারে।



প্রয়োজনীয় উপকরণ:
চিংড়ি = ১/২ কাপ (ছোট টুকরা করে কাঁটা)
মুরগীর মাংস = ১ কাপ (কিউব করে কাঁটা)
পেঁয়াজকুচি = ১ কাপ
রসুনবাটা = ১ টেবিল-চামচ
কাঁচা মরিচ কুচি = ১ টেবিল-চামচ
মটরশুঁটি = ১/৩ কাপ
গাজরকুচি = ২ টেবিল-চামচ,
অন্যান্য সবজী = ১/২ কাপ (যে কোনো পছন্দের)
হলুদগুঁড়া = ১ চা চামচ,
চিলি সস = ১ টেবিলচামচ
লবণ = স্বাদমতো
তেল = ভাজার জন্য যতটুকু লাগে

রোলের জন্য:
ময়দা = ২ কাপ
ঘি/তেল =১ টেবিল চামচ
লবণ = স্বাদ মতো
পানি = প্রয়োজন মতো

প্রস্তুত প্রণালি:
# প্রথমে ফ্রাইং প্যানে ৩ টেবিল চামচ তেল দিয়ে গরম হলে তাতে লবন মেখে চিংড়ি ও মুরগীর ভালোকোরে ভেজে তুলে রাখুন।

# এবার উক্ত তেলে পেঁয়াজ কুচি দিয়ে তা নরম করে ভেজে নিন। এরপর এতে একে একে আদা, রসুন, মরিচ দিয়ে ভেজে তাতে, হলুদগুঁড়া, রসুনবাটা, কাঁচা মরিচ কুঁচি, মটরশুঁটি, গাজরকুচি ও অন্যান্য সবজি একে একে সবকিছু দিয়ে দিন। এগুলো কিছুক্ষন নেড়ে তাতে ভেজে রাখা চিংড়ি ও মুরগীর মাংস দিয়ে দিন। এবার সব কিছু ভাজা হলে নামিয়ে ফেলুন।

# এবার ময়দায় লবণ ও তেল বা ঘি দিয়ে ভালো করে মেখে ময়দার খাস্তা তৈরি করে নিন। এরপর ময়দায় প্রয়োজন মতো পানি দিয়ে রুটি বেলার ডো এর মতো তৈরি করুণ।

# বড় একটি করে পাতলা রুটি বেলে নিয়ে নিজের পছন্দ মতো লম্বায় রুটি ছুরি দিয়ে কেটে নিন লম্বা করে। এরপর এক খণ্ড রুটির এক কিনারে ভাঁজা সবজী দিন প্রয়োজনমতো। এবার রুটি দিয়ে তা পেঁচিয়ে রোল তৈরি করুন।

# এবার একটি বড় কড়াইয়ে ডুবো তেলে ভাজার জন্য তেল গরম করে নিন এরপর অল্প আঁচে সময় নিয়ে ভালো করে ভেজে তুলুন রোল গুলো। লক্ষ্য রাখবেন চুলার আঁচ বেশি গরম হলে তেল বেশি গরম হবে, এতে করে রুটির ভেতর ভালো করে হবে না কিন্তু উপরে পুড়ে যাবে। তাই সর্তক থাকুন।

নিজের পছন্দমতো সাজিয়ে গরম গরম পরিবেশন করুণ ইফতারের টেবিলে। আশাকরি সকলেরই খুব ভালো লাগবে।