পানি নিরোধক নয় গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভ, ভুল প্রচারণায় স্যামসাং !!


সম্প্রতি বাজারে বের হওয়া স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভ প্রচারণা অনুযায়ী পানি নিরোধক নয় বলে অভিযোগ উঠেছে। কনজ্যুমার রিপোর্টস নামক এক বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিবেদনে এ অভিযোগ উঠে এসেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এটি এ্যান্ড টি-এর মাধ্যমে বিক্রি হওয়া অমসৃণ গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভে এ সমস্যা দেখা গেছে। তবে স্টান্ডার্ড স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ এবং এস৭ এজও পানি নিরোধক নয় বলে অভিযোগ উঠেছে। কনজ্যুমার রিপোর্টস প্রতিবেদনে বলে, তারা ফোনটিকে অ্যাক্টিভ বলতে নারাজ কেননা এটি স্যামসাংয়ের দাবি অনুযায়ী কাজ করছে না। তবে এস৭ এবং এস৭ এজ ফোনকে ডিসপ্লে, ব্যাটারী এবং কামেরার দিক থেকে ভালো বলেছে প্রতিষ্ঠানটি।
কনজ্যুমার রিপোর্টসের ইলেক্ট্রনিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা বিভাগের পরিচালক মারিয়া রিরেসিচ জানান, গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভের এ ধরণের খুঁত ধরা পড়ায় খুবই আশ্চর্য হয়েছেন তিনি। তিনি বলেন, স্যামসাংয়ের দাবিটি ‘আংশিক সত্য’। স্যামসাং জানায়, তারা ফোনগুলো সম্পর্কে খুব কমই অভিযোগ পেয়েছে। স্মার্টফোনগুলো অনেক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে বাজারে ছাড়া হয়েছে বলে দাবি করে প্রতিষ্ঠানটি। ত্রুটিপূর্ণ ডিভাইসের ক্ষেত্রে এ ধরণের সমস্যা হতে পারে বলে দাবি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। তবে স্যামসাং পরীক্ষা-নিরীক্ষার ব্যাপারে কনজ্যুমার রিপোর্টসের সাথে যোগাযোগ করছে।
স্যামসাং জানায়, অ্যাক্টিভসহ সব এস৭ ফোনই ৩০ মিনিট অব্দি ৫ ফুট পর্যন্ত পানির নিচে থাকতে পারবে। কনজ্যুমার রিপোর্টস জানায়, পানির নিচে আধা ঘন্টা রাখার পরই গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভ স্মার্টফোনের স্ক্রিন সবুজসহ অন্যান্য রঙে ঝলক দেয় এবং টাচ নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়ে। ক্যামেরা লেন্সে ছোট ছোট বুদবুদ এসে জড়ো হয়। পরবর্তীতে কনজ্যুমার রিপোর্টস আরও একটি অ্যাক্টিভ স্মার্টফোন নিয়ে পরীক্ষা চালায় তাও পরীক্ষায় নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়।
রিরেসিচ বলেন, স্যামসাংয়ের নির্দিষ্ট একটি ইউনিটে এ সমস্যা থাকতে পারে। তবে আমরা যে দুটি স্মার্টফোন কিনে পরীক্ষা করেছি তা নিজেকে প্রমাণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। দুটো স্মার্টফোনই অনলাইন থেকে কেনা হয়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে স্যামসাং গ্যালাক্সি এস৭ অ্যাক্টিভ, এস৭ এজের দাম ৭৯৫ মার্কিন ডলার।