ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সরযুক্ত Walton Primo H6 - ১০ হাজার টাকা বাজেটে সেরা ফোন


হালের স্মার্টফোনসমূহের অন্যতম আকর্ষণীয় ফিচার হলো ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। তবে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর সুবিধাযুক্ত স্মার্টফোন কিনতে গেলে ক্রেতাদের বাড়তি অর্থ গুণতে হতো! আর তাইতো ক্রেতাদের কষ্ট লাঘবে ওয়ালটনের নতুন সংযোজন Walton Primo H6; মাত্র ৯,৪৯০ টাকা দামের এই ফোনে আরও আছে অ্যান্ড্রয়েড মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেম, BSI সেন্সরযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেলের অটোফোকাস রেয়ার ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা, ২ গিগাবাইট র‍্যাম, ফোরজি সুবিধা ও আকর্ষণীয় নানা ফিচার। ওয়ালটনের নতুন ফোন Primo H6 এর বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইন, ইউজার ইন্টারফেস, ব্যাটারি ব্যাকআপ, গেমিং পারফরম্যান্স, বেঞ্চমার্ক স্কোর, ক্যামেরা পারফরম্যান্স প্রভৃতির বিশ্লেষণধর্মী তথ্য নিয়ে প্রিয়টেকের এবারের আয়োজন Walton Primo H6 এর Exclusive Hands-on Review
Primo H6 hands-on
চলুন তাহলে রিভিউয়ে শুরুতে একনজরে Primo H6 এর উল্লেখযোগ্য ফিচারসমূহ দেখে নেওয়া যাক-
  • অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেম
  • গরিলা গ্লাস ৩ সমৃদ্ধ ৫ ইঞ্চি ডিসপ্লে
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • ১.০ গিগাহার্টজ গতির কোয়াডকোর প্রসেসর
  • ২ গিগাবাইট র‍্যাম
  • মালি-টি৭২০ জিপিউ
  • ১৩ মেগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা
  • ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ফোরজি সাপোর্ট
  • ২৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি
Primo H6 hands-on
বিস্তারিত রিভিউ শুরু করবো Primo H6 এর Unboxing দিয়ে-
আনবক্সিং: Primo H6 কেনার পর আপনি এর সাথে যা যা পাবেন-
  • চার্জার অ্যাডাপ্টার
  • ডাটা ক্যাবল
  • ইয়ারফোন
  • ইউজার ম্যানুয়াল
  • ওয়ারেন্টি কার্ড
অপারেটিং সিস্টেম: অপারেটিং সিস্টেমের দিক দিয়ে এন্ট্রি লেভেলের প্রায় সব ফোন থেকেই এগিয়ে রয়েছে Primo H6, কেননা এতে অ্যান্ড্রয়েডের আপডেটেড সংস্করণ অ্যান্ড্রয়েড ৬.০ মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহার করা হয়েছে। 
Primo H6 os
বিল্ড কোয়ালিটি ও ডিজাইনঃ বেশ নজরকাড়া ডিজাইনের প্রিমো H6 অনায়াসেই আপনার নজর কাড়বে। ফোনটির ৩.৫ মিলিমিটার অডিও পোর্টটি রয়েছে উপরের দিকে আর ইউএসবি পোর্ট রয়েছে নিচের দিকে। এর ভলিউম কী ও পাওয়ার কী উভয়ই একপার্শ্বে দেওয়া হয়েছে। 
Primo H6 hands-on
এই ফোনের সামনের দিকে উপরের অংশে আছে ফ্ল্যাশলাইট, ফ্রন্ট ক্যামেরা, প্রক্সিমিটি সেন্সর আর নোটিফিকেশন লাইট। এর স্পিকার, রেয়রা ক্যামেরা, এলইডি ফ্ল্যাশ রয়েছে পেছনের অংশে। এই ফোনের হোম/মেনু, অপশন ও ব্যাক – এই তিনটি বাটনই অনস্ক্রিন। এর হোম বাটনে দেওয়া হয়েছে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর। 
Primo H6 front
১৪৩.২ মিলিমিটার উচ্চতার এই ফোনটি প্রস্থে ৭১.২ মিলিমিটার আর এর পুরুত্ব মাত্র ৮.৪ মিলিমিটার। ব্যাটারিসহ এই ফোনের ওজন ১৪১ গ্রাম। 
Primo H6 front
ডিসপ্লে: এই ফোনে ৫ ইঞ্চির আইপিএস ডিসপ্লে ব্যবহার করা হয়েছে। এর ডিসপ্লের রেজ্যুলেশন হলো ১২৮০x৭২০ পিক্সেল আর পিক্সেল ডেনসিটি ২৯৪ পিপিআই। ফোনটির ডিসপ্লের নিরাপত্তায় গরিলা গ্লাস ৩ ব্যবহৃত হয়েছে। 
Primo H6 display
ইউজার ইন্টারফেস: ডিজাইন ও ডিসপ্লে নিয়ে তো কথা হলো, এবার চলুন এই ফোনটির ইউজার ইন্টারফেস দেখে নেওয়া যাক। ও হ্যাঁ, এতে কিন্তু আলাদা কোন অ্যাপ ড্রয়ার নেই। 
Primo H6 User Interface
সিপিউ ও চিপসেট:
১.০ গিগাহার্টজ গতির কোয়াডকোর প্রসেসরের Walton Primo H6 এ মিডিয়াটেকের MT6735 চিপসেট ও মালি-টি৭২০ জিপিউ ব্যবহৃত হয়েছে। 
Primo H6 cpu chipset
স্টোরেজ ও র‍্যাম:
Primo H6 এ ১৬ গিগাবাইট ইন্টারনাল মেমোরীর পাশাপাশি আছে ৬৪ গিগাবাইট পর্যন্ত এক্সটারনাল মাইক্রো-এসডি কার্ড ব্যবহারের সুবিধা। অন্যদিকে এই ফোনে থাকা ২ গিগাবাইট র‍্যামের মধ্যে বুট আপের পর অর্ধেকেরও বেশি ফাঁকা থাকে। 
Primo H6 hands-on memory
ক্যামেরা:
Primo H6 এ আছে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ১৩ মেগাপিক্সেল রেয়ার ক্যামেরা। এতে BSI সেন্সর থাকায় আপনি অনায়াসেই বেশ ভালো ছবি তুলতে পারবেন। আর সেইসাথে অটোফোকাস, টাচ ফোকাস, প্যানোরোমা, ফেস বিউটি প্রভৃতি ফিচার তো থাকছেই। 
Primo H6 এর ক্যামেরা ইন্টারফেস ও সেটিংস– 
Primo H6 camera settings
Primo H6 এর ক্যামেরায় তোলা ছবিঃ 
Primo H6 camera sample
Primo H6 camera sample 2
Primo H6 camera sample 3
Primo H6 camera sample 4
আপনি যদি সেলফি তুলতে ভালোবাসেন কিংবা ভিডিও কলিং করতে চান, সেক্ষেত্রে এই ফোনে পাচ্ছেন ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। আর এর ফ্রন্ট ক্যামেরাতেও এলইডি ফ্ল্যাশ থাকায় স্বল্প আলো কিংবা অন্ধকারেও ভাল সেলফি তুলতে পারবেন। 
Primo H6 front camera sample
মাল্টিমিডিয়া:
৩.৫ মিলিমিটারের অডিও জ্যাকসম্পন্ন এই ফোনের সাথে যে হেডফোনটি দেওয়া হয় তার সাউন্ড কোয়ালিটি মোটামুটি। 
Primo H6 video review
অডিও এর কথা তো গেলে, এবার আসা যাক ভিডিওর কথায়। কোয়াডকোর প্রসেসরের এই ফোনে ১০৮০ পি ফুল এইচডি ভিডিও কোন ধরণের ল্যাগ ছাড়াই দেখা গেছে।
গেমিং পারফরম্যান্স:
এন্ট্রি লেভেলের Primo H6 এর গেমিং পারফরম্যান্স মন্দ নয়। কোয়াডকোর প্রসেসর ও ২ গিগাবাইট র‍্যামবিশিষ্ট এই ফোনে বিভিন্ন ধরণের এইচডি গেম বেশ স্মুথলি খেলা যায়। এই ফোনে ক্ল্যাশ অফ ক্ল্যানস, ফিফা ১৬, পোকেমন গো, হিরোস অব ৭১, কিংডম রাশ প্রভৃতি জনপ্রিয় গেম কোন ধরণের ল্যাগিং ছাড়াই খেলা গেছে। 
Primo H6 hands-on gaming performance
Primo H6 gaming review
সেন্সর:
ওয়ালটনের এই ফোনে ফিঙ্গারপ্রিন্ট, অ্যাক্সিলেরোমিটার, লাইট, প্রক্সিমিটি প্রভৃতি সেন্সর বিদ্যমান। 
Primo H6 Color
সিম: 
ডুয়েল সিম সুবিধার Primo H6 এর উভয় স্লটেই থ্রিজি ও ফোরজি সুবিধা উপভোগ করা যায়। 
রং: 
স্পেস গ্রে ও গোল্ডেন - এই ২ রংয়ে বাজারে পাওয়া যাচ্ছে Primo H6 
Primo H6 Color
কানেক্টিভিটি:
এই ফোনে ফোরজি, ব্লুটুথ ৪.০, ওয়াইফাই, ওয়্যারলেস হটস্পট প্রভৃতি কানেক্টিভিটি সুবিধা রয়েছে। আরও আছে জিপিএস, এ-জিপিএস প্রভৃতি সুবিধা। 
ব্যাটারি:
৫ ইঞ্চি ডিসপ্লের Primo H6 এ ২৫০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ারের লিথিয়াম-পলিমার ব্যাটারি ব্যবহৃত হয়েছে। ফুল চার্জ দিয়ে টানা ২ ঘন্টা ৩০ মিনিট ইন্টারনেট ব্রাউজ ও এইচডি ভিডিও উপভোগ করার পর এর চার্জ ৫৭% এ নেমে এসেছিলো। তবে স্বাভাবিক ব্যবহারে অনায়াসেই একদিন চালিয়ে নেওয়া যায়। 
Primo H6 Battery
এতে থাকা পাওয়ার সেভার ফিচার ব্যবহার করে ব্যাটারি ব্যাকআপকে বাড়িয়েও নিতে পারবেন। 
Primo H6 Battery
বেঞ্চমার্ক: 
Primo H6 এর বেঞ্চমার্ক স্কোর যাচাইয়ের জন্য বেঞ্চমার্ক যাচাইয়ের জনপ্রিয় অ্যাপ AnTuTu বেছে নেওয়া হয়েছিলো, যেখানে এর স্কোর এসেছে ২৩৬৩৬; অন্যদিকে GeekBench এ এর স্কোর এসেছে ৩৯৬ (সিঙ্গেল-কোর) ও ১১৪৪ (মাল্টি-কোর) 
Primo H6 antutu benchmark
স্পেশাল ফিচার:
এই ফোনেবিভিন্ন স্পেশাল ফিচারের মধ্যে ফোন অ্যাসিস্ট, স্মার্ট অ্যাকশন, স্মার্ট জেশ্চার প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য। Primo H6 special feature USB Type-C
OTA আপডেট সুবিধা: 
এই ফোনে OTA বা Over The Air আপডেট সুবিধা রয়েছে, যার ফলে পিসির সাথে সংযুক্ত করা ছাড়াই এর সফটওয়্যার আপডেট করা যাবে। 
Primo H6 hands-on ota
মূল্য:
ক্রেতাদের সাধ্যের কথা বিবেচনা করে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, ২ গিগাবাইট র‍্যাম, ১৩ মেগাপিক্সেলের রেয়ার ক্যামেরা ও আকর্ষণীয় নানা ফিচারের Walton Primo H6 এর দাম ৯৪৯০ টাকা নির্ধারণ করেছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ।
Primo H6 এর ভালো লাগার দিকসমূহ-
  • মার্শম্যালো অপারেটিং সিস্টেম
  • ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর
  • BSI সেন্সরযুক্ত অটোফোকাস রেয়ার ক্যামেরা
  • এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা
  • ফোরজি সুবিধা
Primo H6 এর সীমাবদ্ধতা:
এন্ট্রি লেভেলের Primo H6 এ উল্লেখযোগ্য কোন সীমাবদ্ধতা নেই, তবে এর ক্লকস্পিড কমপক্ষে ১.৩ গিগাহার্টজ হলে আরও ভালো পারফরম্যান্স পাওয়া যেতো। 
Primo H6 review
চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত:
১০ হাজার টাকার মধ্যে ফিঙ্গারপ্রিন্ট সেন্সর, লেটেস্ট অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম ও ভালো ক্যামেরা পারফরম্যান্সযুক্ত ফোন কিনতে চাইলে Primo H6 সহজেই অন্যদের থেকে এগিয়ে থাকবে। বিশেষ করে এলইডি ফ্ল্যাশযুক্ত ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরার কথা আলাদাভাবে না বললেই নয়।