বদলে যাচ্ছে প্লে স্টোর

প্লে স্টোরে বড় ধরনের পরিবর্তন আনছে গুগল। অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ নির্মাতাদের ব্যবসা বাড়াতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে অ্যালফাবেটের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রতিষ্ঠানটি। কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার সহায়তায় গুগল প্লে স্টোরের সুপারিশগুলো আরও উন্নত করার পাশাপাশি অর্থ লেনদেনের বিভিন্ন প্ল্যাটফর্ম সুবিধা আসছে প্লে স্টোরে। পরিধানযোগ্য প্রযুক্তিপণ্য নির্মাতাপ্রতিষ্ঠান জবোন থেকে গুগলে আসা সামির সামাতের নেতৃত্বে এই পরিবর্তন আনার কাজ চলছে। 


বিশ্লেষকেরা বলছেন, গুগলের প্রচেষ্টা ঘুরে ফিরে প্রতিদ্বন্দ্বী অ্যাপলের মতোই হচ্ছে। গত বছরে অ্যাপল তাদের অ্যাপ স্টোরে নতুন অ্যাপের জন্য দ্রুত রিভিউ করার সুবিধা ও ডেভেলপারদের জন্য বাড়তি আয়ের সুযোগ করে দেয়। 

অ্যাপ নির্মাতারা অভিযোগ করছেন, অ্যাপ স্টোরগুলোতে এত বেশি অ্যাপ আছে, যাতে তাঁরা দাঁড়াতেই পারেন না। স্মার্টফোন ব্যবহারকারীদের অভিযোগ, অনেক অ্যাপ থাকায় তাঁরা অ্যাপ ডাউনলোড করতে গিয়ে ক্লান্ত। যেখানে এক অ্যাপ্লিকেশনেই সব পাওয়া যায়, সেখানে সব অ্যাপ ডাউনলোড প্রয়োজন নেই। 

সামাত বলেন, নিনটেনডোর মতো গেম নির্মাতা কোম্পানি অ্যান্ড্রয়েডের জন্য গেম তৈরি করায় গুগল প্লে স্টোরের লক্ষ্য থাকবে গেমে বেশি গুরুত্ব দেওয়া। 

প্লে স্টোরের পাশাপাশি পরিধানযোগ্য প্রযুক্তিপণ্য, ভারচ্যুয়াল রিয়েলিটি হেডসেট ও ক্রোমবুক ল্যাপটপের মতো পণ্যগুলোকে নিয়ে নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করছে গুগল। 

সামাত বলেন, ‘অ্যাপ নির্মাতাদের অধিক কম্পিউটিং ইকোসিস্টেমে ঢোকার সুবিধা দিতে একক এন্ট্রি পয়েন্ট দিতে পেরে আমরা রোমাঞ্চিত।’ 

অ্যাপ অ্যানি নামের মোবাইল তথ্য বিশ্লেষক প্রতিষ্ঠানের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের তৃতীয় প্রান্তিকে গুগল প্লে স্টোর থেকে ৭০ শতাংশ অ্যাপ ডাউনলোড হয়। আয়ের দিক থেকে ৬৫ শতাংশই যায় অ্যাপলের অ্যাপ স্টোরে।