স্মার্টসিটি গড়তে হ্যাকাথন

বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত হতে যাচ্ছে স্মার্টসিটি সমাধান নিয়ে হ্যাকাথন প্রোগ্রাম। প্রেনিউর ল্যাব ও গ্রামীণফোনের উদ্যোগ হোয়াইট বোর্ডের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানটি ১১ থেকে ১২ নভেম্বর গ্রামীণফোনের প্রধান কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হবে। ৩৬ ঘণ্টার এ স্মার্টসিটি হ্যাকাথনে তরুণেরা বিভিন্ন উদ্ভাবনী ধারণার মাধ্যমে ঢাকা শহরের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের চেষ্টা করবেন।


গ্রামীণফোন সূত্রে জানা গেছে, স্মার্টফোন হ্যাকাথনে ৪৩০টি দল নিবন্ধন করেছে। এর মধ্যে বাছাইকৃত ৩০টি দল মূল পর্বে অংশ নিচ্ছে। স্মার্টসিটি হ্যাকাথনের উদ্দেশ্য হচ্ছে, প্রতিভা শনাক্ত করা ও বিভিন্ন দিকনির্দেশনা দিয়ে তরুণদের ধারণাকে বাস্তবে রূপ দেওয়া।

প্রতিযোগিতায় বিজয়ীরা গ্রামীণফোনের কার্যালয় জিপি হাউসে তিন মাস কাজ করার সুযোগ, ছয় মাসের স্টার্টআপ মেন্টরশিপ ও ইনকিউবেশন সহযোগিতা। উদ্ভাবনী প্রযুক্তি ব্যবসায়িকভাবে সফল করতে মোট পাঁচ লাখ মার্কিন ডলার অনুদান পাওয়ার সম্ভাবনাও থাকবে। মূলত স্যানিটেশন, পরিষ্কার রাস্তাঘাট ও সবুজ পরিবেশের ওপর ভিত্তি করে ক্লিন সিটি, স্বাস্থ্যকর জীবনযাপন ইফিসিয়েন্ট লিভিং, শহর ব্যবস্থাপনা আরবান ম্যানেজমেন্ট, শহরের বস্তিবাসীর জন্য সুষ্ঠু ও উন্নত জীবনব্যবস্থা বেটার স্লাসন, ট্রাফিক ও ট্রান্সপোর্ট ব্যবস্থাপনা ট্রাফিক অ্যান্ড ট্রান্সপোর্ট, নারীদের জন্য নিরাপদ শহর সিটি ফর উইমেন, লাইফস্টাইল, সহজ যোগাযোগব্যবস্থা টাউন হল, শিশুদের বেড়ে ওঠার জন্য সুন্দর ও নির্মল শহর ফিউচার সিটিজেন এবং গতানুগতিক চিন্তা থেকে বেরিয়ে এসে ভিন্নধর্মী উদ্ভাবন ওপেন আইডিয়াজ নিয়ে কাজ করবে অংশগ্রহণকারী দলগুলো।

এ নিয়ে গ্রামীণফোনের প্রধান বিপণন কর্মকর্তা ইয়াসির আজমান বলেন, বাংলাদেশে প্রথমবারের এই আয়োজন তরুণ প্রযুক্তিবিদ ও উদ্যোক্তাদের অনুপ্রাণিত করবে। এই হ্যাকাথনের মাধ্যমে মেধাবী তরুণেরা ঢাকা শহরকে আরও নাগরিকবান্ধব করে তুলতে নানা ডিজিটাল সমাধান নিয়ে আসবেন।