অ্যাসোসিও পুরস্কার পেল আইসিটি বিভাগ ও স্মার্ট টেকনোলজিস

২০১৬ সালের জন্য এশিয়া-ওশেনিয়া অঞ্চলের তথ্যপ্রযুক্তি খাতের সংগঠনগুলোর সংস্থা অ্যাসোসিওর দেওয়া পুরস্কারের দুটি এল বাংলাদেশের ঘরে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনে অ্যাসোসিও সামিট ২০১৬-এর নৈশভোজে তিনটি বিভাগে অ্যাসোসিও পুরস্কার দেওয়া হয়। সরকারের তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি (আইসিটি) বিভাগ পেয়েছে অ্যাসোসিও ডিজিটাল সরকার পুরস্কার। আউটস্ট্যান্ডিং আইসিটি কোম্পানি হিসেবে বাংলাদেশের স্মার্ট টেকনোলজিস (বিডি) লিমিটেড পুরস্কার পেয়েছে।


আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্মেদ এই পুরস্কার গ্রহণ করেন। এ সময় অনুষ্ঠানে মিয়ানমারে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মাহমুদ সাইফুর রহমান উপস্থিত ছিলেন। স্মার্ট টেকনোলজিসের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. জহিরুল ইসলাম আউটস্ট্যান্ডিং আইসিটি কোম্পানির পুরস্কার গ্রহণ করেন। এবারে তিনটি বিভাগে ২৪টি পুরস্কার দেওয়া হয়। আউটস্ট্যান্ডিং আইসিটি কোম্পানি বিভাগে ১১টি, আউটস্ট্যান্ডিং ইউজার অর্গানাইজেশন বিভাগে ৬টি এবং ডিজিটাল সরকার বিভাগে ৭টি পুরস্কার দেওয়া হয়েছে। পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে মিয়ানমারের পরিবহন ও যোগাযোগমন্ত্রী উ থান জেমা বক্তৃতা করেন।

বাংলাদেশ ও মিয়ানমার আইসিটিতে একসঙ্গে কাজ করতে পারে
বাংলাদেশ ও মিয়ানমার তথ্যপ্রযুক্তির নানা খাতে ভবিষ্যতে একসঙ্গে কাজ করতে পারে। অ্যাসোসিও পুরস্কার প্রদানের আগে এক বৈঠকে উ থান জেমা ও জুনাইদ আহ্মেদ এ আশা ব্যক্ত করেন। জুনাইদ আহ্মেদ ডিজিটাল বাংলাদেশের নানা কার্যক্রমের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ২০১৭ সাল নাগাদ বাংলাদেশ নিজস্ব কৃত্রিম উপগ্রহ ব্যবহার করবে। এ ছাড়া তিনি শিক্ষা, স্বাস্থ্য, সরকারি সেবা, ই-গভর্নেন্স ইত্যাদি ক্ষেত্রে ডিজিটাল প্রযুক্তি ব্যবহারের কথাও তুলে ধরেন। মিয়ানমার চাইলে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে বাংলাদেশের বিভিন্ন অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে পারবে বলে উল্লেখ করেন প্রতিমন্ত্রী।

উ থান জেমার কথাতেও ছিল একই সুর। তিনি জানান মিয়ানমার ই-গভর্নমেন্ট মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। দ্রুত বিভিন্ন অবকাঠামো তৈরি করা হচ্ছে। তাঁরা দুজনই সাইবার অপরাধ নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করেন। ভবিষ্যতে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার তথ্যপ্রযুক্তি খাতে জ্ঞান বিনিময় এবং এ খাতের উন্নয়নে একসঙ্গে কাজ করবে বলে দুই মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন। বৈঠকে মিয়ানমার কম্পিউটার ফেডারেশনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির সভাপতি আলী আশফাক, বেসিসের সাবেক সভাপতি রফিকুল ইসলাম, সহসভাপতি ইউসুফ আলী, বিসিএসের মহাসচিব সুব্রত সরকার, পরিচালক শাহিদ-উল মুনীরসহ অনেকে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।