মোবাইলে হার্ডওয়্যার তৈরিতে ৩৮ ভার্সিটিতে ল্যাব তৈরি হচ্ছে

38-university-labs-are-being-made-to-create-mobile-hardware 


মোবাইল ফোন, ট্যাবলেটের আমদানি-নির্ভরতা কমিয়ে দেশে উৎপাদন সক্ষমতা তৈরির লক্ষ্যে দেশের ৩৮ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত (ভি এল এস আই) ল্যাব তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিন দিনব্যাপী স্মার্টফোন ও ট্যাব মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।


তিনি বলেন, আমাদের দেশের পৌনে তিন কোটি মানুষ স্মার্টফোন ব্যবহার কারে। ২০২০ সাল নাগাদ তা পাঁচ কোটিতে পৌছাবে। যার ফলে দেশে স্মার্টফোনের চাহিদা বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমন অবস্থায় স্মার্টফোন আমদানি না করে দেশে তৈরির লক্ষ্যে একটি প্লাটফর্মে আইটি ইকোসিস্টেম তৈরির কাজ চলছে।

ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা ছয় কোটি ছাড়িয়েছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রি বলেন, অধিকাংশ মানুষ মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহার করছে। তবে এর জন্য দরকার নিজেদের কনটেন্ট। এছাড়া ইতোমধ্যে তথ্যপ্রযুক্তি বিভাগ মোবাইল অ্যাপস ও কনটেন্ট তৈরির প্রকল্প হাতে নিয়েছে। তারা দেশেই হার্ডওয়্যার তৈরি করবে। দেশেই মোবাইলের চিপ তৈরি করা হবে।

তথ্য প্রযুক্তির অগ্রগতিতে তরুণদের ভূমিকা উল্লেখ করে জুনায়েদ আহমেদ পলক বলেন, আমাদের দেশের তরুণদের মেধা আছে। তাদের প্রয়োজন একটি প্লাটফর্মের। আর আমরা তা তৈরির কাজ করছি।

শেখ হাসিনার উদ্যোগের কারণে দেশ আজ তথ্য প্রযুক্তিতে অগ্রগতি লাভ করেছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৯৯৬ সালে ক্ষমতা নেওয়ার পর সিটিসেলের মনোপলি ভেঙে দেওয়ার পর থেকেই দেশে মোবাইলের বিপ্লব ঘটেছে। মোবাইল ফোনের সহজলভ্যতা ও কমদাম, ইন্টারনেটের সহজলভ্যতা এবং সরকারি ও বেসরকারি সেবার মোবাইল কেন্দ্রিক সার্ভিসের ফলে দেশে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর সংখ্যা বেড়েছে উল্লেখ করে পলক বলেন, সরকার সবার হাতে হাতে মোবাইল ফোন কেনার জন্য টাকা দেয় না। সরকার একটি পলিসি গ্রহন করে, আর এই পলিসিই বিপ্লব ঘটায়। এসময় তিনি তথ্য প্রযুক্তিতে উন্নতি সাধনে সরকারের পরিকল্পনা তুলে ধরেন।

তিনি বলেন, বর্তমানে মাধ্যমিক পর্যায় থেকে আইটি শিক্ষা শুরু করা হয়েছে। এছাড়া ১ লাখ ৭০ হাজার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ মোট ২ লাখ সরকারি প্রতিষ্ঠানে ইন্টারনেট সংযোগ দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান বলেন, মোবাইল ফোনের কারনেই আজ বাংলাদেশ এতদূর এগিয়েছে।। এক সময় ডিজিটাল বাংলাদেশের কথা বললে মানুষ হাসি-ঠাট্টা করতো। কিন্তু ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন আর সপ্ন নয়।

অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) সভাপতি মোস্তাফা জব্বার, বাংলাদেশ ওপেন সোর্স নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক মুনির হাসান, গ্লোবাল ব্র্যান্ড লিমিটেডের চেয়ারম্যান আব্দুল ফাত্তাহ, স্যামসাং ইলেকট্রনিক্স বাংলাদেশের জেনারেল ম্যানেজার ইয়াং উ লি, হুয়াওয়ের হেড অব মার্কেটিং মাশরুর হাসান মিম বক্তব্য রাখেন।

এছাড়া সিম্ফনি মোবাইল মার্কেটিং বিভাগের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার মো. আসাদুজ্জামান, অপ্পো বাংলাদেশ কমিউনিকেশন ইকুইপমেন্ট কো. লিমিটেডের হেড অব মার্কেটিং ব্রুস লি, লিনেক্স মোবাইলের এজিএম (সেলস) নেছারউদ্দিন, গ্লোবাল ব্র্যান্ডের চেয়ারম্যান আব্দুল ফাত্তাহ ও এক্সপো মেকারের হেড অব অপারেশনস নাহিদ হাসনাইন সিদ্দিকী তাদের পন্য সম্পর্কে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন।

মোবাইলে হার্ডওয়্যার তৈরিতে ৩৮ ভার্সিটিতে ল্যাব তৈরি হচ্ছে মোবাইল ফোন, ট্যাবলেটের আমদানি-নির্ভরতা কমিয়ে দেশে উৎপাদন সক্ষমতা তৈরির লক্ষ্যে দেশের ৩৮ বিশ্ববিদ্যালয়ে বিশেষায়িত (ভি এল এস আই) ল্যাব তৈরি করা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।