সহজে ধূমপান ছাড়ার ৭ উপায়

7-easy-ways-to-quit-smoking 


আপনার ধূমপান নিয়ে ভীষণ বিরক্ত আশেপাশের মানুষ। নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, এবং সেটি বুঝতেও পারছেন। কিন্তু কিচ্ছু করতে পারছেন না। ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা অনেকবার করেও আবার ধরেছেন সিগারেট নামক মরণ নেশা। কোনও একটি নেশায় অভ্যস্ত হয়ে গেলে সেটি ছাড়তে অনেক কষ্ট হয়। তবে এই নেশাকে নিয়ন্ত্রণের জন্য গবেষকরাও কম গবেষণা করেননি। সিগারেটের প্যাকেটে ক্ষতিগ্রস্ত রোগীর ভয়াবহ ছবি দেওয়া থেকে শুরু করে, নানা সতর্ক বাণীও লেখা আছে। তবু ধূমপান ছাড়া কঠিন। তারপরেও যারা ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন তাদের জন্য কিছু পরামর্শ। 
) হঠাৎ করে একবারে ছাড়ার চেষ্টা করবেন না। শরীর নিকোটিনে অভ্যস্ত থাকার ফলে একটু সময় লাগে এই অভ্যাস মুক্ত হতে। সাধারণত দেখা যায়, শতকরা ৯০ ভাগ লোক ধূমপান ছাড়ার জন্য হঠাৎ করেই ধূমপান বন্ধ করে দেন। এভাবে ৫ থেকে ৭ শতাংশ লোক সফল হন। বাকিরা হতাশ হয়ে পুনরায় ধূমপান শুরু করেন। ধূমপান ত্যাগের সহজ উপায় হচ্ছে একটু সময় নেওয়া এবং সকলের সাহায্য নিয়ে ধূমপান ত্যাগের চেষ্টা।

২) আপনি কেন ধূমপান ছাড়তে চান সে বিষয়টি নির্ধারণ করুন। শুধুমাত্র ছাড়তে হবে বলে ছাড়ছেন সেটা পর্যাপ্ত নয়। ধূমপান ছাড়ার কাল অনেক দীর্ঘ এবং যেকোনও সময় আবার আপনি ধূমপান শুরু করতে পারেন। তাই নিজের সংকল্পে অটুট থাকতে আপনার ধূমপান ছাড়ার কারণ অনেক সাহায্য করবে। ধূমপান ত্যাগের সহজ উপায় জানতে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

৩) তামাকের নিকোটিনের পরিবর্তে অন্য কোনও নিকোটিন গ্রহণ করুন। ধূমপান ছেড়ে দেওয়ার সময় মস্তিস্ক নিকোটিনের অভাবে ভোগে। তাই ধূমপান ছাড়ার সময় সাময়িকভাবে নিকোটিন গাম, প্যাচ, ইনহেলার, স্প্রে এবং লজেন্স গ্রহণ করা যেতে পারে।

৪) নিয়মিত শরীর চর্চার বা ব্যায়াম করলে ধূমপানের প্রতি চাহিদা কমে যায়। ধূমপান ছেড়ে দিতে হাঁটাহাঁটি বা অন্যান্য ব্যায়াম করা ধূমপান ত্যাগের সহজ উপায়।

৫) শাকসবজি এবং ফল খাওয়ার পরিমাণ বাড়িয়ে দিন। ধূমপানের সময় আপনার ডায়েট চললে সেটি এড়িয়ে চলুন কিছুদিনের জন্য।

৬) পরিচ্ছন্ন থাকুন। আপনি নিজে পরিচ্ছন্ন ও ঘরবাড়ি পরিষ্কার রাখুন। ঘরের কোনায় বা নিজের পোশাকের কোথাও সিগারেটের গন্ধ পেলে আবার ধূমপানের ইচ্ছা জাগতে পারে। তাই সব পরিস্কার করে সাবান পানিতে ধুয়ে নিলেই হয়।

৭) যেসব কর্মকাণ্ড আপনার ধূমপানের ইচ্ছা জাগায় সেগুলো থেকে দূরে থাকুন। মনে রাখবেন প্রথম কয়েক দিন খুবই কষ্টের। হতাশ বা নিরাশ হওয়া যাবেনা।

আপনার ধূমপান নিয়ে ভীষণ বিরক্ত আশেপাশের মানুষ। নিজেও ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, এবং সেটি বুঝতেও পারছেন। কিন্তু কিচ্ছু করতে পারছেন না। ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা অনেকবার করেও আবার ধরেছেন সিগারেট নামক মরণ নেশা। কোনও একটি নেশায় অভ্যস্ত হয়ে গেলে সেটি ছাড়তে অনেক কষ্ট হয়। তবে এই নেশাকে নিয়ন্ত্রণের জন্য গবেষকরাও কম গবেষণা করেননি। সিগারেটের প্যাকেটে ক্ষতিগ্রস্ত রোগীর ভয়াবহ ছবি দেওয়া থেকে শুরু করে, নানা সতর্ক বাণীও লেখা আছে। তবু ধূমপান ছাড়া কঠিন। তারপরেও যারা ছেড়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন তাদের জন্য কিছু পরামর্শ।