প্রবাসীর উদ্যোগে সবার জন্য স্মার্ট চিকিৎসা অ্যাপ

App-Smart-Schools-initiative-for-all-foreigners 

প্রবাসে থেকেও কিছু মানুষ নিরন্তর দেশের কল্যাণে কাজ করে চলেন, কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসক ডা. আসিত বর্দ্ধন তারই আলোকিত উদাহরণ। তাঁর দুর্নিবার চিন্তা, মেধা, শ্রম, বিনিয়োগ- চিকিৎসা সেবাকেন্দ্রিক প্রযুক্তি। বাংলাদেশের তরুণ মেধাশক্তিকে এগিয়ে নিতে সাথে টিম হিসেবে নিলেন বাংলাদেশে অবস্থিত কিছু তরুণ সফটওয়্যার ডেভেলপারকে। তাঁদের লক্ষ্য চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রিক সফটওয়্যার তৈরি করে বাংলাদেশে ও বিদেশে বাজারজাত করা। সম্প্রতি অজস্র স্বপ্ন নিয়ে গুগল প্লেস্টোরে উন্মোচিত করলেন তাঁদের প্রথম অ্যাপ; তাঁদের টানা তিন বছরের পরিশ্রমের ফসল : BDEMR পেশেন্টঅ্যাপ।

EMR হচ্ছে ইলেক্ট্রনিক মেডিকেল রেকর্ড যেখানে রোগীর চিকিৎসা তথ্য চিকিৎসকের জন্য সংরক্ষিত থাকে। BDEMR পেশেন্ট অ্যাপটি আপাতত অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম-চালিত স্মার্টফোন বা ট্যাবে ব্যবহার করা যাবে। এই অ্যাপের মাধ্যমে যে কোন রোগী তার সমস্ত মেডিকেল তথ্য ডিজিটালভাবে সংরক্ষণ করতে পারবেন। নিয়মিত হালনাগাদ রাখতে পারবেন প্রতিদিনের রক্তচাপ, রক্তে শর্করার পরিমাণ, নাড়ির গতি, ওজন, উচ্চতা , বিএমআই (বডিমাসইনডেক্স), ইত্যাদি।

ভেবে দেখুন, সেই লিখে রাখা তথ্য রোগীর চিকিৎসক তার চেম্বারে বসেই দেখতে পাবেন অন্য একটি অ্যাপের মাধ্যমে । ধরুন, চিকিৎসক প্রেসস্ক্রিপশন বা কোনো পরীক্ষা পরামর্শ দিলেন, তা রোগীর অ্যাপে স্বয়ংক্রিয়ভাবে এসে হাজির হবে। ক্লিনিক বা হাসপাতালে গেলেন কোন পরীক্ষা করাতে, পরীক্ষার রিপোর্ট তৈরি হলেই তা পৌঁছে যাবে রোগীর বা চিকিৎসকের কাছে। ফলে চিকিৎসা সেবাই পৌঁছে যাবে ঘরে ঘরে এই অ্যাপের মাধ্যমে।

দূরদূরান্ত থেকে যাতায়াত,  রাস্তার জ্যাম অথবা চিকিৎসকের চেম্বারে বসে থাকার যন্ত্রণা পোহাতে হবেনা; সাথে বাঁচবে মূল্যবান শ্রম আর সময়। এই পুরো পদ্ধতি কাজ করবে সার্ভারের মাধ্যমে। রোগীর বা চিকিৎসকের তৈরি করা ফাইল কম্পিউটার বা ফোনের বদলে জমা থাকবে ইন্টারনেটের মাধ্যমে যুক্ত “ক্লাউডে। এই তথ্য নিরাপদভাবে “ক্লাউডে”জমা থাকে যেন প্রয়োজনে যে কোন সময় রোগী বা তার অনুমোদিত চিকিৎসক সেই তথ্য দেখতে পান।  রোগীর একাউন্ট পাসওয়ার্ড দ্বারা সংরক্ষিত থাকে এবং পুরো ক্লাউড সেবা হচ্ছে গুগল নিয়ন্ত্রিত ফলে সাইবার সিকিউর ।  এছাড়া রোগী নির্দিষ্ট ফি দিয়ে এসএমএস বার্তা সেবা নিতে পারেন। অপরিচিত কেউ যদি রোগীর ফাইল খুলে, অথবা পরীক্ষার ফলাফল তৈরি হওয়ার সাথে সাথে জানার জন্য এইএসএম সুবিধা।


আপনি হয়তো দারুন ব্যস্ত, ওষুধ কয়বার নিতে হবে ভুলে যান, অথবা ওষুধ খাবার কথা মনে নেই, প্রত্যেকবার আপনি ওষুধ নিবেন আর এই অ্যাপে লিখে রাখবেন। অ্যাপটি খুললেই যদি কোনো ওষুধ বাকি থাকে অ্যাপের রিমাইন্ডার আপনাকে অবহিত করে দেবে। এছাড়া রোগীর পুরনো তথ্য ও পরীক্ষার রিপোর্ট ও রোগীর প্রোফাইলে যুক্ত করা যাবে। রোগীর হিস্টরি কাল তথ্য দিয়ে দেখে নিন নির্দিষ্ট পরীক্ষার ট্রেণ্ড । আরো সুবিধা রয়েছে রোগীর ফটো বা ভিডিও সংযুক্ত করার। এই অ্যাপে আছে পেশেন্ট নোট ফিচার (বার্তাবিনিময়) – যার মাধ্যমে রোগী ঘরে বসেই তার অসুখের বিবরণ লিখে রাখতে পারবেন। চিকিৎসক তা অগ্রিম দেখতে পারবেন রোগী আসার আগেই। চিকিৎসক যদি তাঁর উত্তরে কোন নোট লেখেন রোগীও তা দেখতে পাবেন। যাদের স্মার্টফোন নেই তারাও নিতে পারে এই অ্যাপের সুবিধা । আপনার কম্পিউটার দিয়ে সার্চ করুন ওয়েবসাইট bdemr.com ও patient.bdemr.com ।
এই ওয়েব সাইটে যেয়ে আপনার তথ্য আপলোড করে নিন; চিকিৎসক তাঁর ফোনে অ্যাপের মাধ্যমে আপনার এই তথ্য নিমেষে দেখতে পাবেন ।

এই পেশেন্ট অ্যাপের প্রধান সুবিধা, এক জায়গায় এক নিমেষে রোগীর সমস্ত তথ্য; যার ফলে চিকিৎসককে হাজারো কাগজপত্র অথবা কম্পিউটার ঘাঁটতে হবে না,  চিকিৎসক বাঁচাতে পারবেন মূল্যবান সময়,  চিকিৎসা সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারবেন সহজভাবে । বাংলাদেশ এবং সারা বিশ্বের টেলিমেডিসিনের ক্ষেত্রে দারুণ কার্যকরী ভূমিকা নিতে পারে এই অ্যাপ। চিকিৎসাসেবায় ডিজিটাল বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে আমাদের সরকারের স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয় আর তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তিবিভাগ এই অ্যাপের সুবিধা নিতে পারে; বাড়িয়ে দিতে সহযোগিতার কার্যকরী হাত। দেশের সবহাসপাতাল ও ক্লিনিক কর্তৃপক্ষ, প্রতিষ্ঠিত ও ইন্টার্নি চিকিৎসক, ও মেডিকেল কলেজের ছাত্ররা – সবাই এই অ্যাপের কার্যকারিতা মূল্যায়ন করে দেখতে পারেন, সেই সাথে তাঁদের রোগীকে ব্যবহার করার জন্য পরামর্শ দিতে পারেন।

এই অ্যাপটি ইতিমধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কনফারেন্সে উপস্থাপিত ও ব্যাপক প্রশংসিত হয়েছে। বাংলাদেশের চিকিৎসাসেবায় এই অ্যাপটি সফল হলে বিদেশের বাজারেও বিপণনের দ্বার খুলে যাবে।

আসুন, আমরা সবাই মিলে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেই, তাঁদের স্বপ্নকে এগিয়ে নিতে সাহায্য করি; আজই ডাউনলোড করুন, ব্যবহার করুন, সবার সাথে শেয়ার করুন ! সম্পূর্ণ বিনামূল্যে অ্যাপটি পাওয়া যাবে গুগল প্লেস্টোরে; সার্চদিন BDEMR আর পরীক্ষা করুন এই স্মার্ট চিকিৎসা অ্যাপটি।
কৃতজ্ঞতা: ডা. আসিতবর্দ্ধন ,ভ্যাঙ্কুভার, কানাডা

প্রবাসে থেকেও কিছু মানুষ নিরন্তর দেশের কল্যাণে কাজ করে চলেন, কানাডা প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসক ডা. আসিত বর্দ্ধন তারই আলোকিত উদাহরণ। তাঁর দুর্নিবার চিন্তা, মেধা, শ্রম, বিনিয়োগ- চিকিৎসা সেবাকেন্দ্রিক প্রযুক্তি। বাংলাদেশের তরুণ মেধাশক্তিকে এগিয়ে নিতে সাথে টিম হিসেবে নিলেন বাংলাদেশে অবস্থিত কিছু তরুণ সফটওয়্যার ডেভেলপারকে। তাঁদের লক্ষ্য চিকিৎসাসেবা কেন্দ্রিক সফটওয়্যার তৈরি করে বাংলাদেশে ও বিদেশে বাজারজাত করা। সম্প্রতি অজস্র স্বপ্ন নিয়ে গুগল প্লেস্টোরে উন্মোচিত করলেন তাঁদের প্রথম অ্যাপ; তাঁদের টানা তিন বছরের পরিশ্রমের ফসল : BDEMR পেশেন্টঅ্যাপ।