তৈরি হলো তাপমাত্রা সংবেদনশীল কৃত্রিম ত্বক

Is-made-of-temperature-sensitive-artificial-skin 



ক্যালটেক (ক্যালিফোর্নিয়া ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলোজি) এবং ইটিএইচ জুরিখ (সুইজারল্যান্ডের জুরিখ এ অবস্থিত সায়েন্স, টেকনোলোজি, ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ম্যাথম্যাটিকস ইউনিভার্সিটি) এর প্রকৌশলী এবং বিজ্ঞানীগণ এমন একটি নতুন বস্তু তৈরি করেন যা তাপমাত্রার পরিবর্তন অনুভব করতে পারে। এটি কৃত্রিম অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের তৈরিতে ব্যবহার করা যেতে পারে যা সংবেদনশীল কৃত্রিম ত্বক হিসেবে কাজ করতে পারে।


সায়েন্স রোবোটিক নামক সাময়িকীতে বলা হয় এই উপাদানটি তৈরিতে এমন প্রক্রিয়া  ব্যবহার করা হয় যা সাপের অঙ্গের সাথে সাদৃশ্যপূর্ণ। গবেষকেরা একটি কৃত্রিম কাঠ নিয়ে গবেষণা করার সময় দেখেন পেকটিন অণু  তাপমাত্রার পরিবর্তনের সময় বৈদ্যুতিক স্পন্দন তৈরিতে ভূমিকা রাখে।

গবেষক দলটি পানি ও পেকটিনের পাতলা, স্বচ্ছ ও নমনীয় ঝিল্লি তৈরি  করেন। এই উপাদানটি এমন পাতলা যা মাত্র ২০ মাইক্রোন (একটি চুলের ব্যাসের সমান) এবং এমন সংবেদনশীল যা ১০ থেকে ৫৫ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড তাপমাত্রায় পরিবর্তন ধরতে পারে।

ক্যালটেক এর মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এবং অ্যাপ্লাইড ফিজিক্সের অধ্যাপক চিয়ারা দারাইয়ো একটি বিবৃতিতে জানান, ‘পেকটিন খাদ্যশিল্পে আঠালো দ্রব্য হিসেবে  ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। যেমন জ্যাম তৈরিতে ব্যবহৃত হয় এটি। তাই এটি পাওয়া খুব  সহজ এবং সুলভ’। 

পেকটিন এর অণু দীর্ঘ এবং দুর্বলভাবে একের সাথে অপরে শৃঙ্খলাবদ্ধ অবস্থায় থাকে,  এতে ক্যালসিয়ামের আয়ন থাকে। তাপমাত্রা বৃদ্ধি পেলে এদের চেইন ভাঙ্গতে থাকে এবং আয়নগুলো মুক্ত হয়ে নড়াচড়া করে। মুক্ত আয়নের আধিক্য অথবা তাদের নতুন পাওয়া স্বাধীনতা বিজ্ঞানীদের মতে উভয়েই উপাদানটির বৈদ্যুতিক বাঁধাকে কমায়।

উপাদানটির পরিবর্তন শনাক্ত করা সম্ভব তাপমাত্রার সূক্ষ্ম পরিবর্তন যেমন ০.০১ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেডে। এটি পূর্বের উন্নত ইলেকট্রনিক স্কিনের চেয়ে ১০ গুণ বেশি সংবেদনশীল এবং ১০০ গুণ বেশি প্রতিক্রিয়াশীল।

এটি শুধু কৃত্রিম ত্বক হিসেবেই নয় ক্ষত নিরাময়ের ব্যান্ডেজের ক্ষেত্রেও ব্যবহার করা যায়। যেহেতু সংক্রমণের কারণে শরীরের তাপমাত্রা বৃদ্ধি পায়, তাই এটি ব্যবহার করা যায় চিকিৎসকদের জন্য একটি সংকেত হিসেবে যে, ক্ষতের উপর কিছু একটা প্রভাব ফেলছে। 

গবেষকেরা এখনো চেষ্টা করছেন উচ্চমাত্রার তাপমাত্রা পরিবর্তনের ক্ষেত্রে একে সংবেদনশীল করা যায় কিনা তা দেখার জন্য। শুধুমাত্র মানুষের শরীরের জন্য ব্যবহার করা নয় বরং শিল্পক্ষেত্রে, ইলেকট্রনিক্স এমনকি রোবট সায়েন্সেও ব্যবহার করা যেতে পারে এই কৃত্রিম ত্বক।

ক্যালটেক (ক্যালিফোর্নিয়া ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলোজি) এবং ইটিএইচ জুরিখ (সুইজারল্যান্ডের জুরিখ এ অবস্থিত সায়েন্স, টেকনোলোজি, ইঞ্জিনিয়ারিং এবং ম্যাথম্যাটিকস ইউনিভার্সিটি) এর প্রকৌশলী এবং বিজ্ঞানীগণ এমন একটি নতুন বস্তু তৈরি করেন যা তাপমাত্রার পরিবর্তন অনুভব করতে পারে। এটি কৃত্রিম অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের তৈরিতে ব্যবহার করা যেতে পারে যা সংবেদনশীল কৃত্রিম ত্বক হিসেবে কাজ করতে পারে।