ক্রিকেট ডিজিটাল দুনিয়ায় অন্যতম অ্যাপ ‘ম্যাচাও’

One-of-the-app-s-digital-world-matcher 


২০১৬ সালের জুলাই মাসে প্রাথমিক যাত্রা শুরু করে ম্যাচাও অ্যাপ। এটি হচ্ছে ম্যাসেঞ্জার বট। যা ফেসবুকে বিশ্বে প্রথম ‘স্পোর্টস স্টার্ট প্রোগ্রাম’।


২০১৬ সালের ডিসেম্বর ১৬ তারিখ ফেসবুক ম্যাচাও কে আমন্ত্রণ জানায় ‘এফবি স্টার্ট’ প্রোগামে আসার জন্য। ম্যাচাও ম্যাসেঞ্জারে কোন ক্রিকেট খেলার শুধু বেসিক ইনফরমেশন টাইপ করলেই অটোমেটিক্যালি একের পর এক ইনফরমেশন পাঠাতে থাকেবে ওই খেলা সম্পর্কে।  যার ফলে খুব সহজে বল টু বল হিসেবে চোখের সামনে ভাসতে থাকবে। এই কারণে অল্পসময়ে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে ম্যাচাও।  ফেসবুকে ম্যাসেঞ্জারে গিয়ে সার্চ করুণ ম্যাচাও লিখে অথবা এই লিঙ্কে কিল্ক ম্যাচাও করলেই উপভোগ করতে পারবেন অ্যাপটির যাবতীয় সুবিধা।

সল্যুশন ৩৬০ এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ আসিফ ইকবাল ২ বছর অক্লান্ত পরিশ্রম করে ফেসবুক, টুইটার, ইউটিউবে আকর্ষনীয় কন্টেন যোগ করতে থাকে যা রীতিমত সাড়া ফেলে দেয় ক্রিকেট ডিজিটাল দুনিয়ায়। এশিয়া কাপ ফাইনালের আগে ক্রিকেট প্রেমীদের প্রোফাইল পিকচার চেঞ্জ করে টাইগাদের সার্পোট করার অনবদ্য কাজটি করে সলুসন ৩৬০|

২০১৬ সালের জুলাই মাসে প্রাথমিক যাত্রা শুরু করে ম্যাচাও অ্যাপ। এটি হচ্ছে ম্যাসেঞ্জার বট। যা ফেসবুকে বিশ্বে প্রথম ‘স্পোর্টস স্টার্ট প্রোগ্রাম’।