স্যামসাং প্রধানকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্তের প্রভাব শেয়ার বাজারে

Samsung-s-decision-to-effect-the-arrest-of-the-head-of-the-stock-market 



রাজনৈতিক দুর্নীতি, ঘুষ কর্মকাণ্ড এবং জালিয়াতের অভিযোগে স্যামসাং প্রধান লি জেই-ইয়ংকে  গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত। আর এতেই নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে স্যামসাংয়ের শেয়ারে।


বুধবার ইয়ং এর দ্বিতীয় দফা শুনানির দিন স্যামসাংয়ের শেয়ার মূল্য কমেছে ১.৩ শতাংশ। এদিন প্রথম দিকে প্রতিটি শেয়ার বিক্রি হয় ১৬২৪.৩২ মার্কিন ডলারে। এটিই ২৩ জানুয়ারির পরে স্যামসাংয়ের সর্বনিম্ন শেয়ার মূল্য।

সম্প্রতি ঘুষ কর্মকাণ্ডের মামলায় দ্বিতীয়বার জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় জুনিয়র লিকে। শুনানির ওপর ভিত্তি করে লির বিরুদ্ধে গ্রেফতারি  পরোয়ানা জারি করা হবে কিনা সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়ার আশা করছে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা।

চলতি বছরের ৯ জানুয়ারি স্যামসাংয়ের চেয়ারম্যান এবং প্রেসিডেন্টকে তদন্তের স্বার্থে প্রশ্ন করতে প্রথমবার ডেকে নেয় আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী। ২০১৫ সালে স্যামসাংয়ের মূল প্রতিষ্ঠান এবং নির্মাণ ব্যবসার ৮০০ কোটি মার্কিন ডলারের একত্রীকরণে প্রতিষ্ঠানটি সরকারের সহায়তা নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে প্রতিষ্ঠানটির বিরুদ্ধে।

২০১৪ সালে স্যামসাং গ্রুপের প্রধান লি কুন-হি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দায়িত্ব পরিচালনায় অক্ষম হয়ে পড়লে তার ছেলে ৪৮ বছর বয়সী লি কার্যত স্যামসাং গ্রুপের প্রধান হিসেবে কাজ শুরু করেন।

রাজনৈতিক দুর্নীতি, ঘুষ কর্মকাণ্ড এবং জালিয়াতের অভিযোগে স্যামসাং প্রধান লি জেই-ইয়ংকে গ্রেফতারের সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে দক্ষিণ কোরিয়ার আদালত। আর এতেই নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে স্যামসাংয়ের শেয়ারে।