স্মার্টফোনের বাজারে ব্ল্যাকবেরির করুণ দশা

The-pathetic-state-of-the-smartphone-market-BlackBerry 



সময়ের সঙ্গে অনেক কিছুই বদলে যায়। আজকের দিনে বিক্রিতে শীর্ষস্থানে থাকা কোনও পণ্য কালকেই চলে যায় বিক্রির তালিকার সর্বনিম্ন স্থানে। সেখানে হয়তো স্থান করে নেয় নতুন কোনও পণ্য। ঠিক এমনটিই ঘটেছে ব্ল্যাকবেরির বেলায়। এক সময়ে বাজারে রাজত্ব করা ব্ল্যাকবেরির স্থান এখন স্মার্টফোনের বাজারে নেই বললেই চলে। বাজারের হিসাবে এর দখলের পরিমাণ এখন শূন্য শতাংশ।


প্রযুক্তি বাজারবিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান গার্টনারের এক গবেষণাতে ঠিক এমন তথ্যই উঠে এসেছে। এ খবর দিয়েছে মার্কিন বিজনেস ম্যাগাজিন ফরচুন।

খবরে বলা হয়, স্মার্টফোনের বাজারে একসময় অবিচ্ছেদ্য একটি নাম ছিল ব্ল্যাকবেরি। অথচ এখন এই ব্র্যান্ডের স্মার্টফোন খুঁজতে গেলে রীতিমতো গবেষণাই করতেহয়।

গার্টনারের বিশ্লেষণে দেখা গেছে, গত বছর বিশ্বব্যাপী ৪৩ কোটি ১০ লাখ স্মার্টফোন বিক্রি হয়েছে। স্মার্টফোনের এই বিশাল বাজারে ব্ল্যাকবেরির অবস্থান একেবারেই শূন্যের কোঠায়। ওই বছরে কানাডিয়ান এই ব্র্যান্ডের অপারেটিং সিস্টেমে চালিত স্মার্টফোন বিক্রি হয়েছে মাত্র দুই লাখ ইউনিট। ব্ল্যাকবেরির সঙ্গে কোনোভাবেই যায় না এই সংখ্যা। অথচ একসময় বিজনেস ইউটিলিটির ক্ষেত্রে ব্ল্যাকবেরির বিকল্পই ছিল না।

তলানিতে ঠেকে যাওয়া ব্ল্যাকবেরি তাই আর কতদিন মোবাইল ফোন উৎপাদন অব্যাহত রাখতে পারে, সেটাই দেখার বিষয়।

অনুমিতভাবেই বিশাল স্মার্টফোনের বাজারে সবচেয়ে বেশি এগিয়ে রয়েছে গুগলের মোবাইল অপারেটিং সিস্টেম অ্যান্ড্রয়েড। বাজারের ৮১.৭ শতাংশ স্মার্টফোনেই রয়েছে এই অ্যান্ড্রয়েড। আর দ্বিতীয় অবস্থানে থাকা অ্যাপলের আইওএস-এর মার্কেট শেয়ার ১৭.৯ শতাংশ।

সময়ের সঙ্গে অনেক কিছুই বদলে যায়। আজকের দিনে বিক্রিতে শীর্ষস্থানে থাকা কোনও পণ্য কালকেই চলে যায় বিক্রির তালিকার সর্বনিম্ন স্থানে। সেখানে হয়তো স্থান করে নেয় নতুন কোনও পণ্য। ঠিক এমনটিই ঘটেছে ব্ল্যাকবেরির বেলায়। এক সময়ে বাজারে রাজত্ব করা ব্ল্যাকবেরির স্থান এখন স্মার্টফোনের বাজারে নেই বললেই চলে। বাজারের হিসাবে এর দখলের পরিমাণ এখন শূন্য শতাংশ।