কেমন হবে ছেলেদের জুতা


শুধু পায়ের সুরক্ষায়ই নয় বরং সৌন্দর্য বাড়াতেও জুতার ভূমিকা অনেক। আপনি অফিসে থাকুন কিংবা পার্টিতে মানুষ আপনার পায়ের জুতাজোড়ার দিকেই তাকাবেই। আপনার পোশাকের সাথে আপনার পায়ের জুতা কতটা মানাচ্ছে তা অনেক বড় একটি প্রশ্ন। আর এই জুতা পছন্দের ব্যপারে ছেলেদের পড়তে হয় বিপাকে। কোন ধরনের আর কী রঙের জুতায় নিজেকে মানাবে তাই ছেলেদের কাছে অনেক বড় প্রশ্ন। তবে জুতার সম্পর্কে একটু জেনে নিলে আপনার চিন্তা দূর হবে আর আপনাকে দেবে ফ্যাশনেবল আউটলুক।

ব্রৌগস অ্যান্ড ডারবিস
‘ক্লাসিক’ এবং সুন্দর ডিজাইনের এই জুতাগুলো ক্যাজুয়াল বা ফরমাল দুইধরনের পরিবেশের জন্যই উপযোগী। নিজস্ব ফ্যাশনের ছাপ রাখতে স্লিম-ফিট প্যান্ট ও জ্যাকেটের সঙ্গে এই ডিজাইনের কালো কিংবা বাদামি রংয়ের জুতা পরতে পারেন।

দুই রংয়ের জুতা
অনেকসময় দুই রংয়ের ডিজাইনের জুতাগুলো পুরুষের পোষাকের সঙ্গে মানায় আদর্শভাবে। সঠিক উপায়ে পরলে এই জুতাগুলো আপনার ফ্যাশন চিন্তার মান উপরে তুলে ধরবে। একই রংয়ের দুই শেইড ব্যবহার করে ডিজাইন করা যেমন হালকা এবং গাঢ় বাদামি রংয়ের মিশ্র ডিজাইনের জুতা ব্যবহার করা যেতে পারে। একই রংয়ের দুই শেইডের এই মিশ্রণ ফুটিয়ে তুলবে রংয়ের ভিন্নতা। তবে দুটি গাঢ় রংয়ের মিশ্রণ ব্যবহার করতে চাইলে পোশাকের সঙ্গে এরমধ্যে একটি রংয়ের মিল থাকতে হবে।

অক্সফোর্ডস
অক্সফোর্ডস সবসময়ই থাকবে সঙ্গতিপূর্ণ এবং মানানসই। ব্যবহার করতে হবে হালফ্যাশনের অক্সফোর্ডসগুলো যেমন ‘বার্গান্ডি’ বা চকলেট রংয়ের অক্সফোর্ড। ভিড়ের মাঝে নিজেকে আলাদাভাবে উপস্থাপন করতে ন্যারো শেইপের প্যান্ট এবং ফিটিং জ্যাকেটের সঙ্গে মিলিয়ে পরতে পারেন এই জুতাগুলো।

চুকাজ
পায়ের তুলনায় সামনের দিকে একটু বেশি লম্বা আকৃতির এই জুতাগুলোর অবস্থান পোষাকি ও ইনফরমালের মাঝামাঝিতে। ধূসর, মেরুন ইত্যাদি রংয়ের চুকাজ জুতাগুলো বন্ধুদের সঙ্গে আড্ডা দেওয়া থেকে শুরু করে ডিনার পার্টি পর্যন্ত সবক্ষেত্রেই মানানসই।