শান্তির কিছু দেশ !


শুধু অর্থ থাকলেই যে সুখী হওয়া যায় তা কিন্তু নয়। সুখী থাকার জন্য নিজে তো বটেই পরিবার এবং সমাজেও শৃঙ্খলা ও শান্তিপূর্ণ পরিস্থিতি বিরাজ করা প্রয়োজন। একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে অনেক ধনী ও উন্নত দেশও সুখকর বসবাসের জন্য উপযোগী নয়। বিশেষজ্ঞেরা তাই বিশ্বের নানা দেশ নিয়ে গবেষণা করে দেখেছেন কোন কোন দেশে রয়েছে সুখী জীবন যাপনের প্রয়োজনীয় ক্ষেত্র ও উপাদান। জেনে নেয়া যাক কোন কোন দেশ বসবাসের জন্য উত্তম। অর্থাৎ কোন দেশগুলোর অধিবাসীরা আনন্দে জীবন কাটান।
১. কোস্টারিকাঃ স্বপ্নের গন্তব্যস্থল হিসেবে বিশ্বের যে ৫টি দেশকে শ্রেষ্ঠ বলা হয়েছে থাকে, কোস্টারিকা তাদের মধ্যে অন্যতম। এখানকার প্রতিটি মানুষ সুখী জীবনযাপন করে থাকেন।
২. মাল্টাঃ ইউরোপীয়দের জন্য অত্যন্ত জনপ্রিয় গন্তব্যস্থল মাল্টা। অনেকেই এই দেশটিতে স্থায়ীভাবে বসবাস করতে চান। প্রাকৃতিক পরিবেশের মাঝে বাস করতে দেশটির জুড়ি মেলা কঠিন। এখানকার জীবন নির্বাহের ব্যয়ও অনেক কম।
৩. ম্যাক্সিকোঃ দেশটির মানুষেরা বন্ধুভাবাপন্ন হওয়ার কারণে অনেকেই দেশটিতে বসবাসের জন্য বেছে নেন। এছাড়া দেশটির আবহাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। স্থানীয়দের সংস্কৃতিরও সুনাম রয়েছে বিশ্বজুড়ে।   
৪. ফিলিপাইনঃ জীবনযাপনের ক্ষেত্রে স্বল্প ব্যয়, বৈচিত্রময় প্রকৃতি এবং স্থানীয়রা বন্ধুভাবাপন্ন হওয়ায় অনেকেই ফিলিপাইনে জীবনের বাকি দিনগুলো কাটাতে চায়।
৫. ইকুয়েডরঃ জীবনযাপনের দিক থেকে এই দেশটিরও সুনাম রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, সুখী জীবনযাপনের জন্য শ্রেষ্ঠ দেশ হতে পারে ইকুয়েডর। দেশটির নির্মল প্রকৃতি এবং স্থানীয়দের সরল মানসিকতার কারণে অনেকেই চান সেখানে বসবাস করতে।
৬. নিউজিল্যান্ডঃ মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশ তো রয়েছেই, একই সঙ্গে রয়েছে শান্তিপূর্ণ সমাজব্যবস্থা। এছাড়া উন্নত ও স্বল্পব্যয়ের স্বাস্থ্যসেবা এবং উন্নত শিক্ষাব্যবস্থা থাকায় অনেকেই দেশটিতে পাড়ি জমাতে চান।
৭. থাইল্যান্ডঃ পশ্চিমা বিশ্বের মানুষের কাছে থাইল্যান্ডের রয়েছে বিশেষ কদর। জীবনযাপনে স্বল্প ব্যয়, স্থায়ী বসবাসের জন্য সহজ নিয়ম এবং স্থানীয়দের বন্ধুভাবাপন্ন মনোভাব থাইল্যান্ডের জনপ্রিয়তা আরও বাড়িয়ে দিয়েছে।
৮. ভিয়েতনামঃ দীর্ঘদিন ধরেই পশ্চিমাদের কাছে ভ্রমণ ও বসবাসের জন্য প্রিয় এই দেশটি। পশ্চিমের তুলনায় এখানে জীবন যাপনে ব্যয় অনেক কম। এছাড়া মনোমুগ্ধকর প্রকৃতি ও সুন্দর সমাজ ব্যবস্থা ভিন্ন অঞ্চলের মানুষকে সুখী জীবন যাপনের জন্যে বরাবরই টেনেছে।   
৯. পানামাঃ শ্রমের তুলনায় আয় বেশি হওয়ায় অনেকেই পানামায় বসবাসে আগ্রহ দেখান। সঙ্গে মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশ আর সুশৃঙ্খল সমাজ ব্যবস্থা এই আগ্রহ আরও বাড়িয়ে দেয় অভিবাসন প্রত্যাশীদের।
১০. স্পেনঃ সুন্দর আবাসন, উন্নতমানের খাদ্য ও পানীয় এবং যোগাযোগ ব্যবস্থার সহজলভ্যতার কারণে অনেকেই স্পেনে পাড়ি জমাতে চান। এছাড়া, কর্মসংস্থানের সুযোগ, তুলনামুলক অধিক আয় এবং প্রবাসীদের জন্য বাড়তি সুবিধা থাকায় অনেকের কাছেই স্বপ্নের দেশ হিসেবে পরিচিত স্পেন।
১১. হাঙ্গেরিঃ বিশ্বে যে কয়টি দেশের স্থানীয়দের আর্থিক সূচক সর্বোচ্চ হাঙ্গেরি তাদের মধ্যে অন্যতম। আর এর মূল কারণ হচ্ছে, দেশটিতে বসবাসকারীদের আয় অনেক বেশি। এছাড়া দেশটিতে জীবনধারণে ব্যয় অত্যন্ত কম হওয়ায় নাগরিকেরা সব সময়ই সুখী জীবনযাপন করে থাকেন।
১২. পেরুঃ সমীক্ষায় দেখা গেছে ব্যবসায়ীদের অনেকেই এই দেশটিতে পাড়ি জমাতে চান। এর কারণ হিসেবে দেখা গেছে দেশটির নির্মল আবহাওয়া এবং জীবন যাপনে স্বল্প ব্যয় যারা আগে থেকেই উপার্জনের মধ্যে আছেন তাদের টেনে থাকে।