অক্ষয় কুমার ভারতীয় নাগরিক নন!

বলিউডে দেশপ্রেমিক অভিনেতার তালিকায় উপরের দিকে আছেন অক্ষয় কুমার। ব্যক্তি কিংবা নায়ক হিসেবে তিনি এর প্রমাণও রেখেছেন। অক্ষয়ের দেশাত্মবোধের পটভূমি নিয়ে তৈরি ছবির মধ্যে রয়েছে ‘জলি এলএলবি টু’, ‘এয়ারলিফট’ ও ‘রুস্তম’।



ব্যক্তিজীবনে দেশের ইস্যুতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে অক্ষয়ের সরব ভূমিকা অনেকের নজর কেড়েছে। জানুয়ারিতে টুইটারে একটি ভিডিও শেয়ার করেছিলেন বলিউডের এই অভিনেতা। যেখানে উড়ি হামলায় নিহতদের পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন অক্ষয়।
অক্ষয় কুমারের উইকিপেডিয়ার তথ্য
এখানেই শেষ নয়, ২০১৬ সালের এপ্রিলে খড়াপীড়িতদের ৫০ লক্ষ, আগস্টে জওয়ানদের ৮০ লক্ষ এবং মহারাষ্ট্রের কৃষকদের ৯০ লক্ষ রুপি অনুদান দিয়েছিলেন ‘হাউজফুল’খ্যাত এই তারকা। প্রশ্ন জাগতে পারে, অক্ষয়ের এসব বিষয় নিয়ে এতো কথা কেন বলা হচ্ছে?  
জেনে আশ্চর্য হবেন, ভারতের জন্য এতো কিছু করলেও অক্ষয় দেশটির নাগরিকই নন। শুধু তাই নয়, ভোট প্রয়োগের অধিকারও নেই তার! দেশপ্রেমিক এই অভিনেতার সঙ্গে কেনো এমন হলো?
ঘটনা জানতে একটু অতীতে ফিরতে হবে। একবার যুক্তরাজ্যের হিথ্রো বিমানবন্দরে আটকানো হয়েছিলো ৪৯ বছর বয়সী এই তারকাকে। যেখানে তাকে সব কাগজপত্র দেখাতে হয়েছিলো। তখনই মিলেছিলো অক্ষয়ের কানাডিয়ান পাসপোর্ট। কারণ তিনি একইসঙ্গে ভারতীয় ও কানাডিয়ান দুই দেশের নাগরিক। এমনকি উইকিপিডিয়াতেও এই নায়কের জাতীয়তা কানাডিয়ান দেওয়া রয়েছে।
এমনটা হতেই পারে যে, একসঙ্গে দ্বৈত নাগরিকত্ব ভোগ করছেন এই অক্ষয় কুমার। কিন্তু ভারতের সংবিধান এটি সমর্থন করেনা। এ কারণে ভারতের কোনও নির্বাচনে তিনি ভোট দিতে পারবেন না। ১৯৫৫ সালের সিটিজেনশিপ অ্যাক্টের ৯ ধারা অনুযায়ী, যদি কেউ অন্য কোনও দেশের নাগরিকত্ব নেন, তাহলে তিনি ভারতীয় নাগরিকত্ব হারাবেন। অক্ষয়ের সঙ্গে সেটাই হয়েছে।