বিশেষভাবে আসছে ‘পোকেমন গো’

Especially-the-Pokemon-Go 


পোকেমন গো নিশ্চিতভাবেই পোকেমন ভক্তদের কাছে সবচেয়ে ভালবাসার এক উপহার। যার সাক্ষী প্রযুক্তি দুনিয়ার প্রায় বেশিরভাগ মানুষ। প্রকাশের পরপরই গেমটি এতো্টা সাড়া ফেলে, যা হতবাক করে দেওয়ার মতো।


গেমিং দুনিয়া থেকে পোকেমন গো’কে গ্রহণ করা হয়েছিল সাদরে। কিন্তু আকষ্মিকভাবেই এর জনপ্রিয়তা আর উত্তেজনা ধীরে ধীরে ম্লান হতে থাকে।

বেশ কিছুদিন কোনো খোঁজ খবর নেই বিশ্বকে মাত করে দেওয়া সেই ‘পোকমন’র।

তবে বার্সেলোনায় অনুষ্ঠিত সদ্য সমাপ্ত তথ্যপ্রযুক্তির বিশাল উৎসব ‘এমডব্লিউসি ২০১৭’র  মাধ্যমে আলোচিত সেই গেমটির পুন:জাগরণ হয়েছে। নির্মাতা প্রতিষ্ঠান নিয়ানটিকের সিইও জন হ্যাঙ্ক  এখানে ঘোষণা দেন, পোকেমন গো’তে গুরুত্বপূর্ণ তিনটি নতুনত্ব দিয়ে এ বছরেই ভক্তদের জন্য প্রকাশ করা হবে। কিন্তু ঐ সময় জন হ্যাঙ্ক এ বিষয়ে অতিরিক্ত কিছু তুলে ধরেনি।

তবে হ্যাঙ্ক এটা উল্লেখ করেন, এতে এমন কিছু দেওয়া হয়েছে যার মাধ্যমে ব্যবহারকারীরা হৈ হুল্লোড়ের সুযোগ পাচ্ছেন।

নিয়ানটিক কর্তৃক সেই ঘোষণায় বেশি কিছু প্রকাশ্যে না আসলেও তথ্য প্রকাশকারী সুত্রগুলো নীরব নেই। প্রযুক্তি বিষয়ক বিভিন্ন প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, খুব বেশি চাহিদার ‘প্লেয়ার ভার্সেস প্লেয়ার’ এই লড়াইয়ের পদ্ধতি সামনে এসে গেছে। এখন তৃতীয় প্রজন্মের পোকেমন হাতে আসতে যাচ্ছে, আর যেটা ঘটবে এ বছরের শেষ দিকে।

এর অন্যান্য হালনাগাদ যেমন গেমটিতে রিয়েল টাইম ওয়েদার সিস্টেম সেইসাথে ডে এবং নাইট ফিচার প্রত্যাশিত, যেটি ব্যবহারকারী কোথায় এবং কখন সেই অনুযায়ী ব্যবহত হবে।

এসব খবরের ভিত্তিতে এখন নিশ্চিতভাবে মনে করা হচ্ছে এ বছর আরো অনেক পোকমেন ছড়িয়ে পড়বে বিশ্বে, আর তাতে উপভোগের জন্য থাকবে চমকপ্রদ বৈশিষ্ট্য।

তবে কৌতুহলীদের আপাতত অপেক্ষা করা ছাড়া কোনো উপায় নেই, যতক্ষণে না আনুষ্ঠানিকভাবে এর প্রকাশ হচ্ছে।

পোকেমন গো নিশ্চিতভাবেই পোকেমন ভক্তদের কাছে সবচেয়ে ভালবাসার এক উপহার। যার সাক্ষী প্রযুক্তি দুনিয়ার প্রায় বেশিরভাগ মানুষ। প্রকাশের পরপরই গেমটি এতো্টা সাড়া ফেলে, যা হতবাক করে দেওয়ার মতো।