চলে গেলেন ইবনে মিজান

 

বাংলাদেশের জাতীয় চলচিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক ও প্রযোজক ইবনে মিজান আর নেই। ষাটের দশকের রূপালি পর্দার সাড়া জাগানো এই পরিচালক স্থানীয় সময় সোমবার সকালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার করোনা শহরে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। খবর বার্তা সংস্থা এনা’র।

মরহুম ইবনে মিজানের নামাজে জানাজা স্থানীয় সময় মঙ্গলবার বাদ জোহর করোনা মসজিদে অনুষ্ঠিত হবে।

পরিচালক ইবনে মিজান অনেক ব্যবসাসফল ছবি নির্মাণ করেছিলেন। ভালো ছবি নির্মাণ করে তিনি শুধু প্রশংসিত হননি, পেয়েছিলেন জাতীয় পুরস্কারও। ইবনে মিজানের উল্লেযোগ্য ছবিগুলোর মধ্যে রয়েছে আবার বসবাসে রূপবান (১৯৬৬), রাখাল বন্ধু (১৯৬৮) বাঁশের কেল্লা, নিশান (১৯৮৪), এক মুঠো ভাত (১৯৭৬), লায়লা মজনু (১৯৭৯), চন্দন দ্বীপের রাজকন্যা (১৯৮৪) ইত্যাদি।

জানা গেছে, ছয় সন্তানের জনক চলচ্চিত্র পরিচালক ইবনে মিজান চলচ্চিত্র জগত ছেড়ে দিয়ে ১৯৯০ সালে সপরিবারে ক্যালিফোর্নিয়া শহরে চলে আসেন এবং করোনা শহরে তার বড় ছেলে টিটো মিজানের বাসায় ওঠেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি এ বাসাতেই ছিলেন।

তার মৃত্যুতে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতি, শিল্পী সমিতি, প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতি গভীর শোক জানিয়েছেন।

বাংলাদেশের জাতীয় চলচিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত পরিচালক ও প্রযোজক ইবনে মিজান আর নেই। ষাটের দশকের রূপালি পর্দার সাড়া জাগানো এই পরিচালক স্থানীয় সময় সোমবার সকালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়ার করোনা শহরে বার্ধক্যজনিত কারণে মারা যান। তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। খবর বার্তা সংস্থা এনা’র।