কাঠবাদামের স্বাদে মাখা মাখা বাদামি মুরগি


মোগলাই ধরণের খাবারগুলো রান্না করতে সাধারণত বেশ ঝামেলা হয়। এতে অনেক উপকরণ দরকার হয়, অনেকটা সময় চলে যায়, আর রাঁধুনিকেও হতে হয় বেশ দক্ষ। কিন্তু আজকের এই রেসিপিটা তার তুলনায় অনেকটাই সহজ। দেখে নিন কোরমা ধাঁচে রান্না করা বাদামি মুরগির রেসিপিটি।
 
উপকরণ
- ১ কেজি মুরগির পিস
- আধা কাপ কাঠবাদাম (সারারাত ভিজিয়ে খোসা ছাড়িয়ে নেওয়া)
- ২ টেবিল চামচ লেবুর রস
- ১ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো
- ৩ টেবিল চামচ টক দই
- ৫ টেবিল চামচ তেল
- ২টি মাঝারি পিঁয়াজ চিকন করে কাটা
- ২ টেবিল চামচ আদা বাটা
- ৩ টেবিল চামচ রসুন বাটা
- ৫/৬টা কাঁচামরিচ
- আধা কাপ দুধ
- ৪/৫টি এলাচ
- ২ ইঞ্চি পরিমাণ দারুচিনি
- ৪/৫টি লবঙ্গ
- ২টি তেজপাতা
- ১ চা চামচ গরম মশলা গুঁড়ো
- লবণ স্বাদমতো
- চিনি স্বাদমতো
- সাজানোর জন্য ভাজা কাঠবাদাম এবং ধনেপাতা কুচি
 
প্রণালী
১) মুরগির মাংসে লেবুর রস, লবণ এবং মরিচের গুঁড়ো মাখিয়ে রাখুন আধা ঘন্টা।
২) দইয়ের সাথে গরম মশলা গুঁড়ো মিশিয়ে নিন এবং মেরিনেট করা চিকেন এতে মাখিয়ে নিন। এরপর এটা ২-৩ ঘন্টা ফ্রিজে রাখুন। সম্ভব হলে সারারাত রাখুন।
৩) বড় একটি প্যানে আস্ত মশলাগুলো (এলাচ, দারুচিনি এবং লবঙ্গ) টেলে নিন। সুবাস এলে এতে তেল দিয়ে দিন। গরম তেলে তেজপাতা, পিঁয়াজ, এক চিমটি লবণ ও চিনি দিন। পিঁয়াজ নরম হয়ে যাওয়া পর্যন্ত ভেজে নিন।
৪) এরপর এতে আদা-রসুন বাটা দিন। ভালো করে মশলা কষিয়ে নিন। এরপর এতে মুরগির টুকরো দিয়ে দিন। ম্যারিনেডের মশলাটা ফেলে দেবেন না, রেখে দিন। মুরগির রং হালকা বাদামি হওয়া পর্যন্ত কষিয়ে নিন। নাড়তে থাকুন যাতে নিচে ধরে না যায়।
৫) কাঠবাদাম, দুধ, বাড়তি ম্যারিনেড এবং কাঁচামরিচ দিয়ে একটি পেস্ট তৈরি করে নিন। মুরগি বাদামি হয়ে এলে এতে পেস্টটি দিয়ে দিন। ৫-৭ মিনিট রান্না হতে দিন। মাঝে মাঝে নাড়ুন। এরপর ১ কাপ গরম পানি দিন এতে। আঁচ কমিয়ে ঢাকনা চাপা দিয়ে রান্না করুন মুরগি নরম হয়ে আসা পর্যন্ত। এ সময়ে তেল ওপরে উঠে আসবে। দরকার হলে লবণ বা চিনি আরেকটু দিতে পারেন। এরপর আঁচ বন্ধ করে দিন।
 
ধনেপাতা এবং কাঠবাদাম দিয়ে পরিবেশন করুন বাহারি এই পদ। নান অথবা পোলাওয়ের সাথে দারুণ লাগবে এই খাবারটি।
 
টিপস
- আপনি ঝাল পছন্দ না করলে কাঁচামরিচের ভেতর থেকে বীজ বের করে ফেলে বাকিটা ব্যবহার করতে পারেন, কিন্তু কাঁচামরিচ একেবারে বাদ দেবেন না। এর ফ্লেভারটা এই ডিশের জন্য জরুরী।