মস্তিষ্কের ভাবনা সরাসরি টাইপ হবে ফেসবুকে

 


 সম্প্রতি ফেসবুক জানিয়েছে, তারা এমন একটি প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে যার ফলে কম্পিউটারগুলো সরাসরি মানব মস্তিষ্ক নিয়ন্ত্রিত হবে। ‘সাইলেন্ট স্পিচ’ নামে তারা একটি সফটওয়্যার নিয়েও কাজ করছে। এ সফটওয়্যার ব্যবহার করে মানুষ প্রতি মিনিটে ১০০টি শব্দ টাইপ করতে পারবে।


প্রাথমিক পর্যায়ে থাকা এ প্রজেক্ট বাস্তবায়নে প্রয়োজন হবে নতুন প্রযুক্তির। ফেসবুক কর্মকর্তা রেগিনা দুগান জানান, এর মানে এটা নয় যে আমরা কারো সব চিন্তা-ভাবনা সম্পর্কে জানতে পারব। একজন মানুষের অনেক চিন্তা থাকতে পারে, তবে এর মধ্যে কোনটির কথা সে জানাবে আর কোনটির কথা জানাবে না, তা সে নিজেই নির্ধারণ করবেন।

দুগান আরো বলেন, একজন মানুষ যেগুলো চাইবে আমরা কেবল সেগুলো ‘ডিকোড’ করার বিষয়েই কথা বলছি। আমরা একটা ‘স্পিচ ইন্টারফেস’ নিয়ে কাজ করছি যেটাতে কথা বলার স্বাভাবিক গতি এবং নমনীয়তা সবই থাকবে। ​এই উদ্দেশ্য পূরণে সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যার দুই-ই তৈরি করছে ফেসবুক। এজন্য ৬০ জন বিজ্ঞানী ও শিক্ষাবিদের তালিকাও করা হয়েছে।

মার্ক জুকারবার্গ তার ফেসবুক পেজে লিখেছেন, আমার যেটা করতে চাচ্ছি সেটা হলো, মানুষ সরাসরি তার মস্তিষ্ক ব্যবহার করে টাইপ করতে পারবে। অর্থাৎ আজ মানুষ তার মোবাইল ফোনে যে গতিতে টাইপ করে তার চেয়ে পাঁচ গুণ বেশি গতিতে টাইপ করা সম্ভব হবে।

সম্প্রতি ফেসবুক জানিয়েছে, তারা এমন একটি প্রযুক্তি নিয়ে কাজ করছে যার ফলে কম্পিউটারগুলো সরাসরি মানব মস্তিষ্ক নিয়ন্ত্রিত হবে। ‘সাইলেন্ট স্পিচ’ নামে তারা একটি সফটওয়্যার নিয়েও কাজ করছে। এ সফটওয়্যার ব্যবহার করে মানুষ প্রতি মিনিটে ১০০টি শব্দ টাইপ করতে পারবে।