কেন ঠান্ডা বা বরফ দেয়া পানি পান করা উচিৎ নয়?

কেন ঠান্ডা বা বরফ দেয়া পানি পান করা উচিৎ নয়? 

আপনি কী গরমের সময়ে ফ্রিজের ঠান্ডা পানি পান করেন? তাহলে এটি আপনার জন্য একটি ক্ষতিকর অভ্যাস। বরফের অনেক উপকারিতা আছে এটা আমরা জানি। যদিও ঠান্ডা পানি বা বরফ দেয়া পানি পান করলে অস্থায়ী প্রশান্তি পাওয়া যায়, কিন্তু নিয়মিত বরফ পানি পান করলে স্বাস্থ্যের উপর খারাপ প্রভাব পড়ে। কেন ঠান্ডা বা বরফ দেয়া পানি পান করা উচিৎ নয় সে বিষয়ে জেনে আসি চলুন।


১। হজমে বাঁধার সৃষ্টি করে

ঠান্ডা পানি পান করলে হজম প্রক্রিয়ায় বাঁধার সৃষ্টি হয়, কারণ ঠান্ডা পানি রক্তনালীকে সংকুচিত করে দেয়। এটি হজম প্রক্রিয়াকে ধীর করে দেয়। যদি খাবার ঠিকমত হজম না হয় তাহলে পুষ্টি উপাদান নষ্ট হয়ে যায় এবং শরীরে সঠিকভাবে শোষিত হয়না।

২। পুষ্টি উপাদান নষ্ট হয়ে যায়

আমাদের শরীরের তাপমাত্রা ৩৭ ডিগ্রী সেন্টিগ্রেড। যখন আপনি খুব কম তাপের পানীয় পান করেন তখন আপনার শরীরকে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণের জন্য অনেক বেশি শক্তি ব্যয় করতে হয়। এই ক্ষয়িত শক্তি হজমের কাজে ব্যবহার হতে পারতো এবং শরীরে পুষ্টি শোষিত হতে পারতো। এ কারণেই ঠান্ডা পানি নিয়মিত পান করলে শরীর কম পুষ্টি পায়।

৩। গলা ব্যথা হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়

ঠান্ডা পানি পান করলে শ্বাসযন্ত্রে শ্লেষ্মা জমা হয়। শ্লেষ্মা শ্বাসনালীর সুরক্ষা নিশ্চিত করে। কিন্তু যখন এই শ্লেষ্মা জমে যায় তখন শ্বাসনালী উন্মুক্ত বা প্রকাশিত হয়ে যায় এবং সংক্রমণের সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। এর ফলে গলাব্যথা হতে পারে।

৪। হৃদস্পন্দন কমায়

ঠান্ডা পানি পান করলে হৃদস্পন্দন কমে যায়। গবেষণায় দেখা গেছে যে, ঠান্ডা পানি পান করলে ভেগাস স্নায়ু উদ্দীপিত হয়। ভেগাস স্নায়ু হচ্ছে করোটির ১০ ক্রেনিয়াল স্নায়ু যা শরীরের স্বতন্ত্র স্নায়ুতন্ত্রের গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এটি শরীরের অনিচ্ছাকৃত কাজগুলোকে নিয়ন্ত্রণ করে। ভেগাস স্নায়ু হৃদস্পন্দনের মাত্রা কম হওয়া এবং ঠান্ডা পানির কম তাপমাত্রার মধ্যস্থতা করে উদ্দীপক হিসেবে কাজ করার মাধ্যমে, যার ফলে হৃদস্পন্দন কমে যায়।

৫। চর্বি জমা হয়

খাবারের সাথে সাথে যদি ঠান্ডা পানি পান করেন অথবা খাওয়ার পর পরই যদি ঠান্ডা পানীয় পান করেন তাহলে খাদ্যে উপস্থিত চর্বি কঠিন আকার ধারণ করে। এই অনাকাঙ্ক্ষিত চর্বি হজম হওয়া কঠিন হয়ে যায়। 

ঠান্ডা পানি পান করলে বেশি ক্যালোরি পুড়ে এটা সত্যি। কিন্তু যেহেতু হজম প্রক্রিয়াকে সহজ রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ তাই ক্যালোরি পোড়ানোর জন্য অন্য উপায় বেছে নেয়া জরুরী। সাধারণ তাপমাত্রার পানি পান করাই স্বাস্থ্যসম্মত। কারণ স্বাভাবিক পানি পান করলে হজমের কাজে সহায়তাকারী প্রাকৃতিক এনজাইম উদ্দীপিত হয় বলে হজম হয় ভালোভাবে।   

আপনি কী গরমের সময়ে ফ্রিজের ঠান্ডা পানি পান করেন? তাহলে এটি আপনার জন্য একটি ক্ষতিকর অভ্যাস। বরফের অনেক উপকারিতা আছে এটা আমরা জানি। যদিও ঠান্ডা পানি বা বরফ দেয়া পানি পান করলে অস্থায়ী প্রশান্তি পাওয়া যায়, কিন্তু নিয়মিত বরফ পানি পান করলে স্বাস্থ্যের উপর খারাপ প্রভাব পড়ে। কেন ঠান্ডা বা বরফ দেয়া পানি পান করা উচিৎ নয় সে বিষয়ে জেনে আসি চলুন।