টিউবলাইটের টিজারের মূল আকর্ষণ সালমান নন!


গত বছর বড় পর্দায় ম্যাজিক দেখিয়েছিল সালমান খান-কবীর খান জুটি। বক্স অফিসে বড় অংকের ব্যবসা দিয়েছিল বজরঙ্গি ভাইজান। এর আগে এই জুটির এক থা টাইগার ছবিও সুপারহিট হয়েছিল। স্বাভাবিকভাবেই বলিউডের এই অভিনেতা ও পরিচালকের কাছ থেকে সিনেপ্রেমীদের প্রত্যাশাও বেড়ে গিয়েছে। চলতি বছর ইদে ফের জুটি বেঁধে আসছেন তাঁরা। তার আগে মঙ্গলবার মুক্তি পেল টিউবলাইট ছবির টিজার। এক্কেবারে অন্য কায়দায় মুক্তি পেয়েছিল শাহরুখ খানের রইস ছবির ট্রেলার। দেশের বিভিন্ন সিনেমা হলে অনলাইনে দর্শকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন কিং খান। ভক্তদের প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলেন। তাই সালমানও যে নিজের ছবির প্রচারে চমক রাখবেন, তা আন্দাজ করাই যায়। টিজারেই মিলল সেই ইঙ্গিত। 




সুপারস্টার দাবাং খান যে বাচ্চাদের কাছে দারুণ প্রিয়, সে কথা সকলেরই জানা। তিনি নিজেও কচিকাচাদের সঙ্গে সময় কাটাতে ভালবাসেন। বজরঙ্গি ভাইজান ছবিরও ইউএসপি ছিল বাচ্চারা। আর টিউবলাইট এর প্রথম ঝলকেরও আকর্ষণ হল সেই শিশুরাই। তাদের কেউই গান শেখেনি। কিন্তু বেশ ভালভাবেই টিজারে নিজেদের প্রতিভা তুলে ধরেছে তারা। মুম্বইয়ে সালমানের গ্যালাক্সি অ্যাপার্টমেন্টের আশপাশেই থাকে এই তারা। ৬ থেকে ১১ বছরের মধ্যে বাচ্চাদের বেছে তাদের দিয়ে টিজারের জন্য গান রেকর্ড করানো হয়। 


কবীর খান জানান, আমি আর সালমান দুই জন মিলেই ঠিক করি, কচিকাঁচাদের দিয়ে একটা গান রেকর্ড করাব। কিন্তু তার জন্য প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত কাউকে চাইনি। তখনই ঠিক হয় ওর এলাকা থেকে বাচ্চাদের বেছে নেওয়া হবে। সালমানই ওদের স্টুডিওতে ডাকে এবং বুঝিয়ে দেয় কী করতে হবে। প্রোমো টিজারের মূল আকর্ষণ এই কোরাসই। সংগীত পরিচালক প্রীতম ছবিতে মিউজিক দিয়েছেন। টিউবলাইট এ সালমানের বিপরীতে অভিনয় রয়েছেন চিনের ঝু ঝু। প্রয়াত অভিনেতা ওম পুরির এটিই বলিউডে শেষ কাজ। ১৯৬২ সালের সিনো-ইন্দো যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে তৈরি হয়েছে এই ছবি। দেখে নিন এ দিন মুক্তি পাওয়া ছবির টিজার।