ভোরেই ঘুম থেকে উঠতে চান?



নানা কাজে কিংবা অকাজে মানুষ এখন রাতে ঘুমাতে যায় দেরি করে। ফলে সকালে ঘুম থেকে উঠতেও দেরি হয়। এছাড়া রয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও ইন্টারনেট ব্রাউজিং। এসব কারণে সকালের কিছুতেই ঘুম থেকে উঠতে পারেন না কিংবা সময়মতো স্কুল-কলেজ বা অফিস ধরতে পারেন না এমন মানুষ প্রচুর। তবে কয়েকটি উপায় অবলম্বন করলে এ সমস্যা দূর করা সম্ভব। 
১. সময় নির্ধারণ করুন
কখন উঠতে চান আগে সেটা ঠিক করুন। আপনি হয়তো সকাল ৭টায় উঠতে চান কিন্তু রাতে ভাবলেন সাড়ে ৬টায় উঠলে ভালো হয়। এমন ভাবনাই ভুল। যখন উঠতে চান, সেটাই চিন্তা করে রাখুন। অবচেতন মন কোনোভাবে দ্বিধায় থাকলে আপনার ঘুমে  ব্যাঘাত ঘটবে। দেখবেন হয়তো ৬টায় ওঠার জায়গায় আপনার ৪টায় ঘুম ভেঙে গেল। তখন আবার ঘুমোলেন, আর উঠলেন অনেক পরে। 
২. অতিরিক্ত চাপ নয়
পরদিন সকালে তাড়াতাড়ি উঠতে হবে বলে ঘুমোতে যাওয়ার আগে মনের ওপর অতিরিক্ত চাপ দেবেন না। বারবার যদি ভাবেন কাল সকালে তাড়াতাড়ি উঠতে হবে, কাল সকালে তাড়াতাড়ি উঠতে হবে তাহলে ঘুমে ব্যাঘাত ঘটবে। ঘুমোতে দেরি হবে, আর পরদিন তাড়াতাড়ি ওঠার সব পরিকল্পনা ভেস্তে যাবে। 
৩. নির্দিষ্ট রুটিন
প্রতিদিন ঘুম থেকে ওঠার একটা নির্দিষ্ট রুটিন তৈরি করুন। যাদের শিফিটিং ডিউটি অর্থাৎ আজ সকাল, কাল দুপুর, পরশু রাত, এমন ধরনের ডিউটি থাকলে চেষ্টা করুন প্রতিদিন একটা নির্দিষ্ট সময়ে ঘুম থেকে উঠতে। আজ কাজ আছে বলে তাড়াতাড়ি উঠব, কাল নেই বলে এখটু বেশি ঘুমিয়ে নিই। এই নিয়ম তৈরি না করাই ভাল। 
৪. অ্যালার্ম ঘড়ি
অ্যালার্ম ক্লক বা ফোনের অ্যার্লাম টোন কিন্তু ঘুম থেকে সঠিক সময়ে ওঠার একটা বড় অস্ত্র। ধরুন অ্যালার্ম টোনটা খুব চড়া আর তীব্র। শুনেই আপনার খারাপ লাগছে। এমন অ্যালার্মে আপনার ঘুম ভাঙবে ঠিকই কিন্তু একটু নড়াচড়া করে আবার ঘুমিয়ে পড়বেন। 
৫. দিনের আলো
সকালে যেন ঘরে সূর্যের আলো বা রোদ এসে পড়ে সম্ভব হলে সেই ব্যবস্থা করুন। ঘর যত অন্ধকার রাখবেন, ঘুম থেকে উঠতে তত দেরি হবে।