ব্রেস্ট ক্যান্সার শনাক্ত করতে নতুন আবিষ্কার

 


 গ্লোবাল স্টুডেন্ট অন্ট্রেপ্রেনার অ্যাওয়ার্ডস (GSEA) এর প্রথম পুরষ্কার জিতে নেয় মেক্সিকোর আঠারো বয়সী এক কিশোর। তার উদ্ভাবন ছিল EVA নামের একটি ব্রা, যা ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্ত করতে পারে।


ব্রেস্ট ক্যান্সারের সাথে নিজের মায়ের যুদ্ধ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে এই উদ্ভাবন করে জুলিয়ান রিওস কান্টু। এতে ব্যবহার করা হয় ২০০টি বায়োসেন্সর যা স্তনের যে কোনো পরিবর্তন দ্রুত শনাক্ত করতে পারে এবং ব্যবহারকারীকে একটি স্মার্টফোন অ্যাপের মাধ্যমে জানিয়ে দিতে পারে।

“EVA হলো বায়োসেন্সরের একটি নেটওয়ার্ক যা স্তনের তথ্য গ্রহণ করে, তাপমাত্রা গ্রহণ করে এবং সেখান থেকে তথ্য প্রেরণ করে একটি অ্যাপ্লিকেশনে বা কম্পিউটারে,” রিওস জানায় ফোর্বস মেক্সিকোকে।

এই অ্যাপের মাধ্যমে নারীরা নিজের স্তনে এমন কোনো পরিবর্তন শনাক্ত করতে পারবেন যা ব্রেস্ট ক্যান্সারের উপসর্গ হতে পারে। উদাহরণস্বরুপ, তাপমাত্রা বেশি হবার অর্থ হলো রক্তপ্রবাহ বেড়ে যাওয়া- যা কিনা টিউমারের উপস্থিতির কারণে হতে পারে। প্রতি সপ্তাহে এক ঘন্টা করে এই ব্রা ব্যবহার করাই যথেষ্ট যে কোনো পরিবর্তন ধরা পড়ার জন্য।

জুলিয়ান এবং তার তিন বন্ধু মিলে তৈরি করা কোম্পানি হিগিয়া টেকনোলজিস থেকে তৈরি ক্রয়া হয় এই ব্রা। GSEA ফাইনালে পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের আরও ১৩ জন শিক্ষার্থীর সাথে প্রতিযোগিতায় তারা জয়ী হয়। এই জয়ে অভিনন্দন জানিয়ে টুইট করেন খোদ মেক্সিকান প্রেসিডেন্ট এনরিক পেনা নিয়েতো।

বর্তমানে এই উদ্ভাবন তার প্রাথমিক পর্যায়ে আছে এবং এই ক্ষুদে উদ্ভাবকেরা আশা করছে তারা অচিরেই আরো ভালো ফলাফল দিতে সক্ষম হবে।

গ্লোবাল স্টুডেন্ট অন্ট্রেপ্রেনার অ্যাওয়ার্ডস (GSEA) এর প্রথম পুরষ্কার জিতে নেয় মেক্সিকোর আঠারো বয়সী এক কিশোর। তার উদ্ভাবন ছিল EVA নামের একটি ব্রা, যা ব্রেস্ট ক্যান্সার প্রাথমিক পর্যায়ে শনাক্ত করতে পারে।