ঢাকায় ‘ফোর-জি’ চালু করতে প্রস্তুত রবি-এরিকসন


ঢাকায় যৌথভাবে ফোর-জি ও এলটিই (লং টার্ম এভোলুশন) নেটওয়ার্ক পরীক্ষা করেছে মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ও এরিকসন। নতুন প্রযুক্তির নেটওয়ার্কে তারা ৯০ এমবিপিএস এর চেয়েও বেশি মোবাইল ব্রডব্যান্ড গতি পেয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
ফোর-জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষার মাধ্যমে দেশে নতুন প্রযুক্তি চালু করতে নিজেদের প্রস্তুতি জানান দিলো রবি।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের অন্যান্য শহরেও সুইডেন ভিত্তিক কোম্পানি এরিকসনের সাথে যৌথভাবে ফোর-জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষা করবে রবি।
২০১২ সালের অক্টোবর মাসে দেশে প্রথমবারের মত থ্রি-জি নেটওয়ার্ক চালু করে সরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড। সে দিক থেকে পরীক্ষামূলকভাবে ফোর-জি নেটওয়ার্ক এরিকসন বাংলাদেশের জন্য একটি মাইলফলক। সেই সাথে বিদ্যমান নেটওয়ার্ককে এলটিই প্রযুক্তিতে উন্নীতকরণে দেশের টেলিকম মার্কেটের প্রস্তুতিকেও ইঙ্গিত করে এই পরীক্ষা।
শিগগিরই ফোর-জি লাইসেন্স প্রদান করবে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি)। নতুন সেবা চালু করতে তারা একটি খসড়া নীতিমালাও তৈরি করেছে।
নীতিমালায় ১৫ বছরের জন্য লাইসেন্স ফি বাবদ ১৫ কোটি টাকা প্রস্তাব করেছে বিটিআরসি। এছাড়াও বার্ষিক ফি হিসেবে আরও সাড়ে ৭ কোটি টাকার প্রস্তাব রয়েছে নীতিমালায়। বিদ্যমান থ্রি-জি অপারেটরদের সবাই ফোর-জি লাইসেন্সের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।ঢাকায় যৌথভাবে ফোর-জি ও এলটিই (লং টার্ম এভোলুশন) নেটওয়ার্ক পরীক্ষা করেছে মোবাইল ফোন অপারেটর রবি ও এরিকসন। নতুন প্রযুক্তির নেটওয়ার্কে তারা ৯০ এমবিপিএস এর চেয়েও বেশি মোবাইল ব্রডব্যান্ড গতি পেয়েছে বলে জানানো হয়েছে।
ফোর-জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষার মাধ্যমে দেশে নতুন প্রযুক্তি চালু করতে নিজেদের প্রস্তুতি জানান দিলো রবি।
প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, দেশের অন্যান্য শহরেও সুইডেন ভিত্তিক কোম্পানি এরিকসনের সাথে যৌথভাবে ফোর-জি নেটওয়ার্ক পরীক্ষা করবে রবি।
২০১২ সালের অক্টোবর মাসে দেশে প্রথমবারের মত থ্রি-জি নেটওয়ার্ক চালু করে সরকারি মোবাইল ফোন অপারেটর টেলিটক বাংলাদেশ লিমিটেড। সে দিক থেকে পরীক্ষামূলকভাবে ফোর-জি নেটওয়ার্ক এরিকসন বাংলাদেশের জন্য একটি মাইলফলক। সেই সাথে বিদ্যমান নেটওয়ার্ককে এলটিই প্রযুক্তিতে উন্নীতকরণে দেশের টেলিকম মার্কেটের প্রস্তুতিকেও ইঙ্গিত করে এই পরীক্ষা।
শিগগিরই ফোর-জি লাইসেন্স প্রদান করবে বাংলাদেশ টেলিকমিউনিকেশন রেগুলেটরি কমিশন (বিটিআরসি)। নতুন সেবা চালু করতে তারা একটি খসড়া নীতিমালাও তৈরি করেছে।
নীতিমালায় ১৫ বছরের জন্য লাইসেন্স ফি বাবদ ১৫ কোটি টাকা প্রস্তাব করেছে বিটিআরসি। এছাড়াও বার্ষিক ফি হিসেবে আরও সাড়ে ৭ কোটি টাকার প্রস্তাব রয়েছে নীতিমালায়। বিদ্যমান থ্রি-জি অপারেটরদের সবাই ফোর-জি লাইসেন্সের জন্য যোগ্য বলে বিবেচিত হবেন।