ফ্রিল্যান্সারদের আয় আসবে কার্ডে


সহজ হলো তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি খাতের ফ্রিল্যান্সারদের আয় দেশে আনার পদ্ধতি। এখন থেকে এ খাতের বৈদেশিক আয় আন্তর্জাতিক কার্ডের মাধ্যমে দেশে আসবে। পূর্বঘোষণা ছাড়ায় ৯ হাজার ৯৯৯ ডলার পর্যন্ত আয় আনা যাবে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ আজ মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ব্যাংকগুলোকে এ সুবিধার কথা সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের জানানোর নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ফিল্যান্সাররা কার্ডের মাধ্যমে দেশে আসা অর্থের ৭০ শতাংশ ডলার হিসেবে ও ৩০ শতাংশ টাকা হিসেবে রাখতে পারবেন। ডলার স্থানীয় মুদ্রায় রূপান্তরের সময় স্থানীয় বিনিময় মূল্য কার্যকর হবে। ডলার হিসেবে থাকা অর্থ ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে বিদেশি বিল পরিশোধে ব্যবহার করা যাবে।
বর্তমানে যেসব ব্যাংকের কার্ড-সুবিধা আছে, এদের অনেকেরই আন্তর্জাতিক উত্তোলন সুবিধা আছে। এসব কার্ড এখনই এ সুবিধা পাবে।
যোগাযোগ করা হলে ব্যাংক এশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরফান আলী আজ সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে বলেন, ‘এ সুযোগের ফলে ফ্রিল্যান্সরদের অর্থ বৈধ পথে দেশে আসবে। আমরাও জুন থেকে পেঅনার কার্ড ইস্যু করব। এ জন্য কাজ চলছে।’সহজ হলো তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি খাতের ফ্রিল্যান্সারদের আয় দেশে আনার পদ্ধতি। এখন থেকে এ খাতের বৈদেশিক আয় আন্তর্জাতিক কার্ডের মাধ্যমে দেশে আসবে। পূর্বঘোষণা ছাড়ায় ৯ হাজার ৯৯৯ ডলার পর্যন্ত আয় আনা যাবে।
বাংলাদেশ ব্যাংকের বৈদেশিক মুদ্রানীতি বিভাগ আজ মঙ্গলবার এ-সংক্রান্ত এক প্রজ্ঞাপন জারি করেছে। ব্যাংকগুলোকে এ সুবিধার কথা সংশ্লিষ্ট গ্রাহকদের জানানোর নির্দেশনা দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।
কেন্দ্রীয় ব্যাংকের নির্দেশনায় বলা হয়েছে, ফিল্যান্সাররা কার্ডের মাধ্যমে দেশে আসা অর্থের ৭০ শতাংশ ডলার হিসেবে ও ৩০ শতাংশ টাকা হিসেবে রাখতে পারবেন। ডলার স্থানীয় মুদ্রায় রূপান্তরের সময় স্থানীয় বিনিময় মূল্য কার্যকর হবে। ডলার হিসেবে থাকা অর্থ ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে বিদেশি বিল পরিশোধে ব্যবহার করা যাবে।
বর্তমানে যেসব ব্যাংকের কার্ড-সুবিধা আছে, এদের অনেকেরই আন্তর্জাতিক উত্তোলন সুবিধা আছে। এসব কার্ড এখনই এ সুবিধা পাবে।
যোগাযোগ করা হলে ব্যাংক এশিয়ার ব্যবস্থাপনা পরিচালক আরফান আলী আজ সন্ধ্যায় প্রথম আলোকে বলেন, ‘এ সুযোগের ফলে ফ্রিল্যান্সরদের অর্থ বৈধ পথে দেশে আসবে। আমরাও জুন থেকে পেঅনার কার্ড ইস্যু করব। এ জন্য কাজ চলছে।’