হলিউড আটকে আছে আদিম যুগে!

হলিউড আটকে আছে আদিম যুগে!হলিউডের ছবিতে অর্থলগ্নিকারীরা নাকি এখনো গুহামানবের মতোই আচরণ করেন। বড় বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো এখনো আটকে আছে আদিম যুগে। এ কথা অস্কারজয়ী অভিনেত্রী শার্লিজ থেরনের। সাম্প্রতিক সময়েও নারী নির্মাতা পরিচালিত ছবিতে অর্থলগ্নির ব্যাপারে চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বদের যে অনীহা ও দ্বিধা, সে প্রসঙ্গেই এই বক্তব্য দিয়েছেন শার্লিজ।


শার্লিজ থেরনের নতুন ছবির নাম অ্যাটমিক ব্লন্ড। এই অ্যাকশন ঘরানার ছবির জন্য অনেক কাঠখড় পোড়াতে হয়েছে তাঁকে। ছবির শুটিং করতে গিয়ে বেশ কয়েকবার মারাত্মক চোট পেয়েছিলেন এই অভিনেত্রী। হাঁটুর হাড়ে পেয়েছিলেন আঘাত, ভেঙে গিয়েছিল দুটি দাঁত। কিন্তু অ্যাকশন ঘরানার এমন ছবিতে নাকি অভিনেত্রীদের পরিশ্রমের কোনো কদর নেই।

তবে এ বছরের ব্যবসাসফল ছবি ওয়ান্ডার ওম্যান-এর প্রশংসায় পঞ্চমুখ শার্লিজ। ছবির নির্মাতা প্যাটি জেনকিনসের ব্যাপারে বলতে গিয়ে ক্লান্ত হচ্ছেন না তিনি। দক্ষিণ আফ্রিকান বংশোদ্ভূত এই হলিউড অভিনেত্রী প্যাটি নির্দেশিত ছবি মনস্টার দিয়েই জিতেছিলেন সেরা অভিনেত্রীর অস্কার। তবে প্যাটির মতো নারী নির্দেশকেরা হলিউডে সুযোগ পাচ্ছেন না। এই আক্ষেপ মনে নিয়ে শার্লিজ বলেন, ‘আমি লজ্জিত এমন একটি ইন্ডাস্ট্রির অংশ হয়ে, যেখানে নারী নির্মাতাদের ওয়ান্ডার ওম্যান-এর মতো বড় বাজেটের ছবি নির্মাণের দায়িত্ব দেওয়া হয় না। নারী নির্দেশকেরা অনেক সময়ই চলচ্চিত্রজগতের ইতিহাস বদলে দেওয়ার মতো কাজ করেছেন। কিন্তু আমরা তা মনে রাখি না। তবে তাঁরা কোনো একবার ব্যর্থ হলে সেটাকে দৃষ্টান্ত হিসেবে বারবার সামনে তুলে আনি। এমন আচরণকে আমার কাছে আদিম যুগের মানসিকতা বলে মনে হয়।

হলিউডের ছবিতে অর্থলগ্নিকারীরা নাকি এখনো গুহামানবের মতোই আচরণ করেন। বড় বড় প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানগুলো এখনো আটকে আছে আদিম যুগে। এ কথা অস্কারজয়ী অভিনেত্রী শার্লিজ থেরনের। সাম্প্রতিক সময়েও নারী নির্মাতা পরিচালিত ছবিতে অর্থলগ্নির ব্যাপারে চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বদের যে অনীহা ও দ্বিধা, সে প্রসঙ্গেই এই বক্তব্য দিয়েছেন শার্লিজ।