একসেঞ্চার বন্ধে আইটি খাতে প্রভাব পড়বে না: পলক

একসেঞ্চার বন্ধে আইটি খাতে প্রভাব পড়বে না: পলক

 বিশ্বখ্যাত ব্যবস্থাপনা পরামর্শক, প্রযুক্তি সেবা ও আউটসোর্সিং কোম্পানি একসেঞ্চার কমিউনিকেশন ইনফ্রাস্ট্রাচার সলিউশন লিমিটেড গতকালই বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। সেখানে ৫৫৬ জন ইঞ্জিনিয়ারের সবার চাকরি গেছে। তবে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ‘একসেঞ্চার বন্ধ হওয়াতে আমাদের আইটি খাতে তেমন কোন প্রভাব পড়বে না।’


তিনি বলেন, ‘এখন বাংলাদেশে আইটি খাত মোটামুটি দাঁড়িয়ে গেছে। আমরা এখন বিলিয়ন ডলার এক্সপোর্টের কাছাকাছি আছি। একসেঞ্চারের ১০ বিলিয়ন ডলারের মতো এক্সপোর্ট ছিল। আমাদের এই সাড়ে পাঁচশত ইঞ্জিনিয়ার তৈরি হয়েছে এবং তাদের অভিজ্ঞতা হয়েছে। এখন আমাদের লিডিং যেসব আইটি কোম্পানিতে আছে এখন তারা সেখানে যাবে এবং তারা নিজেরাও উদ্যোক্তা হবে।’

পলক বলছেন, ‘বড় কোম্পানিতে চাকরি হওয়াতে বা তারা নিজেরাই যদি উদ্যোক্তা হয় সে ক্ষেত্রে আমরা আশা করছি আইটি খাতে তেমন কোন প্রভাব পড়বে না। আমাদের দেশীয় কোম্পানি ছাড়াও যেমন আইবিএম থেকে শুরু করে অন্যান্য অনেক কোম্পানি বাংলাদেশে আসার জন্য আগ্রহ প্রকাশ করছে। তাদের সাথেও আমাদের কথা বার্তা হচ্ছে।’

একসেঞ্চার চলে যাওয়াতে বাংলাদেশে আইটি খাতে বিদেশি বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হবে কিনা? এ প্রশ্নের উত্তরে জুনাইদ আহমেদ পলক প্রিয়.কম-কে বলেন, আমার তা মনে হয় না। ভারতীয় আইটি কোম্পানি উইপ্রোর কারণে একসেঞ্চার বন্ধ হতে পারে কিনা জানতে চাইলে সেটাতেও তিনি ‘না’ সূচক উত্তর দেন।

সব শেষে জানতে চাওয়া হয়, চাকরিচ্যুত কর্মীরা এখন সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছে। তাদের সহযোগিতার ব্যাপারে সরকার কোন ধরনের উদ্যোগ নেবে কিনা? উত্তরে পলক বলেন, ‘আমরা একসেঞ্চারকে বলেছি যাদের চাকরি গেছে ন্যায্যতার ভিত্তিতে তাদের যেন দেনা-পাওনা পরিশোধ করে দেয় হয়।’

বিশ্বখ্যাত ব্যবস্থাপনা পরামর্শক, প্রযুক্তি সেবা ও আউটসোর্সিং কোম্পানি একসেঞ্চার কমিউনিকেশন ইনফ্রাস্ট্রাচার সলিউশন লিমিটেড গতকালই বন্ধের ঘোষণা দিয়েছে। সেখানে ৫৫৬ জন ইঞ্জিনিয়ারের সবার চাকরি গেছে। তবে তথ্যপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ‘একসেঞ্চার বন্ধ হওয়াতে আমাদের আইটি খাতে তেমন কোন প্রভাব পড়বে না।’