পরিধেয় ডিভাইস নির্মাতা মার্কিন প্রতিষ্ঠান ফিটবিট ‘আইকনিক’ স্মার্টওয়াচ উন্মুক্ত করেছে। স্মার্টওয়াচটির দাম নির্ধারণ করা হয়েছে ২২৯ মার্কিন ডলার যা বাংলাদেশি টাকায় প্রায় ১৮ হাজার ৫২৮ টাকা। সিলভার, অরেঞ্জ এবং গ্রে এই তিন রঙে অক্টোবর থেকে বাজারে পাওয়া যাবে এই ডিভাইস।


এই আইকনিক স্মার্টওয়াচ প্রতিষ্ঠানটির আগের স্মার্টওয়াচ ব্লেজ এর চেয়ে আলাদা। কাস্টম অপারেটিং সিস্টেমের এই ওয়াচে তৃতীয় পক্ষের অ্যাপ সমর্থন করবে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে সেপ্টেম্বরে ডেভলপারদের জন্য ফিটবিট অ্যাপ সফটওয়্যার ডেভলপমেন্ট কিট উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে। 

আইকনিক স্মার্টওয়াচ এর ফিচারে রয়েছে আউটডোর ফিটনেস ট্র্যাকিং এর জন্য বিল্ট-ইন জিপিএস সিস্টেম, সারা দিনের জন্য হার্ট রেট সেন্সর, স্লিপ এবং অ্যাক্টিভিটি ট্যাকিং, হার্ট রেট মনিটর এবং সাঁতারে ৫০ মিটার পর্যন্ত পানিরোধী। এছাড়াও এই ওয়াচের নতুন এসপিওটু সেন্সর রক্তের অক্সিজেন লেভেল পরিমাপ করতে সক্ষম। যা পরবর্তীতে নিদ্রাহীনতার কারণ বের করতে ব্যবহার করা যাবে।

এই ফোনের বিশেষ ফিচার হল- এর দীর্ঘস্থায়ি ব্যাটারি। এই ওয়াচে একবার চার্জে টানা চারদিন ব্যাকআপ দিবে। আইকনিক স্মার্টওয়াচ কন্টাক্টলেন্স পেমেন্ট সমর্থন করবে। ফিটবিট পে আমেরিকান এক্সপ্রেস, ভিসা এবং মাস্টার কার্ডের সাথে যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার সমর্থিত ব্যাংকগুলোর সাথে কাজ করবে। 


 

অনেক সময় আমাদের মনে হয় যে, কোন ধরণের ডায়েট না করে, শরীরচর্চা না করেই যদি ওজন ঝরিয়ে ফেলা যেত যাওয়া যেত তাহলে কত ভালোই না হতো! অথবা, চুল খুব পাতলা বলে চুল ঘন করার কোন সহজ সমাধান পাওয়া গেলে কত দারুন হত! তবে জেনে নিন আপনার ঘরে থাকা প্রতিদিনের রান্নায় ব্যবহৃত খুবই সাধারণ একটি উপাদানের নাম, যা কিনা সাহায্য করবে জাদুকরী উপায়ে আপনার শরীরের বাড়তি ওজন কমিয়ে ফেলতে, এবং আপনার শরীরের উপকার করতে। এছাড়াও তার অন্যান্য গুণেরও যেন শেষ নেই। সেই জাদুকরী জিনিসটার নাম আদা!


তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে আদা আপনাকে সুস্থ রাখতে এবং বাড়তি ওজন কমাতে সাহায্য করে থাকে।

১/ ওজন কমাতে সাহায্য করে:


খুব সহজে ওজন কমাতে সাহায্য করে আদা রস। এই জাদুকরী আদার রস তৈরি করতে আপনার লাগবে একদম তাজা কিছু আদার মূল যা এক লিটার পানিতে ১০-১৫ মিনিট ফুটাতে হবে। এরপর পানিটা ছেঁকে নিন। সবচেয়ে ভালো ফলাফল পাবার জন্য প্রতিবার খাওয়ার আগে এই মিশ্রণটি পান করুন।

২/ ত্বক ভালো রাখতে সাহায্য করে:


প্রাকৃতিক উপাদান হিসেবে আদা ত্বকের মরা চামড়া দূর করার জন্যে দারুণভাবে কাজ করে। প্রাকৃতিক ঘন মধুর সাথে আদা মিশিয়ে সেই মিশ্রণ ব্যবহার করুন। এখানে বলে রাখা ভালো যে, আদা যা ত্বকের প্রদাহ কমাতেও সাহায্য করে থাকে। একজিমা রোগীরা জেনে রাখতে পারে, অলিভ অয়েল এর সাথে আদার রস মিশিয়ে ব্যবহার করলে সেটা দারুণ কাজে দেয়।

এছাড়াও আদার তেল শরীরে ক্ষতের দাগ, বয়সের ছাপ দূর করতে সাহায্য করে থাকে। কিছু ফ্রেশ আদা ব্লেন্ড করে বরফের সাথে মিশিয়ে সপ্তাহে একবার ব্যবহার করলে ভালো ফলাফল পাওয়া যাবে।

৩/ ব্যথা দূর করে:


শরীরের পেশীতে টান খেয়েছেন অথবা, বেকায়দায় ঘুমানোর জন্যে শরীরে ব্যথা হয়েছে? তবে কিছু আদা বাটা হালকা গরম করে সরাসরি ব্যথার স্থানে লাগিয়ে নিন। দেখবেন খুব দ্রুত ব্যথার উপশম হচ্ছে। এছাড়াও মাসিকের সময় পেটে ব্যথার সমস্যা থাকলে, মাসিকের শুরুতে এক চা চামচ আদা পাউডার খেয়ে ফেলতে হবে। যা মাসিকের কষ্টদায়ক ব্যথা কমাতে সাহায্য করবে।

৪/ চুলের যত্নে:


পাতলা চুল? মাথায় খুশকির খুব সমস্যা? প্রাকৃতিক আদা আপনার চুলের সকল সমস্যা সমাধান করে আপনাকে দিবে সুস্থ, ঘন, দারুণ চুল। কিছু আদা কুচি কুচি করে কেটে নিয়ে একটি স্প্রে বোতলে নিয়ে পানির সাথে ভালোভাবে মিশিয়ে নিতে হবে। এরপর সেই পানির মিশ্রণ সরাসরি চুলের গোড়ায় ভালোভাবে স্প্রে করতে হবে।

৫/ বমিভাব কমাতে সাহায্য করবে:


গর্ভাবস্থায় অথবা ভ্রমণের কারণে বমি বমি ভাব হলে চিন্তার কিছু নেই। আপনার ঘরেই আছে আদা। এটা প্রমাণিত যে আদা প্রচন্ড বমিভাবও কমাতে সাহায্য করে থাকে।

 

মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো দেশের মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৯৪ শতাংশ ‘মোবাইল ইন্টারনেট’ ব্যবহার করে দাবি করলেও ব্যান্ডউইথের হিসেবে দেখা গেছে এগিয়ে আছে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বা আইএসপিগুলো। দেশে মোট ব্যবহৃত হওয়া ব্যান্ডউইথের মধ্যে ৩১৭ জিবি আইএসপিগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন আর মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন মাত্র ১০৪ জিবি।


মোবাইলফোন অপারেটর, আইএসপি এবং ব্যান্ডউইথ পরিবহনকারী প্রতিষ্ঠান এনটিটিএনগুলোর (নেশন ওয়াইড টেলিকমিউনিকেশন ট্রান্সমিশন নেওয়ার্ক) দেওয়া হিসাব থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মোবাইলফোন অপারেটরগুলো ১০৪ জিবি ব্যান্ডউইথ দিয়ে যে ইন্টারনেট সেবা দিয়ে থাকে তা মোট ব্যান্ডউইথের মাত্র ২৫ শতাংশ। অবশিষ্ট ৭৫ শতাংশ কাভারেজ দিয়ে থাকে আইএসপিগুলো (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার)।

প্রসঙ্গত, সি-মি-উই-ফোর সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে এখন বাংলাদেশ পাচ্ছে ৩০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ। এর মধ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে ২২০ জিবিপিএস, যা সরবরাহ করছে বিএসসিসিএল (বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড)। আর ২২০ জিবিপিএস’র কিছু কম ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করছে দেশের ৬টি আইটিসি (ইন্টারন্যাশনাল টেরেস্ট্রিয়াল ক্যাবল) প্রতিষ্ঠান, যার পুরোটাই আমদানি নির্ভর।

জানতে চাইলে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি’র সভাপতি আমিনুল হাকিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কাভারেজ এরিয়া হিসেবে শতাংশের দিক থেকে আইএসপিগুলো পিছিয়ে থাকলেও আমরা মোবাইল অপারেটরগুলোর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছি ব্যান্ডউইথ বিক্রিতে। দেশের মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৬ শতাংশ (আইএসপিগুলোর গ্রাহক) ওদের ৯৪ শতাংশের চেয়ে বেশি ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে।’

তিনি বলেন, ‘এটা সম্ভব হয়েছে আইএসপিগুলোর প্যাকেজের কারণে। বেশির ভাগ আইএসপিগুলো মাসিক একটি নির্দিষ্ট হারে তার গ্রাহকদের আনলিমিটেড ডাটা (ইন্টারনেট) ব্যবহারের সুযোগ দেয়। ফলে ব্যান্ডউইথের ব্যবহার বেশি। অন্যদিকে মোবাইল অপারেটরগুলো ডাটা ক্যাপিং (সীমিত করে দেওয়া) করে দেওয়ায় ব্যবহার কম হয়। ফলে ওদের কাভারেজ এলাকা এবং ব্যবহারকারী বেশি হলেও ব্যান্ডউইথ সামগ্রিকভাবে আইএসপিরটাই বেশি ব্যবহার হচ্ছে।’

তিনি আরও জানান, বর্তমানে ব্রডব্যান্ড (উচ্চগতি) ইন্টারনেট ব্যবহারের হার ১৫ শতাংশ। এই হার দিন দিন বাড়ছে। ফলে আগামীতে আইএসপি গ্রাহকগুলোর ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের হারও বাড়বে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি প্রকাশিত সর্বশেষ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, বর্তমানে দেশে ৭ কোটি ৩৩ লাখ ৪৭ ব্যবহারকারী ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। এরমধ্যে ৬ কোটি ৮৬ লাখ ৫০ হাজার গ্রাহক মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। এছাড়া ৪৬ লাখ ২২ হাজার গ্রাহক আইএসপি ও পিএসটিএন-এর এবং ৭৫ হাজার রয়েছেন ওয়াইম্যাক্স ইন্টারনেট ব্যবহারকারী।

উল্লেখ্য যে, আইএসপি এবং মোবাইল অপারেটরগুলোতে ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করে আইআইজিগুলো (ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনে

Eid-Special-Hari-Barbecue 

হাড়ি কাবাব, নাম শুনলেই খেতে ইচ্ছা হয়! এমনিতেই কাবাব জাতীয় আইটেমে আমাদের সবার আগ্রহ বেশ, আর হাড়ি কাবাবের তো জুড়ি নেই। অনেকেই ভাবেন হাড়ি কাবাব রান্না করা খুবই কঠিন, তা কিন্তু নয়। কিন্তু আজ আপনাকে জানাবো সহজ রেসিপি দিলেন এবং সে রেসিপি অনুযায়ী রান্না করে দেখুন খুবই মজা হয় হাড়ি কাবাব। আসুন আজকে আপনাকে জেনে নেই সহজ রেসিপি।


উপকরণ :


হাড় ছাড়া গরুর মাংস – ১ কেজি
টক দই – আধা কাপ
পেয়াজ বাটা – ১ কাপ
পেয়াজ কুচি – ২ টেবিল চামচ (বেরেস্তার জন্য)
রসুন বাটা – ২ টেবিল চামচ
আদা বাটা – ১ টেবিল চামচ
কাচামরিচ বাটা – ১/২ চা চামচ
জয়ত্রী বাটা – ১/৪ চা চামচ(ইচ্ছা)
জায়ফল বাটা – ১/৪ চা চামচ(ইচ্ছা)
গোল মরিচের গুঁড়া – ১/২ চা চামচ
লাল মরিচ গুঁড়া – ১ টেবিল চামচ
জিরা বাটা – ১ চামচ
ধনে গুঁড়া(টেলে গুড়া করা) – ২ চা চামচ
হলুদ গুঁড়া – ১ চা চামচ
কাচামরিচ – ২ টা(ইছামত)
চিনি – ১ চা চামচ(স্বাদ অনুযায়ী)
ভিনেগার (অথবা লেবুর রস) – ১ টেবিল চামচ
তেল – দেড় কাপ
তেজপাতা – ২ টি
এলাচ – ৩ টি
দারুচিনি – ৪ টুকরা
লবঙ্গ – ৪/৫ টি
লবণ স্বাদ মতো

প্রণালি :

হাড়ি কাবাব করতে হবে দুই ধাপে। ১ম ধাপে প্রস্তুতি পর্ব, মাংস মেরিনেট করে ২য় ধাপে রান্না করতে হবে।

১ম ধাপ - মাংস ধুয়ে পানি ঝরিয়ে নিন। এবার বাটিতে মাংসের টূকরাগুলোতে আস্ত কাচামরিচ আর ভিনেগার বাদে বাকী সমস্ত মশলা এবং অন্য উপকরণগুলো দিয়ে ভাlO করে মেখে নিন মেরিনেট করার জন্য। ভাল করে মশলা মাখানো হলে এবার ভিনেগার (অথবা লেবুর রস) মেশান। এ অবস্থায় মাখানো মাংস ২ ঘন্টা (৫-৬ ঘণ্টা রাখলে আরো ভালো)ফ্রিজে রাখুন (ডিপ ফ্রিজে রাখবেন না)।

২য় ধাপ – রান্নার জন্য এবার হাড়িতে দেড় কাপ তেল দিয়ে গরম হলে পেয়াজ কুচি দিয়ে বাদামী করে ভেজে বেরেস্তা করুন।হাফ বেরেস্তা আলাদা একটি পাত্রে তুলে রাখুন পরে কাবাবের উপর ছড়িয়ে দিতে হবে।

এবার হাড়িতে বাকি তেলের উপর মেরিনেট করা মাংস ছেড়ে দিয়ে খানিকক্ষন নাড়ুন। কয়েক মিনিট পরে আস্ত কাচামরিচ ও সামান্য পানি দিয়ে দিন। নেড়ে ভালো করে মিশিয়ে দিয়ে পাতিলে ঢাকনা তুলে দিয়ে চুলার আচঁ কমিয়ে দিন। এ অবস্থায় রান্না হয়ে মাংস সিদ্ধ হবে। মাঝে মাঝে ঢাকনা তুলে নেড়ে দিবেন। মাংস সিদ্ধ হয়ে পানি শুকিয়ে এলে আরেকবার নেড়ে দিন, তুলে রাখা বেরেস্তা দিয়ে কিছুক্ষন দমে রাখুন। কিছুক্ষন পর মাংসের উপর তেল উঠে এলে কাবাবের হাড়ি চুলা থেকে নামিয়ে রাখুন। হাড়ি কাবাব তৈরি। দারুন স্বাদের এই হাড়ি কাবাব নান দিয়ে খেতে বেশি স্বাদ লাগে।

টিপ্স :
. গরুর রানের মাংস হলে ভালো হয়। চর্বি না থাকাই ভালো।
. এটাতে অনেকখানি অয়েল ইউজ করা হয় তাই যারা ডায়েট করছেন তাদের জন্য বেটার না।
. পেয়াজ অনেকখানি লাগবে। পেয়াজ ছিলে কিছুক্ষন পানিতে রাখলে চোখে বেশি ধরবে না। অথবা কয়েক বারে কাটতে পারেন।
. গরম মসলা একটু হাল্কা করে ভেজে পিষে দিলে আরো ভালো
. সব মসলা দিয়ে অনেকখন ধরে মাখলে স্বাদ বেশি ভালো হবে।

 The-picture-that-the-boy-gave-to-the-boy-to-save-his-brother

রেসলিং রিংয়ের গণ্ডি পেরিয়ে হলিউড জয় করা ডোয়াইন জনসনের (দ্য রক) ‘সান আন্ড্রিয়াস’ ছবিটি বাঁচিয়ে দিলো এক শিশুর প্রাণ! ভাবছেন কীভাবে?


ওই ছবি দেখে শেখা সিপিআর পদ্ধতিতে নিজের ছোট ভাইয়ের জীবন বাঁচিয়েছে ১০ বছর বয়সী জ্যাকব ও’কনোর। ডেট্রয়েট শহরে পানিতে ডুবতে বসেছিল জ্যাকবের ভাই ২ বছর বয়সী ডিলান।

এজন্য সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ওই বালকের প্রশংসা করেছেন ডোয়াইন জনসন। তিনি লিখেছেন, ‘জ্যাকব নামে একটা ছেলে আছে। সে সত্যিকারের হিরো। ভাইকে খুঁজে পাচ্ছিল না ছেলেটি। পরে তাকে সুইমিং পুলে ডুবন্ত অবস্থায় পায় জ্যাকব। তড়িঘড়ি ডিলানকে পানি থেকে তোলে সে। এরপর ঠান্ডা মাথায় সিপিআর প্রক্রিয়া কাজে লাগিয়েছে সে। ছেলেটি এটা শিখেছে নিজের প্রিয় একটি ছবি দেখে।’
জ্যাকবকে উদ্দেশ্য করে ডোয়াইন আরও লিখেছেন, ‘তোমার সঙ্গে দেখা করতে পেরে এবং তোমাকে নিয়ে আমি খুব গর্বিত। তোমার মতো বাস্তবের নায়কের সঙ্গে হাত মেলাতে পারা সৌভাগ্যের।’

এবিসিটু নিউজকে জ্যাকব জানায়, ‘সান অ্যান্ড্রিয়াস’-এর একটি গুরুত্বপূর্ণ দৃশ্যে ডোয়াইন জনসন একজনের প্রাণ বাঁচায়। সে বলেছে, ‘ছবিটির গল্পে তখন ভূমিকম্প হয়। এ কারণে সুনামি দেখা দেয়। নিজের মেয়েকে ডুবে যেতে দেখে তাকে পানি থেকে তুলে এনে একই পদ্ধতিতে তার জীবন বাঁচান দ্য রক। আমিও ঠিক তাই করেছি।’

ভাইয়ের জীবন বাঁচানোর পুরস্কারস্বরূপ ডোয়াইন জনসনের পরবর্তী ছবি ‘স্কাইস্ক্র্যাপার’-এর শুটিংয়ে তার সঙ্গে দেখা করার সুযোগ পাচ্ছে জ্যাকব। দ্য রক জানিয়ে রেখেছেন— ‘আমার ছবির সেটে তুমি এলে যত খুশি চকোলেট খেতে পারো। কোনও দাম দিতে হবে না। তোমার সঙ্গে আগামী সপ্তাহে দেখা করতে চাই বন্ধু। আশা করছি, তোমার ভাই ডিলানও উড়ে আসবে, কারণ তাকেও দেখার ইচ্ছে আছে। সব বন্দোবস্ত করার জন্য আমার লোকেরা তোমাদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করবে।’

ব্র্যাড পিটন পরিচালিত ‘সান আন্ড্রিয়াস’ মুক্তি পায় ২০১৫ সালে। এতে ডোয়াইন জনসনকে দেখা গেছে হেলিকপ্টার পাইলটের চরিত্রে। ভয়াবহ ভূমিকম্পের পর নিজের মেয়েকে খুঁজে বেড়ান তিনি। ১১ কোটি ডলার বাজেটে নির্মিত ছবিটি আয় করে ৪৭ কোটি ৪০ লাখ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশের প্রেক্ষাগৃহেও দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে ছবিটি।

Twin-earnings-from-the-tower-near-the-border 

বিস্ময়কর একটি তথ্য জেনেছে টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন-বিটিআরসি। দেশের শীর্ষস্থানীয় দুটি মোবাইল ফোন অপারেটরের যে সব টাওয়ার বা বিটিএস সীমান্ত ঘেঁষা সেগুলো থেকে আয় সীমান্তের ভেতরকার টাওয়ারের তুলনায় বেশি!একীভূত হওয়া কোম্পাানি রবি ও এয়ারটেল এবং বাংলালিংকের ক্ষেত্রে এ তথ্য পেয়েছে কমিশন । তবে গ্রামীণফোনের বেলায় তথ্যটি বাকি দুই অপারেটরের সঙ্গে মিলছে না।


সম্প্রতি বাংলালিংকের সীমান্তবর্তী শতাধিক বিটিএস নিয়ে কাজ করতে গিয়ে বিটিআরসি এ তথ্য পেয়েছে। এ পরিসংখ্যানে দেখা যায়, সীমান্ত জেলাগুলোতে সবচেয়ে শক্ত অবস্থানে আছে সম্মিলিত রবি-এয়ারটেল।

৩১ সীমান্ত জেলায় তাদের টাওয়ারের সংখ্যা ১০ হাজার ২৮৭। সেখানে বাংলালিংকের টাওয়ার সংখ্যা মাত্র তিন হাজার ৪৪৬। আর গ্রামীনফোনের আছে তিন হাজার ৮১১ টাওয়ার।

সীমান্ত জেলার এ টাওয়ারগুলোর প্রতিটি থেকে ২০১৬ সালে রবির আয় ছিল গড়ে মাসে ১ লাখ ৮৭ হাজার ৩১১ টাকা। অথচ একেবারে সীমান্ত লাগোয়া টাওয়ারগুলোর প্রতিটি থেকে তাদের আয় গড়ে দুই লাখ ৮৭ হাজার ৭৩৯ টাকা।

বিটিআরসির সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা এ তথ্যকে বিস্ময়কর বলে মন্তব্য করেন। তারা বলেন, এর পেছনে নানা কারণ থাকতে পারে। তবে সীমান্তের ওপারের লোকেরাও যে বাংলাদেশের মোবাইল ফোন অপারেটরদের সিম ব্যবহার করছেন সেটা এক রকম নিশ্চিত।রবি শুধু ২০১৬ সালেই সীমান্ত জেলাগুলোতে এক হাজার ১৭ টাওয়ার স্থাপন করেছে।

এর আগে বিটিআরসি একবার সীমান্তে রবির অংশীদার এয়ারটেলের ১৯১ টাওয়ার খুজে পেয়েছিল। সেবার নানা কারণে তাদেরকে কেবল সতর্ক করে ছেড়ে দেওয়া হয়। পরে এই একই সুবিধা পায় বাংলালিংকও। তবে এবার ১৭ কোটি টাকা জরিমানার সম্মুখীন হতে হয়েছে এক সময়ের দ্বিতীয় গ্রাহক সেরা অপারেটরটিকে।

বাংলালিংকের সীমান্ত জেলাগুলোর প্রতিটি টাওয়ার থেকে গড়ে মাসে আয় আসে দুই লাখ ৭৭ হাজার ৩৯৫ টাকা। অথচ সীমান্তের তিন কিলোমিটারের মধ্যে আছে এমন টাওয়ারগুলোর প্রতিটি থেকে তাদের মাসিক আয় হয় গড়ে তিন লাখ ৩৫ হাজার টাকারও বেশি।সাম্প্রতিক সময়ে সীমান্ত এলাকায় শক্তি বাড়িয়েছে গ্রামীণফোন। গত বছর তারা সীমান্ত জেলায় ৯০৬ টাওয়ার স্থাপন করেছে।

সীমান্ত জেলাগুলোর প্রতিটি টাওয়ার থেকে তাদের গড় আয় মাসে মাত্র ৮৮ হাজার ৮৮৯ টাকা। সেখানে সীমান্তবর্তী টাওয়ারের প্রতিটি থেকে তাদের মাসের আয় আরও কম মাত্র ৩৫ হাজার ৩৯১ টাকা।

বিটিআরসি বলছে, তারা আগে থেকেই লক্ষ্য করছিলেন কিছু অপারেটরের সীমান্তে বাড়তি নেটওয়ার্ক আছে এবং ব্যবসাও ভালো। তবে এখন পর্যন্ত তারা সুনির্দিষ্ট কারণ অনুসন্ধানে নামেননি।

‘তবে সময় এসেছে বিষয়টি নিয়ে খোঁজ নেওয়ার-’ বলে মন্তব্য করেন কমিশনের স্পেকট্রাম বিভাগের এক শীর্ষ কর্মকর্তা।

Sakib-is-giving-his-honor-to-the-flood-victims 

এবারের ঈদে মুক্তির মিছিলে আছে ঢালিউড সুপারস্টার শাকিব খানের দুটি ছবি— ‘রংবাজ’ এবং ‘অহংকার’। এগুলোর প্রচারণার অংশ হিসেবে বেশ কয়েকটি টিভি অনুষ্ঠানের অতিথি হয়েছেন তিনি। এসব আয়োজন থেকে প্রাপ্ত সম্মানী বন্যার্তদের সাহায্যার্থে দেবেন বলে জানিয়েছেন জনপ্রিয় এই অভিনেতা।


‘ঈদ উইথ মুভি স্টার’ নামের একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়ে শাকিব বলেছেন, ‘এবারের ঈদে বিভিন্ন আড্ডার অনুষ্ঠান থেকে সম্মানী যা-ই পেয়েছি সেগুলোর সঙ্গে আরও কিছু টাকা যোগ করে বন্যার্তদের সাহায্যার্থে দিতে চাই। তাই ছোট পর্দার জন্য কাজ করার সময় মনে হয়েছে একটি নৈতিক দায়িত্ব পালন করছি।’

বন্যার্তদের সাহায্যার্থে মহৎ উদ্যোগ নেওয়া প্রসঙ্গে শাকিবের ভাষ্য, ‘দেখুন দেশের অনেক এলাকার মানুষ আমার নতুন ছবি দেখতে পারবেন না। তারা হয়তো জীবন নিয়েই সংকটে আছেন। সেক্ষেত্রে তাদের পাশে দাঁড়ানো আমার গুরুদায়িত্ব মনে করছি।’

কথোপকথনধর্মী অনুষ্ঠানটিতে খালি গলায় নিজের ছবির গানের অংশবিশেষ গেয়ে শুনিয়েছেন শাকিব। ক্যারিয়ারের সাম্প্রতিক বিভিন্ন ইস্যু নিয়েও কথা বলেছেন তিনি। নওশীনের সঞ্চালনায় ‘ঈদ উইথ মুভি স্টার’ প্রযোজনা করেছেন সুদীপ্ত সরকার। এশিয়ান টিভিতে ঈদের তৃতীয় দিন সন্ধ্যা ৭টা ১০ মিনিটে প্রচার হবে এটি।

 


ঈদ কিংবা বিয়ে যেকোনও অনুষ্ঠানেই নারীর সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে শাড়ির জুড়ি নেই। আর ঈদ ও বিয়ের অনুষ্ঠানে আভিজাত্যের ছোঁয়া দিতে গুলশান শাড়ি মিউজিয়াম সাজিয়েছে তাদের নতুন কালেকশন। ওয়েডিং লেহেঙ্গা ও বুটিকস লেহেঙ্গার নান্দনিক কালেকশনের পাশাপাশি রয়েছে ঢাকাই জামদানি, খাদি বেনারসি, বেনারসি সিল্ক, জর্জেট বেনারসি রয়েছে তাদের কালেকশনে।


এছাড়াও থাকছে ভারতীয় ফ্যাশন ডিজাইনার মনীশ মালহোত্রা ও সব্যসাচির ডিজাইন করা ট্রেন্ডি ও ফ্যাশনেবল পোশাকের কালেকশন।

নিয়মিত আয়োজনে থাকছে গাদোয়াল, তসর-সিল্ক, কোরা সিল্ক, জর্জেট, ক্রেপ, কাঞ্জিভরাম সিল্ক, ব্যাঙ্গালোর সিল্ক, তন্তুজ তাঁত, দেশীয় তাঁতের শাড়ি, কোটা শাড়ি ও মাইসুর সিল্ক শাড়ি।

সম্প্রতি গুলশান শাড়ি মিউজিয়াম ক্রেতাদের কেনাকাটা সহজ করতে সুলভ মূল্যে একদর সেবা চালু করেছে।

বিয়ে হোক বা ঈদ আয়োজন শাড়ি কিনতে নির্ভরযোগ্যতা খুঁজছেন যারা তাদের জন্য গুলশান শাড়ি মিউজিয়াম ভরসার স্থান।

The-girls-who-make-mistakes-in-the-relationship-of-love 

চারপাশের সকলের সাথে যোগাযোগ করার ক্ষেত্রে আমাদের প্রত্যকের আলাদা কিছু গুণ রয়েছে। সাধারণত আমাদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের ভিত্তিতে আমাদের আচরণ নির্ধারিত হয়ে থাকে। যেখানে আমরা সকলেই আলাদা স্বভাব এবং চরিত্রের অধিকারী সেখানে কেউ হয়ে থাকি খুব চুপচাপ, আবার কেউ কথা কথা বলতে খুব ভালোবাসি! কেউ হয়তো ঘুরতে ভালোবাসি, অথবা কেউ ভালোবাসি ঘরে বসে বই পড়তে। তবে এতো বৈচিত্র্যের ভেতরে কিছু সাধারণ চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য থাকে সকলের মাঝে যা কিনা অনেক সময় নিজেদের ভালোবাসার সম্পর্কগুলোর প্রতি হুমকি হয়ে দাঁড়ায়।


একটা ভালোবাসার সম্পর্কের ক্ষেত্রে চাওয়া-পাওয়া এবং প্রত্যাশা থাকে দু’দিক থেকেই অনেক বেশী। প্রতিটা সময়ে সকলে আশা করে থাকেন অপরপক্ষ থেকে যেন নিজের মনের মতো করে সবটুকু পাওয়া যায়। কিন্তু সকলের মাথায় এই চিন্তাটাও থাকা দরকার- আমরা নিজেরা অপরপক্ষকে ঠিকভাবে বুঝতে পারছি তো? সে কী চাচ্ছেন অথবা কী অপছন্দ করছেন সেটা আমরা জানতে পারছি তো?

একটা ভালোবাসার সম্পর্কের ক্ষেত্রে উভয় পক্ষ থেকেই ভুল হতে পারে। তবে মেয়েদের দিক থেকে কিছু সাধারণ ভুল হয়ে থাকে বলে অনেক ক্ষেত্রেই ভালোবাসার সম্পর্কে নানান ধরণের সমস্যা সৃষ্টি হয়। তেমনই কিছু ভুল তুলে ধরা হলো।

১/ মেয়েরা নিজের মূল্য বুঝতে চান না

বেশীরভাগ মেয়েরাই খারাপ ছেলেদের প্রতি বেশী আকৃষ্ট হয়ে থাকেন। এমনকি অনেকেই আরেকটি ভালোবাসার সম্পর্কে জড়িত ছেলেদেরকে পছন্দ করে থাকেন। কিন্তু তারা নিজেরা নিজেদের প্রশ্ন করতে ভুলে যান, তারা আসলে কি চান! তারা নিজেদের মূল্য দিতে ভুলে যান এবং নিজেদের তারা খুব ছোট ভেবে থাকেন। বেশীরভাগ সময়ে মেয়েরা আতংকে থাকেন এই ভুল ধারণা ভেবে যে, তাদেরকে কখনোই কেউ ভালোবাসবে না!

২/ অনেক মেয়েই সঙ্গীর ব্যক্তিগত ব্যাপারকে সম্মান করেন না

পুরুষরা সাধারণত তাদের কঠিন এবং খারাপ সময়ে খুব চুপচাপ হয়ে যান এবং সেই বিষয় নিয়ে কথা বলতে অপছন্দ করেন এবং চুপচাপ থেকে সেই সমস্যা নিয়ে কাজ করে সমাধান করতে পছন্দ করেন। কিন্তু মেয়েদের ক্ষেত্রে সেই ব্যপার একদম ভিন্ন। তারা তাদের চান তাদের সঙ্গীরা যেন তাদের সমস্যা নিয়ে কথা বলেন, তাকে জানান। অনেক ভুল বোঝাবুঝি এখান থেকেই শুরু হয়।

৩/ সঙ্গীকে বদলানোর চেষ্টা করেন মেয়েরা

আপনার পছন্দের মানুষটার সাথে ভালোবাসার সম্পর্কে যেতে চাইলে, তিনি যেমন তেমনভাবেই তাকে গ্রহণ করা উচিৎ। তার ছোটখাটো কোন অভ্যাস বদলাতে চাইলে প্রথমে আপনি তাকে যত্ন সহকারে বোঝাতে পারেন। অতিরিক্ত সমালোচনা করলে তার মনে বিরূপ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হবে। বরং তাকে বুঝিয়ে এবং তাকে অনুপ্রাণিত করে তার বাজে অভ্যাস বদলাতে সাহায্য করতে পারেন আপনি।

৪/ সম্পর্কে খুব দ্রুত এগোতে চান অনেকেই

যে কোন সম্পর্কেই সকলের উচিৎ ধীরে সুস্থে সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া। ভালোবাসার ক্ষেত্রেও এই কথা প্রযোজ্য তো বটেই বরং এক্ষেত্রে মেয়েদের উচিৎ আরো বেশী সময় নিয়ে তাদের সঙ্গীকে বোঝা। বেশীরভাগ সময়ে মেয়েরা যে ভুলটা করেন, খুব অল্প সময়ের মাঝেই তারা ভালোবাসার মানুষটার প্রতি মানসিকভাবে সম্পূর্নভাবে নির্ভরশীল হয়ে পড়েন। কিন্তু অত অল্প সময়ে তিনি হয়তো জানতেও পারলেন না, যার সাথে মানসিকভাবে জড়িয়ে পড়ছেন, তিনি তার জন্যে সঠিক মানুষ কি না!

৫/ অনেক বেশী আশা করেন

বেশীরভাগ নারীরা সম্পর্কে থাকা অবস্থায় অনেক বেশী আশা এবং প্রত্যাশা করে থাকেন তাদের সঙ্গীদের কাছ থেকে। তবে সমস্যা হয়ে দাঁড়ায় যখন দেখা যায় যে, তাদের বেশীরভাগ প্রত্যাশা খুব কাল্পনিক ধাঁচের হয় অথবা সিনেমার মতো হয়। তারা বুঝতে চেষ্টা করেন না যে, তাদের সঙ্গী বাস্তবতার সাথে লড়াই করে চলা একজন মানুষ।

ভালোবাসার সম্পর্ক হয়ে থাকে অনেক বেশী প্রতিকূল অবস্থা পাড়ি দেওয়ার সময় একে অন্যের সহযাত্রী হওয়ার জন্য। একে অন্যের উপর অকারণে প্রত্যাশার চাপ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্যে নয়। 

৬/ অন্যের সম্পর্কের সাথে  তুলনা

আপনার জীবন এবং আপনার সম্পর্ককে অন্যের সম্পর্কের সাথে তুলনা করবেন না কখনোই। কারণ সকলের জীবন ধারা এবং সম্পর্কের ধরন ভিন্ন।

৭/ নিজের খেয়াল রাখতে ভুলে যান

সম্পর্কে থাকাকালে অনেক সময় মেয়েরা তাদের নিজের প্রতি যত্ন নেওয়ার কথা, নিজের প্রতি খেয়াল রাখার কথা ভুলে যান। অথচ, প্রত্যেক মানুষের উচিৎ নিজের প্রতি সবসময় যত্নশীল থাকা।

Special-discount-on-the-occasion-of-the-Elyph-laptop-Eid 

যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক প্রযুক্তি পণ্যের ব্র্যান্ড আইলাইফের সাশ্রয়ী দামের ল্যাপটপ জেড এয়ার এবং জেড নোটে ঈদ অফার ঘোষণা করেছে পরিবেশক সুরভী এন্টারপ্রাইজ।


এ অফারের আওতায় সম্পূর্ণ টাচ স্ক্রিন সমৃদ্ধ কনভার্টেবল ল্যাপটপ জেড নোটে থাকছে দুই হাজার টাকা ছাড় এবং উপহার হিসেবে বিনামূল্যে থাকছে সুদৃশ্য ল্যাপটপ ব্যাগ। জেড নোট ডিভাইসটি ঈদ উপলক্ষে ২৪ হাজারের পরিবর্তে ২২ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে। এ ছাড়া ১৪ ইঞ্চি পর্দার জেড এয়ার ডিভাইসের সঙ্গে উপহার হিসেবে থাকছে আকর্ষণীয় ল্যাপটপ ব্যাগ। অফারটি ঈদ পর্যন্ত চলমান থাকবে। আইলাইফের প্রতিটিতে রয়েছে এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

হালকা ও আর্কষণীয় ডিজাইনের ১৪ ইঞ্চি এইচডি ডিসপ্লে ও পাওয়ারফুল ইন্টেল প্রসেসর বিশিষ্ট এই ল্যাপটপে রয়েছে জেনুইন উইন্ডোজ ১০ অপারেটিং সিস্টেম, ২ জিবি র‌্যাম এবং ৩২ জিবি ইন্টার্নাল মেমোরি। এতে আরও ১২৮ জিবি মাইক্রো এসডি কার্ড লাগানো যাবে। এ ছাড়া আনলিমিটেড এক্সটারনাল হার্ড ডিস্ক ও পেনড্রাইভ ব্যবহার করা যাবে। ১.৫৩ কেজি ওজনের ল্যাপটপটিতে রয়েছে ওয়াই ফাই কানেকটিভিটি, ২টি ইউএসবি পোর্ট টু, মাইক্রো এইচডিএমআই ও এসডি কার্ড পোর্ট।

জেনুইন অপারেটিং সিস্টেম থাকায় খুব ভাল স্পিড পাবেন, সহজে ভাইরাস আক্রমণ করবে না, খুব দ্রুত অফিসের গুরুত্ত্বপূর্ণ ইমেইল চেকিং, ইন্টারনেট ব্রাউজিং, এইচ ডি মুভি দেখাসহ অন্যান্য কাজ করা যাবে, এটা আপনার প্রতিদিনের কাজকে আরও সহজ ও আনন্দদায়ক করে তুলবে। মাইক্রোসফট অফিস এর কাজ, যেমন এমএস ওয়ার্ড, এক্সেল, প্রেজেন্টেশন, ইন্টারনেট ব্যবহারের পাশাপাশি ফটোশপ, অটো-ক্যাডের কাজও করা যায়। শিক্ষার্থীর পাশাপাশি অফিস এবং ব্যক্তিগত কাজেও  ডিভাইসটি ব্যবহার করা যাবে।

সরাসরি ইউনাইটেড আরব আমিরাতের দুবাই থেকে আমদানি করায় এই ল্যাপটপে আরবি এবং ইংলিশ কিবোর্ড ব্যাবহার করা হয়েছে।

এই ল্যাপটপের কেবল মুভি দেখা বা গান শোনার বিনোদন নয়, দূর দেশের বন্ধু কিংবা প্রবাসী স্বজনদের সঙ্গে চুটিয়ে আড্ডা দিতে পারবেন ভাইবার, ইমু, স্ক্যাইপি কিংবা গুগল চ্যাটে। এতে ব্যবহার করা হয়েছে ১০০০০ এমএএইচ ব্যাটারি, যা দিয়ে টানা ৭-৮ ঘণ্টা কাজ করা যাবে।

উভয় ল্যাপটপ স্টার টেক (আই ডি বি ভবন, উত্তরা, মাল্টি প্লান সেন্টার, চট্টগ্রাম, রংপুর), রাইয়ান্স কম্পিউটারস (আইডিবি ভবন, উত্তরা, মাল্টি প্লান সেন্টার, ইস্টার্ন প্লাস, চট্টগ্রাম, রংপুর, রাজশাহী, বগুড়া, ময়মনসিং) এবং কম্পিউটার ভিলেজের (মতিঝিল, চট্টগ্রামের আগ্রাবাদ, সেন্ট্রাল শপিং সেন্টার জি ই সি মোড়) সবগুলো শো রুমে পাওয়া যাচ্ছে। আই লাইফের প্রতিটি ল্যাপটপের সঙ্গে পাবেন ১ বছরের ব্র্যান্ড ওয়ারেন্টই।

The-worst-4-extensions-of-the-Chrome-browser-do-not-forget-to-try 

সার্চ জায়ান্ট গুগল তাদের ব্রাউজারে অনেক কাজের এক্সটেনশন প্রধান করে থাকে। ব্যবহারকারীরা অনেকেই ক্রোম ব্রাউজারে অনেক দরকারি এক্সটেনশন ব্যবহার করে থাকেন। তবে এসব দরকারি এক্সটেনশনের বাহিরেও এমন কিছু এক্সটেনশন রয়েছে যা আপনার কম্পিটারের নিরাপত্তার জন্য হুমকিস্বরূপ।


প্রযুক্তি বিষয়ক সাইট দ্য নেক্সট ওয়েব ৫টি খারাপ এক্সটেনশনের একটি তালিকা প্রকাশ করেছে।

এনকেইজ

এই এক্সটেনশন ব্যবহার করলে আপনার ইন্টারনেটের সকল পেজের সকল ছবি নিকোলাস কেইজ এর ছবিতে রূপান্তরিত হয়ে যাবে। তাই এই এক্সটেনশন্টি পরীক্ষা করে না দেখার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। 
 


এভিজি ওয়েব টিউনআপ

এভিজি ক্রোম এক্সটেনশন সবসময় আপনাকে ভাইরাস, অ্যাডওয়্যার এবং অন্যান্য ব্রাউজার নিরাপত্তা হুমকি থেকে রক্ষা করে কিন্তু এর ব্যবহারকারীর সাথে চুক্তির মধ্যে রয়েছে ব্রাউজিং ইতিহাস সংগ্রহ করা এবং সেই তথ্য বিক্রি করতে পারা। 


ক্যানাফি

আর যাই করুন অনুগ্রহ করে এই এক্সটেনশনটি ডাউনলোড না করুন। কেননা রেসলার জন ক্যানাকে আপনি যতই পছন্দ করেন না কেন তারাস্বরে আপনার অডিও স্পিকারে কাজের সময় এই চিৎকার আপনাকে বিরক্ত করবে। 
 


ট্রাম্প রিঅ্যাকশন

এই এক্সটেনশনে আপনার ফেসবুকের রিঅ্যাকশন হয়ে যাবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের বিভিন্ন ধরণের ছবিতে। যারা রিভিউ দেয় তারা বলছে, এটি এখন কাজ করছে না। 

 


গতকাল ২৭ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের কুইন্স প্যালেস অডিটরিয়ামে আন্তর্জাতিক একটি লোকসঙ্গীত সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করেছেন বাংলাদেশি অভিনেত্রী এবং প্রয়াত কথা সাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের স্ত্রী মেহের আফরোজ শাওন। অভিনেত্রী শাওনের ফেসবুকে দেওয়া একটি স্ট্যাটাসের প্রেক্ষিতে জানা গিয়েছে যে- সম্মেলনটি তাকে বেশ অবাক করেছে, কেন না এই সম্মেলন গত ১৬ বছর ধরেই অনুষ্ঠিত হচ্ছে। প্রতিবারের সম্মেলন কোনো একজন গুণী লোকসঙ্গীত শিল্পী কিংবা গীতিকারের নামে উৎসর্গ করা হয়। বিগত বছরগুলোতে অনুষ্ঠিত সম্মেলনগুলো রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, কাজী নজরুল ইসলাম এবং আব্বাস উদ্দিনের মতোগুণী বাংলাভাষী ও বাংলাদেশি ব্যক্তিদের উৎসর্গ করা হয়েছে। 

 


এবারের সম্মেলন উৎসর্গ করা হয়েছে হুমায়ূন আহমেদকে। হুমায়ূন আহমেদ তার নিজের সৃষ্টি চলচ্চিত্র কিংবা নাটকে বিরল সব লোকসঙ্গীত ব্যবহার করে শহুরে মানুষদের কাছে লোকসঙ্গীত পৌঁছে দিয়েছেন এবং নিজেও কিছু অসাধারণ লোকগান রচনা করে গিয়েছেন বিধায়, কৃতজ্ঞতাস্বরূপ এই সম্মান দেখানো হয়েছে হুমায়ূন আহমেদের প্রতি।

মেহের আফরোজ শাওনের লেখা উক্ত স্ট্যাটাস থেকে আরও জানা গিয়েছে যে- উক্ত সম্মেলনে আন্তরিকতার কোনো কমতি ছিল না। এছাড়াও আমেরিকান একজন বাদ্যযন্ত্র শিল্পী ইউটিউব থেকে হুমায়ূন আহমেদের একটি প্রিয় গান তুলেছেন নিজের সেক্সোফোনে, যা মুগ্ধ করেছে মেহের আফরোজ শাওনকে

মেহের আফরোজ শাওন নিজেও গান পরিবেশন করছেন উক্ত আয়োজনে।

 Recipe-Banana-French-Toast


সকালের নাস্তায় স্বাস্থ্যকর ব্যানানা ফ্রেঞ্চ টোস্ট বানিয়ে ফেলতে পারেন। এটি পছন্দ করবে শিশুরাও। জেনে নিন কীভাবে বানাবেন।

উপকরণ


পাকা কলা- ৩টি
চিনি- ২ টেবিল চামচ
ময়দা- ১ কাপ
মাখন- পরিমাণ মতো
পাউরুটি- ১০টি
দুধ- আধা কাপ
ভ্যানিলা এসেন্স- ২ চা চামচ

প্রস্তুত প্রণালি

ব্লেন্ডারে ময়দা, দুটি কলা, চিনি ও ভ্যানিলা এসেন্স দিয়ে ডো তৈরি করুন। দুধ দিয়ে নেড়ে নিন।  

চুলায় মাঝারি আঁচে ফ্রাই প্যান দিয়ে মাখন গরম করুন। এক পিস পাউরুটি ময়দা ও কলার ডোতে ডুবিয়ে প্যানের মাখনে ভেজে নিন। একইভাবে সবগুলো পাউরুটি ভাজুন। সোনালি রং হয়ে গেলে নামিয়ে কলার স্লাইস দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন ব্যানানা ফ্রেঞ্চ টোস্ট। 

Samsung-Galaxy-Note-8-vs-iPhone 

 দক্ষিণ কোরিয়ার প্রতিষ্ঠান স্যামসাং এর সবচেয়ে শক্তিশালি স্মার্টফোন গ্যালাক্সি নোট ৮ উন্মুক্ত হয়েছে। আর প্রতিষ্ঠানটির নতুন এই নোট ৮ দিয়ে গ্রাহক এমন অনেক কাজ করতে পারেন যা অ্যাপলের আইফোন দিয়ে করা সম্ভব নয়। এবার দেখা নেওয়া যাক নোট ৮ এর এমন কিছু ফিচার যা আইফোনে নেই

মেমোরি কার্ডের মাধ্যমে অতিরিক্ত স্টোরেজ সুবিধা

৬৪ জিবি ইনবিল্ট স্টোরেজের গ্যালাক্সি নোট ৮ ফোনে ২৫৬ জিবি পর্যন্ত মেমোরি বাড়ানো যাবে। কিন্তু আইফোনে শুধু রয়েছে ইনবিল্ট স্টোরেজ।
 


স্ক্রিনে লেখার জন্য স্টাইলাস

গ্যালাক্সি নোট ৮ এ লাইভ মেসেজ নামের একটি ফিচার রয়েছে। এই ফিচারে ব্যবহারকারির তৈরি অ্যানিমেটেড জিফ টেক্সট মেসেজসহ ফেসবুক, টুইটার এবং অন্যান্য অ্যাপে শেয়ার করা যাবে। আর আইফোনে কিছু তৃতীয় পক্ষের স্টাইলি রয়েছে ব্যবহারের  জন্য। আর সেখানে স্যামসাং এর এস পেনের মতো সকল ফিচার ও নেই। 
 

আইরিশ স্ক্যানার

গ্যালাক্সি নোট ৮ এ ফিঙ্গারপ্রিন্ট এবং পাসওয়ার্ড ছাড়াও আইরিশ স্ক্যানার দিয়ে ফোন আনলক করা যাবে। তার আইফোনে এখন পর্যন্ত এই সুবিধা নেই।
তারবিহীন চার্জিং সুবিধা

নোট ৮ এ রয়েছে তারহীন চার্জ সুবিধা। কিন্তু আইফোনে এই সুবিধা নেই। তবে গুজব রয়েছে আসন্ন আইফোন ৮ এ থাকতে পারে তারহীন চার্জ।
 


ডেক্স ডক, নোট ৮ কম্পিউটারে রূপান্তর

স্ট্যান্ডার্ড কীবোর্ড, মাউস এবং মনিটরের সাথে ডেক্স সংযোগের মাধ্যমে অ্যান্ড্রয়েডের স্পেশাল ডেস্কটপ ভার্সন চালানো সম্ভব। কিন্তু আইফোনে স্ক্রিন মনিটর অথবা টেলিভিশনে দেখা গেলেও এটিকে কীবোর্ড বা মাউসের সাথে যুক্ত করা সম্ভব না।

স্ক্রিন সাইজ

স্ক্রিন সাইজ এত বড় যে একসাথে দুটি অ্যাপ চালানো যাবে এই ফোনে। কিন্তু আইফোন ৭ এর স্ক্রিন সাইজ বড় হলেও একই সাথে দুটি অ্যাপ চালানোর সুবিধা নেই এই ফোনে।
ব্লার ইফেক্ট ইমেজ শট

পোর্টরেইট ছবি তোলার আগে বা প্পরে ছবিতে ব্লার ইফেক্ট যুক্ত করা যাবে কিন্তু আইফোন পোর্টরেইট ছবিতে ব্লার ইফেক্ট যুক্ত করার কোন সুবিধা দেয়না।

Kendrick-lamara-six 

এমটিভি ভিডিও মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসের এবারের আসরে একাই ছয়টি পুরস্কার জিতলেন মার্কিন র‌্যাপার কেন্ড্রিক লামার। এর মধ্যে আছে সামনের সারির দুই সম্মান- ভিডিও অব দ্য ইয়ার এবং বেস্ট হিপহপ। ‘হাম্বল’ গানের মিউজিক ভিডিওর সুবাদে এত পুরস্কার ঘরে নিয়ে যেতে পারলেন তিনি।


এবার আটটি মনোনয়ন নিয়ে ফেভারিট ছিলেন কেন্ড্রিক লামার। এর মধ্যে চিত্রগ্রহণ, নির্দেশনা, শিল্প নির্দেশনা এবং ভিজ্যুয়াল ইফেক্টস বিভাগের ট্রফিগুলোও উঠেছে ৩০ বছর বয়সী এই তারকার হাতে।

রবিবার (২৬ আগস্ট) যুক্তরাষ্ট্রের লস অ্যাঞ্জেলেসে হয়ে গেলো বিশ্বসংগীতের সেরা মিউজিক ভিডিওগুলোকে পুরস্কৃত করার আয়োজন এমটিভি ভিডিও মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসের ৩৪তম আসর। ব্রিটিশ তারকা এড শেরান জিতেছেন আর্টিস্ট অব দ্য ইয়ার পুরস্কার।

জাইন ম্যালিকের সঙ্গে ‘আই ডোন’ট ওয়ানা লিভ ফরএভার’ গানের জন্য বেস্ট কোলাবেরশন বিভাগে পুরস্কৃত হয়েছেন মার্কিন গায়িকা টেলর সুইফট। যদিও অনুষ্ঠানে আসেননি ২৭ বছর বয়সী এই তারকা। তবে এ আয়োজন টিভিতে সরাসরি সম্প্রচারের সময় নিজের নতুন গান ‘লুক হোয়াট ইউ মেড মি ডু’র মিউজিক ভিডিওর প্রিমিয়ার করে সব আলো কেড়ে নিলেন তিনিই! এক ঘণ্টায় ইউটিউবে এটি দেখা হয়েছে পাঁচ লাখ বার। তিন বছর পর নতুন সিঙ্গেল বের হলো তার।

৩৪তম এমটিভি ভিডিও মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসে আজীবন সম্মাননায় (ভ্যানগার্ড অ্যাওয়ার্ড) ভূষিত হয়েছেন মার্কিন গায়িকা পিঙ্ক। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনা করেন আমেরিকান পপতারকা কেটি পেরি। এ আয়োজনে তার পাশাপাশি ছিল বিখ্যাত কয়েকজন শিল্পীর মনমাতানো পরিবেশনা।

* দেখুন কেন্ড্রিক লামারের ‘হাম্বল’:


ঈদ ফ্যাশনে প্যাটার্ন বৈচিত্র্য 

পোশাকে ডিজাইন ও প্যাটার্ন নিয়ে বিবর্তন এনেছে ক্যাটস আই। ঈদকে সামনে রেখে সমকালীন ফ্যাশন ট্রেন্ড, সমরৈখিক ভাবে পোশাকের ক্যানভাসে পেয়েছে বর্ণিল আবহ। তাই তারুণ্যের উদ্দামতা এবং রুচির যুগলবন্দিই এবারের ক্যাটস আইয়ের ঈদ পোশাক। এবার পোশাকে ডিজাইন, কাপড় এবং প্যাটার্ন বৈচিত্র্য থাকছে ক্রেতা চাহিদানুযায়ী।


ক্যাটস আইয়ের ডিজাইনার ও পরিচালক সাদিক কুদ্দুস বলেন “উৎসব কেন্দ্রিক নতুন পোশাক থাকছে ছেলে ও মেয়েদের জন্য। বেশকিছু কামিজ, সিঙ্গেল কুর্তি, টপস, পশ্চিমা ধাঁচের পোশাক ও পাঞ্জাবিতে নতুন নকশা করা হয়েছে ঈদের কথা ভেবেই। থাকছে শেরওয়ানি কাটের সময়পোযোগী রঙিন পাঞ্জাবি। এখনো যেহেতু বাইরে গরম তাই অধিাকংশ ডিজাইনেই সুতি কাপড় বেছে নেওয়া হয়েছে।

ক্যাটস আই এবার পুরুষের পোশাক আরও সময় উপযোগী বডি ফিটিংস প্যাটার্নে তৈরি করেছে। শার্টে খানিকটা ফতুয়া ধাঁচ এনে, কাটে আনা হয়েছে ফিউশন। নীচের দিকে রাখা হয়েছে বোট চাইনিজ কাট। শার্টে যুতসই ফিটিংস এর জন্য পিছনে গঠন অনুযায়ী টাক ইন-ব্যবহার করা হয়েছে। কিছু শার্টে ওয়েস্ট প্লেট, বো প্লেট ব্যবহার করা হয়েছে। ফ্রন্ট প্ল্যাকেট আর ব্যান্ড কলার থাকছে ডিজাইন বৈচিত্র্যনুযায়ী। কিছু কিছু ডিজাইন শার্টে জিপারও থাকছে। ত্রিকোন কাটের আন্তর্জাতিক ডিজাইনারস ট্রেন্ডও অনুসরণ করা হয়েছে এবারের নতুন শার্টগুলোয়।

চিনো এবং জিন্সেও থাকছে ডিজাইন ও কাপড় বৈচিত্র্য। এই ঈদের পোশাকটি সারা বছর জুড়ে যেন পরতে পারা যায় সেই বিষয়টিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে।

এছাড়াও ক্যাটস আইয়ের সকল স্টোরে থাকছে শর্তসাপেক্ষে বিশেষ ছাড়ে কেনাকাটার সুযোগও। থাকছে ক্যাটস আই অনলাইনে ঘরে বসেই পণ্য ডেলিভারি সুবিধাও। নতুন ট্রেন্ডের পোশাকের খোঁজখবর থাকছে নিয়মিত ক্যাটস আই অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজে। বেশি কেনাকাটায় বাড়তি হিসাবে থাকছে রিওয়ার্ড প্রিভিলেজ কার্ডও।

 A-Vitamin-A-knownly-known-to-increase-lung-cancer-risk


দীর্ঘ সময় ধরে উচ্চ মাত্রায় ভিটামিন বি ৬ এবং বি ১২ গ্রহণ করলে ধূমপায়ীদের মাঝে বাড়তে পারে লাং ক্যান্সারের ঝুঁকি, জানা যায় ওহায়ো স্টেট ইউনিভার্সিটির এক সাম্প্রতিক গবেষণা থেকে।


আপনি ভাবছেন, প্রতিদিনই তো ক্যান্সার সৃষ্টিকারী উপাদানের তালিকায় নতুন নতুন জিনিস যোগ হচ্ছে। কিন্তু আপনার কাছে এ ব্যাপারটা যতই পানসে মনে হোক না কেন, গবেষকদের কাছে নতুন নতুন এসব তথ্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আমেরিকায় ক্যান্সারে মৃত্যুর অন্যতম কারণ হলো লাং ক্যান্সার। বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এর পেছনে মূল কারণ থাকে ধূমপান। এ কারণে বি ভিটামিন গ্রহণ করলে যদি এর ঝুঁকি বাড়ে তবে অবশ্যই সেই ঝুঁকি কমানোর চেষ্টা করা উচিৎ।

“আমাদের পাওয়া তথ্য বলে, অনেকদিন ধরে উচ্চ মাত্রায় বি ৬ এবং বি ১২ গরহন করলে পুরুষ ধূমপায়ীদের মাঝে লাং ক্যান্সার হবার ঘটনা বৃদ্ধি পায়,” বলেন ওহায়ো স্টেট ইউনিভার্সিটির এপিডেমিওলজিস্ট থিওডোর ব্র্যাস্কি, “এ ব্যাপারে নিঃসন্দেহে আরো অনুসন্ধান করা দরকার।“

দেখা যায়, মাল্টিভিটামিনে থাকা ভিটামিন বি এক্ষেত্রে ক্ষতিকর নয়। বরং আলাদাভাবে ভিটামিন বি ৬ এবং বি ১২ গ্রহণ করলে পুরুষ ধূমপায়ীদের মাঝে ৩০ থেকে ৪০ শতাংশ বাড়তে পারে লাং ক্যান্সারের ঝুঁকি। ২০ মিলিগ্রামের বেশি ভিটামিন বি যারা গ্রহণ করেন, ১০ বছর পর তাদের ক্ষেত্রে এই ঝুঁকি তিনগুণ হয়ে যায়। যারা দিনে ৫৫ মাইক্রোগ্রাম বি ১২ গ্রহণ করেন তাদের ঝুঁকি বাড়ে চারগুণ। ধূমপায়ী নারী অথবা যারা ভিটামিন বি৯ (ফলেট) গ্রহণ করেন তাদের ক্ষেত্রে এমনটা হতে দেখা যায় না।

তাহলে কী করবেন? ভিটামিন বি খাওয়া বাদ দেবেন? না, এই গবেষণার মানে এই না যে ভিটামিন বি খারাপ। তবে কিছু পুরুষের জন্য এই ভিটামিনের উচ্চ মাত্রা ক্ষতিকর হতে পারে। ক্লিনিক্যাল অনকোলজি জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণার জন্য ৭৭ হাজার প্রাপ্তবয়স্ক মানুষের থেকে তথ্য সংগ্রহ করা হয়। ২০০০ থেকে ২০০২ সালের মাঝে অংশগ্রহণ করা এসব মানুষের বয়স ছিল ৫০ থেকে ৭৬ বছর।

এক্ষেত্রে বলে রাখা ভালো, অতীতের গবেষণাগুলোয় পাওয়া যায় এর বিপরীত ফলাফল। যেমন একটি গবেষণায় দেখা যায়, ভিটামিন বি ৬ লাং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়, অন্যদিকে বি ১২ কোনো প্রভাবই থাকে না এক্ষেত্রে। বিভিন্ন কারণে গবেষণাগুলোর মাঝে এই বৈপরীত্য দেখা যেতে পারে। যেমন ভিটামিন পরিমাপের পদ্ধতি।

তবে সবগুলো গবেষণা থেকেই একটি কথা নিশ্চিত করে বলা যায়, আর তা হলো, লাং ক্যান্সারের ঝুঁকি কমাতে ধূমপান বন্ধ করতে হবে। ৮০-৯০ শতাংশ ক্ষেত্রে তা লাং ক্যান্সারের জন্য দায়ী। “কী নিয়ে চিন্তিত হবেন তা যদি বলি: আপনি পুরুষ ধূমপায়ী এবং ভিটামিন বি গ্রহণ করতে চাইলে আপনার ধূমপান বন্ধ করা উচিৎ,” বলেন ব্র্যাস্কি। “ধূমপানই এক্ষেত্রে সবচাইতে ক্ষতিকর এবং তা বাদ দেওয়াই যায়।“

How-to-become-an-engineer-from-Google-HR-without-any-degree-in-computer-science 

 পেশার জন্য সার্চ জায়ান্ট গুগল খুবই কঠিন একটি জায়গা বলা যায়। তবে কঠিন হলেও অ্যাঞ্জেলা টেইলর প্রমাণ করেছেন কঠোর পরিশ্রম এবং করণীয় মনোভাব নিয়ে আপনি কোনো প্রোগ্রামিং অভিজ্ঞতা এবং কম্পিউটার বিজ্ঞান ডিগ্রি ছাড়াই গুগল প্রকৌশলী হতে পারেন।


২০১৭ সালের মে মাসে টেইলর আনুষ্ঠানিকভাবে গুগল এর ম্যাপিং ডিভিশন এর পূর্ণসময়ের সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার পদে আসেন যা অভ্যন্তরীণভাবে জিইও নামে পরিচিত।

৩০ বছর বয়সী টেইলর ২০১২ সালের এপ্রিলে গুগল হিউম্যান রিসোর্স প্রো হিসেবে দায়িত্বে আসেন। সেসময়ে তার কমিউনিকেশন ডিগ্রি ছিল এবং প্রোগ্রামিং সম্পর্কে তার কোনো জ্ঞান ছিল না এবং প্রকৌশলী হিসেবে ক্যারিয়ার বিবেচনাও করেননি তিনি। ব্যবসা বাণিজ্য ভিত্তিক সাইট বিজনেস ইনসাইডারে টেইলর বলেন, ‘আমি আসলে আরকানসাস থেকে এসেছি, সেখানে ছোট একটি গ্রামে বড় হয়েছি। প্রযুক্তির কোনো সেন্সই ছিল না আমার। এমনকি সফটওয়্যার প্রকৌশলী নামে কোনো বিষয়ই আমি জানতাম না। আর আমি একজন অভিনেত্রী হতে চাইতাম।’

টেইলর প্রথমে প্রতিভাধর গুগল ইন্টার্নশীপ হিসেবে প্রতিষ্ঠানে আসেন এবং তারপর গুগলের কঠিন নিয়োগ প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পূর্ণ সময় নিয়োগ পান।  সেসময় গুগলে কমিউনিকেশন কোনো নিয়োগ হচ্ছিল না তাই তিনি এইচআর পেশা নেন।

২০১১ সালের জুন মাসে, এইচআর টিম একটি স্প্রেডশীটের সাথে কাজ করছিল যা একটি স্ক্রিপ্ট (ম্যাক্রো নামে পরিচিত) উপর নির্ভর ছিল এবং এগুলোর মধ্যে কিছু ছিল ত্রুটিপুর্ন। যদিও গুগলে এই সমস্যা সমাধানের জন্য প্রকৌশলী ছিল কিন্তু সাপোর্ট টিম সেসময় কাজের অত্যাধিক চাপে থাকায় স্পেডশিট এর ত্রুটি ঠিক করার সময় পাচ্ছিল না।

আর একারণে টেইলরকে এই সমস্যা সমাধানে নিযুক্ত করা হল। ফলে তিনি নিজে নিজে ভিজুয়াল বেসিক প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ শিখতে শুরু করেন। এসময় তিনি ভ্রমনে চীনে যান এবং সেখানে স্পেডশিট সমাধানের পরিকল্পনা করেন। আর তখনই তিনি প্রোগ্রামিং এর প্রেমে পড়ে যান।

এরপর টেইলর বাড়ি ফিরে উড্যাসিটি এবং কোড একাডেমির মতো সাইটে অনলাইন ফ্রি কোর্স নেওয়া শুরু করেন। তিনি তার এইচআর দলের জন্য ছোট কোডিং প্রকল্প হাতে নেন। এরপর তিনি কমিউনিটি কোডিং কলেজে যান এবং ২৪ ঘন্টা কাজের জন্য কোডিং করতে থাকেন। এবং পড়ে তিনি স্ট্যানফোর্ড এ কোডিং ক্লাসে যান কিন্তু তিনি কোনো কম্পিউটার বিজ্ঞান ডিগ্রির জন্য ভর্তি হননি।

টেইলর দুইবছর গুগলের কর্মীদের দেওয়া নিজের প্রকল্পে ২০ শতাংশ সময়ে তিনি এই কোডিং শিখেন। আর এরপর গুগল তাকে পূর্ণকালীন এন্ট্রি লেভেল সফটওয়্যার প্রকৌশলী হিসেবে নিয়োগ দেয়।

টেইলরের স্বপ্নের চাকরিতে যাওয়ার এই কৌশল যেকোনো কেউ ব্যবহার করতে পারেন। নিজের অভিজ্ঞতা থেকে টেইলর বলেন, ‘একসাথে হোন, একে অপরকে সহায়তা করুন। আপনি নিজে নিজে সবকিছু করতে পারেন না।’

Discounts-and-gifts-on-iLife-laptops 

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক প্রযুক্তি পণ্যের ব্র্যান্ড আই-লাইফের সাশ্রয়ী দামের ল্যাপটপ জেড এয়ার এবং জেড নোটে ঈদ অফার ঘোষণা করেছে পরিবেশক সুরভী এন্টারপ্রাইজ।


এ অফারের আওতায় টাচস্ক্রিন সমৃদ্ধ কনভার্টেবল ল্যাপটপ জেড নোটে থাকছে দুই হাজার টাকা ছাড় এবং উপহার হিসেবে ল্যাপটপ ব্যাগ। জেড নোট ডিভাইসটি ঈদ উপলক্ষে ২৪ হাজারের পরিবর্তে ২২ হাজার টাকায় পাওয়া যাবে।

এছাড়া ১৪ ইঞ্চি পর্দার জেড এয়ার ডিভাইসের সঙ্গে উপহার হিসেবে থাকছে আকর্ষণীয় ল্যাপটপ ব্যাগ। অফারটি ঈদ পর্যন্ত চলমান থাকবে। আইলাইফের প্রতিটি রয়েছে এক বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা।

০১৮৪৭০৫২০৭৯, ০১৮৪৭০৫২০৭৪ এই নম্বরে ফোন করে বিস্তারিত জানা যাবে।

Chicken-mineral-is-a-very-unique-meal-See-video 

 মাংসের কিমা, সেটা মুরগীর মাংসের হোক আর গরুর মাংসের, তা দিয়ে খাবার রান্না করাটা বেশ সহজ আর তা খেতেও হয় খুব দারুণ। কিমা দিয়ে খুব বেশি রেসিপি জানা নেই আমাদের। খুব বেশি হলে কিছু কাবাব, কিমা ভুনা- এই তো। কিন্তু আজ জেনে নিন মুরগীর মাংসের কিমা দিয়ে তৈরি অসম্ভব সুস্বাদু একটি আনকোরা খাবারের রেসিপি। হ্যাঁ, বলবো কিমা এবং চীজের স্বাদে মুখরোচক এক অনিয়ন রিংসের কথা। সাথে রইলো প্রস্তুত প্রণালীর একটি ভিডিও।


উপকরণ


২৫০ গ্রাম মুরগীর মাংসের কিমা

২/৩টি পিঁয়াজ কুচি

১ টেবিল চামচ রসুন কুচি

১/২টি পিঁয়াজকলি কুচি

১ চা চামচ মরিচ গুঁড়ো

লবণ

১ কাপ ময়দা

২টি বড় পিঁয়াজ মোটা রিং করে কাটা

১০০ গ্রাম মোজারেলা চীজ ছোট টুকরো করে কাটা

১০০ গ্রাম চেডার চীজ ছোট টুকরো করে কাটা

৩টি ডিম

পানকো ব্রেড ক্রাম্ব

তেল ভাজার জন্য

প্রণালী


১) একটি পাত্রে কিমা নিন। এতে দিন পিঁয়াজ কুচি, রসুন কুচি, পিঁয়াজকলি কুচি, মরিচ গুঁড়ো এবং লবণ দিয়ে খুব ভালো করে মাখিয়ে নিন।

২) ময়দার সাথে অল্প করে লবণ মিশিয়ে নিন। পিঁয়াজের রিংগুলো আলাদা করে নিয়ে ময়দায় মাখিয়ে নিন। ডিপ ফ্রাই করার জন্য যথেষ্ট

৩) ৩টি ডিম ফেটে নিন। একটি প্লেটে ব্রেড ক্রাম্ব ছড়িয়ে নিন। পিঁয়াজের রিং এর ভেতরে কিছুটা কিমার মিশ্রণ দিন। এরপর কিমার মাঝখানে এক টুকরো মোজারেলা ও এক টুকরো চেডার দিয়ে ওপরে আরো একটু কিমা দিয়ে ঢেকে দিন। এবার পুরো রিংটাকে প্রথম ডিমে, এরপর ব্রেড ক্রাম্বে, এরপর আবার ডিমে ও সবশেষে আবার ব্রেড ক্রাম্বে মাখিয়ে নিন। 

৪) ডুবোতেলে মুচমুচে করে ভেজে তুলুন রিংগুলোকে। তেল ঝরিয়ে নিন কিচেন টাওয়েলে।

পরিবেশন করুন মেয়োনেজ এবং সসের সাথে। দেখে নিতে পারেন প্রস্তুত প্রণালীর সহজ একটি ভিডিও। 

Recipe-Paneer-Sandesh

মজাদার পনিরের সন্দেশ বানিয়ে ফেলতে পারেন বাড়িতেই। ঝটপট তৈরি করা যায় সুস্বাদু সন্দেশ। উৎসব-পার্বণে অতিথিদের সামনে পরিবেশন করতে পারেন পনিরের সন্দেশ। জেনে নিন কীভাবে বানাবেন সন্দেশ।


পনিরের সন্দেশ

উপকরণ


পনির- ১৫০ গ্রাম
এলাচ- ৪টি (গুঁড়া)
চিনি- ৬ টেবিল চামচ
ছানা- আধা কাপ
আমন্ড- ৬টি (কুচি)

প্রস্তুত প্রণালি 

পনির, ছানা ও চিনি একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। চাইলে একসঙ্গে বেটে নিতে পারেন। এলাচ গুঁড়া মিশিয়ে আধা ইঞ্চি পুরু করে রাখুন একটি পাত্রে। পাত্রটি ফ্রিজে রেখে দিন। ঠাণ্ডা হলে পছন্দ মতো আকারে কেটে পরিবেশন করুন পনিরের সন্দেশ। চাইলে বড়ার আকার করে নিতে পারেন। তবে সেটা ফ্রিজে রাখার আগেই করতে হবে। 

Team-Cooks-Pocket-Mobile-Key-to-iPhone-8 

ম্প্রতি অ্যাপল এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) টিম কুক টুইটার অ্যাকাউন্টে নিজের একটি ছবি প্রকাশ করেছেন। ছবিটি প্রযুক্তিপাড়ায় ব্যাপক তোলপাড় ফেলে দিয়েছে।


তবে মজার বিষয় তোলপাড় তার ছবিটিকে নিয়ে নয়, তার পকেট নিয়ে। কারণ টুইটারে প্রকাশিত ছবিতে দেখা যাচ্ছে টিম কুকের পকেটে একটি মোবাইল আকৃতির একটি বস্তু। অনেকে ধারণা করছেন মোবাইলটি আইফোন ৮।

অনেকে বসে গেছেন তার পকেটে থাকা মোবাইলটির চুলচেরা বিশ্লেষণ করতে।

তাদের মতে টিমের পকেটে থাকা মোবাইলটি যদি আইফোন ৮ হয় তবে তবে আইফোনের পরবর্তী সংষ্করণটি হবে আয়োতনে বড় এবং চ্যাপ্টা।

তবে এ বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

Actress-Sabina-Rimas-Exceptional-Duffy-Video 


টেলিভিশনে আমরা ঘণ্টাখানেকের মধ্যে একটি নাটক দেখে শেষ করি। কিন্তু ঐ ঘণ্টাখানেকের নাটক তৈরিতে দিনের পর দিন মাথার ঘাম পায়ে ফেলতে হয় অভিনয়শিল্পীদের। বিনিদ্র রজনী, ব্যস্ত দিবালোক- এইসব ঝঞ্ঝা মিলিয়েই একজন অভিনয়শিল্পীর দিনলিপি রচিত হয়। নিরবিচ্ছিন্ন ব্যস্ততার একঘেয়ামি না কাটাতে পারলে কাজের মধ্যে কেবল কাঠামোটুকুই অবশিষ্ট থাকে, প্রাণ থাকে না। তাই সেই জড়ো কাঠামোর মধ্যে প্রাণ গুঁজে দিতে প্রয়োজন রিফ্রেশমেন্ট, বাংলায় বললে- সতেজতা ফিরিয়ে আনা। একেক মানুষের রিফ্রেশ হওয়ার পদ্ধতি একেক রকম। অভিনেত্রী সাবিনা রিমা শুটিংয়ের ক্লান্তি কাটাতে বেছে নিয়েছেন ব্যতিক্রমী এক উপায়। খানিকক্ষণ নেচে নিলেন তিনি। নাচের ভিডিও শেয়ার করেছেন নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে। প্রসঙ্গত যোগাযোগ করেছিল অভিনেত্রী সাবিনা রিমার সঙ্গে। জানা গেল তিনি এই মুহূর্তে রয়েছেন দীপ্ত টেলিভিশনে। শুটিং করছেন অপরাজিতা নাটকের। নাটকটির একটি কেন্দ্রীয় চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। সাবিনা রিমাকে নিয়ে এগিয়ে চলা নাটক অপরাজিতা নাটকটি এসে পৌঁছেছে সাবিনার বিয়ে অবধি। বিয়ের শুটিংয়ের ঝক্কি সামলে নিজেকে একটু সতেজ করতেই নেচে নিয়েছেন তিনি। এ নাটকে তিনি বর্তমানে একজন হিন্দু বৌয়ের চরিত্রে শুটিং করছেন। একাবারে খাঁটি বাঙালিয়ানা। বাঙালি সাজে দেখা গিয়েছে তাকে। সাবিনা রিমা প্রিয়.কমকে বলেন- ‘অনেকেই আমাকে বলত- আমাকে নাকি ধনীব্যক্তির মেয়ে কিংবা ঐ ধরনের চরিত্রে অভিনয় করতে বেশি মানানসই দেখায়, এর বাইরে নাকি আমাকে মানাবে না। কিন্তু এ নাটকে হিন্দু বৌয়ের চরিত্র ফুটিয়ে তুলতে পেরে আমি খুবই আনন্দিত। শুটিংয়ের ব্যস্ততার ফাঁকে নিজেকে একটু সতেজ করে নিতে অভিনেত্রী সাবিনা রিমার নাচের ভিডিওটি দেখুন এখানে:


সাবিনা রিমা আরও জানিয়েছেন যে- হিন্দু বৌ চরিত্রে এবারই প্রথমবারের মতো অভিনয় করছেন তিনি। হিন্দুয়ানি মেকআপ ও কস্টিউম বেশ উপভোগ করছেন তিনি। এরকম চরিত্রে অভিনয় করার স্বপ্ন নিজ মনে লালন করতেন সাবিনা রিমা। তার অধরা স্বপ্ন ধরা দিলো এ নাটকে হিন্দু বৌয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে পেরে। এছাড়াও খাঁটি বাঙালিয়ানার বিষয়টি মর্ম দ্বারা উপলব্ধি করতে পেরে এ মুহূর্তে বেশ উৎফুল্ল রয়েছেন অভিনেত্রী সাবিনা রিমা।

উল্লেখ্য, ইতোপূর্বে সাবিনা অভিনীত ‘ছেলেটি আবোল তাবোল মেয়েটি পাগল পাগল’ নামক চলচ্চিত্রটি বেশ দর্শক সাড়া পেয়েছিল। ‘বাজারে প্রেমের দর’ নামক টেলিছবিতে অভিনয় করে দর্শক হৃদয়ে পাকাপোক্ত জায়গা করে নিতে সক্ষম হয়েছেন অভিনয় পটু রিমা। শিল্পের অষ্টকলার অন্যতম কলা অভিনয় শিল্পে তিনি প্রবেশ করেছিলেন লাক্স চ্যানেল আই সুপার স্টার হওয়ার পর।



Ananta-Jalil-in-Kurigram-with-relief-relief

কুড়িগ্রামে অনন্তবন্যা দুর্গতদের ত্রাণ সহায়তা দিতে কুড়িগ্রাম পৌঁছেছেন চিত্রনায়ক ও ব্যবসায়ী অনন্ত জলিল।


বৃহস্পতিবার দুপুর দুইটার দিকে তিনি হেলিকপ্টারযোগে কুড়িগ্রামের চিলমারীতে পৌঁছান। সেখানে তিনটি ইউনিয়নের বন্যা কবলিত প্রায় ২৪’শ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেবেন অনন্ত।

বিষয়টি নিশ্চিত করেন থানাহাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অাব্দুর রাজ্জাক। তিনি জানান, অনন্ত জলিল চিলমারীর তিনটি ইউনিয়নের ২৪’শ পরিবারের মাঝে ত্রাণ বিতরণ করবেন। এরমধ্যে থানাহাট ইউনিয়নের পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ১১০০ পরিবারকে ত্রাণ বিতরণ করবেন। এছাড়াও রমনা ইউনিয়নের ৮০০ পরিবার এবং চিলমারী ইউনিয়নের ৫০০ পরিবারকে ত্রাণ সহায়তা দেবেন অনন্ত জলিল।

চিলমারীর হেলিপ্যাডে অবতরণ করার পর অনন্ত জলিল  বলেন, ‘বন্যা কবলিত মানুষদের সহায়তা করতে অামি এসেছি। এটা কোনও দয়া নয়, এটা দুর্গত মানুষদের অধিকার।’

সমাজের সামর্থবানদের উদ্দেশে জলিল বললেন, ‘অামি সমাজের সামর্থবানদের বলবো, যার যতটুকু সামর্থ অাছে তারা ততটুকু নিয়েই বন্যার্তদের পাশে দাঁড়‌ান, তাদের সাহায্য করুন।’

60-discount-on-shopping 

শরৎ এবং আসন্ন ঈদকে সামনে রেখে ইনফিনিটি মেগা মল ক্রেতাদের সুবিধার্থে সর্বোচ্চ ৬০ শতাংশ পর্যন্ত ডিসকাউন্ট সুবিধা দিচ্ছে। ক্রেতা সাধারণ এই ডিসকাউন্ট সুবিধা পাবেন ঈদ উল আজহা পর্যন্ত।


আকর্ষণীয় এই অফারটি নির্দিষ্ট কিছু শার্ট, প্যান্ট, টি-শার্ট, পোলো শার্ট,পাঞ্জাবি, থ্রি-পিস, জুতা এবং কিডস আইটেমের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য।

ইনফিনিটির প্রতিটি আউটলেটে পাবেন এই ছাড়ের সুবিধা। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানের আউটলেটে এই সুবিধা পাওয়া যাবে।

ইনফিনিটি ঈদ উল আজহা  এবং শরৎ উপলক্ষে বিশেষ ডিজাইনের পোশাকও এনেছে। নতুন পোশাক ছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় পোশাক, ওয়ালেট, বেল্ট সবকিছুই পাওয়া যাবে।

Do-you-know-what-happens-to-your-body-after-ten-hours-of-nail-polish 

আমরা অনেকেই নিজেদের নখে বিভিন্ন রঙের নেইলপলিশ ব্যবহার করতে পছন্দ করি। হয়তো খুব বিরক্ত লাগছে অথবা মন খারাপ লাগছে, তাহলে আমরা ঘরেই বসে পড়ি নেইলপলিশ দিতে হাতে অথবা পায়ের নখে। অথবা কিছুটা ভালো সময় কাটাতে চাইলে আমরা হুট করেই বিউটি পার্লারে চলে যাচ্ছি মেনিকিউর এর জন্য। নখের পরিচর্যার পাশাপাশি বিভিন্ন রঙের এবং বিভিন্ন ধরণের নেইলপলিশ দিয়ে হাত ও পায়ের নখকে সুন্দর করে সাজিয়ে নিচ্ছি। অথচ আমরা নিজেরা কিন্তু বুঝতেও পারছিনা যে, আমরা কতবড় দূর্ভোগ ডেকে আনছি নিজেদের শরীরের জন্য!


আপনি যদি ভেবে থাকেন যে আপনার ব্যবহৃত সকল প্রসাধনি সামগ্রী আপনার ত্বক, চুল এবং নখে ব্যবহারের জন্য খুবই নিরাপদ কারণ, সে সকল পন্যের মান নিয়ন্ত্রণ করা হয়ে থাকে এফডিএ (FDA) দ্বারা তবে আপনি খুবই ভুল! FDA র ওয়েবসাইট বলছে যে, ফেডারেল খাদ্য, ওষুধ এবং প্রসাধনি আইন এর আওয়াতয়, যেকোন ধরণের প্রসাধনি সামগ্রী এবং উপাদান বাজারজাত করার আগে FDA থেকে অনুমোদন নেওয়ার কোন প্রয়োজন নেই! এর মানে যা দাঁড়াচ্ছে, প্রতিটি প্রসাধনি সামগ্রীর প্রতিষ্ঠান আইনগত ভাবে তাদের তৈরি প্রসাধনি সামগ্রির নিরাপত্তার জন্যে জন্যে দায়ী। কিন্তু যদি প্রতিষ্ঠান নিরাপত্তার ব্যপারে খুব একটা দায়িত্বশীল না হয়ে থাকে?


খুবই চিন্তার ব্যপার এবং জঘন্য বাস্তবতা হচ্ছে, বিজ্ঞানীরা অনেক নামীদামী ব্র্যান্ডের নেইলপলিশে প্রচুর ক্ষতিকারক পদার্থের সন্ধান পেয়েছেন।

একটি গবেষণায় বিজ্ঞানীরা স্যালী হ্যান্সেন, ওপিআই, বাটার লন্ডন, রেভলন এবং সকলের প্রিয় ওয়েট এন্ড ওয়াইল্ড এর মতো জনপ্রিয় সকল ব্যান্ডের নেইলপলিশে অত্যন্ত ক্ষতিকর পদার্থের সন্ধান পেয়েছেন। ক্ষতিকারক এনডোক্রিন ডিস্রাপ্টরস, ট্রাইফিনাইল ফসফেট (TPHP), ফরমাল্ডিহ্যাইড এবং টোউলি  নেইলপলিশ কে দীর্ঘস্থায়ী করতে সাহায্য করে। তবে এই সকল উপাদান ত্বকের মাধ্যমে রক্তে পৌঁছে আপনার হরমোন, মেটাবোলিজম, জন্মদান প্রক্রিয়া এমনকি আপনার স্বাভাবিক বেড়ে ওঠার প্রক্রিয়া কে ক্ষতিগ্রস্ত করে থাকে!

এক গবেষণায় বিজ্ঞানীরা ২৬ জন ভিন্ন ভিন্ন নারীর উপর টিপিএইচপি (TPHP) নখে প্রয়োগ করার আগে এবং পরে পরীক্ষা করে থাকে। যেখানে মাত্র দুই ঘন্টা পরে ২৪ জন নারীর রক্তেই টিপিএইচপির মাত্র বেশী দেখা যায়। এবং প্রায় ১০ ঘণ্টা পরে,২৬ জন নারীর শরীরে টিপিএইচপি র মাত্রা সাত গুণ বেশী পাওয়া যায়। যা প্রমাণ করে যে, মাত্র একবারো যদি আপনি আপনার নখে নেইলপলিশ প্রয়োগ করে থাকেন তবে সেটা আপনার শরীরে মারাত্মক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

গবেষণায় দেখা গেছে যে, টিপিএইচপি যেকোন প্রাণী এবং পানিজগতের প্রাণীর জন্যে ভয়াবহ ক্ষতিকর। এই  পদার্থ হরমোন এবং শরীরের স্বাভাবিক বৃদ্ধিকে ক্ষতিগ্রস্ত করে থাকে। তাহলে আপনি একবার ভাবুন, এই পদার্থ আপনার শিশুর উপর কততা বাজে প্রপভাব ফেলতে পারে, যখন আপনার শিশু নেইলপলিশ লাগিয়ে থাকে নখ!


তবে প্রথমবারেই হয়তো একেবারেই নেইলপলিশ ব্যবহার বন্ধ করে দিতে পারবেন না আপনি। তাই চেষ্টা করুন যথাসম্ভব কম নেইলপলিশ ব্যবহার করতে। যেখান থেকে যখনই নেইলপলিশ কিনবেন, ভালো করে দেখে কিনুন যে, সেই নেইলপলিশ পরিবেশবান্ধব কিনা। অনেক নেইলপলিশের বিবরণীতে লেখা থাকে, “5-Free” যার অর্থ হলো, সেই নেইলপলিশে টিপিএইচপী এবং অন্যান্য ক্ষতিকারক পদার্থ একেবারেই নেই।

চেষ্টা করুন শিশুদের নেইলপলিশ ব্যবহার থেকে দূরে রাখতে। যখনই নেইলপলিশ কিনবেন চেষ্টা করবেন দেশে এবং বিবরণী পড়ে কেনার জন্য।

Facebook-Messenger-can-be-found-in-the-job-news 


চাকরি খোঁজার জন্য জব সাইট ঘাঁটার দরকার নেই আর। দক্ষতা অনুযায়ী কর্মক্ষেত্র খুঁজে নিতে ফেসবুক মেসেঞ্জারেই পাওয়া যাবে চাকরির সব বিজ্ঞপ্তি। ফেসবুক মেসেঞ্জারে ‘৫০০ জবস’ চ্যাটবট খোলার মাধ্যমে বাংলাদেশিদের জন্য নতুন এ সুযোগ সৃষ্টি করেছে টাইগার ডিজিটাল। সম্প্রতি চ্যাটবটটির কার্যক্রম নিয়ে কথা বলেছেন স্টার্টআপটির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা রিয়াদ রহমান।


রিয়াদ জানান, বাংলাদেশে অনলাইনে চাকরি খোঁজার ক্ষেত্রে চাকরিদাতা এবং চাকরিপ্রার্থীদের অনেক ঝামেলা পোহাতে হয়। দেখা যায় অনলাইনে একটি নির্দিষ্ট চাকরির বিপরীতে হাজার হাজার সিভি জমা পড়ে। সেখান থেকে দক্ষ ব্যক্তি খোঁজাটা সময় সাপেক্ষ ব্যাপার হয়ে দাঁড়ায়। এমনকি প্রচুর সিভি ঘেঁটেও যোগ্য ব্যক্তি পাওয়া যায় না। আবার যোগ্য ব্যক্তির কাছেও চাকরির বিজ্ঞপ্তি ঠিক মতো আসে না। এসব সমস্যা আমলে নিয়ে ফেসবুক মেসেঞ্জারে চাকরি বিজ্ঞপ্তি প্রদানে নতুন এই চ্যাটবট খোলার চিন্তা তার মাথায় আসে। রিয়াদ বলেন, বাংলাদেশে বর্তমানে বেশিরভাগ ইন্টারনেট ব্যবহারকারীই ফেসবুক এবং ফেসবুক মেসেঞ্জার ব্যবহার করে থাকেন। ঢাকার বাইরেও অন্যান্য ওয়েবসাইট না ব্যবহার করলেও সবাই ফেসবুক মেসেঞ্জার ব্যবহার করেন। সেক্ষেত্রে খুব সহজেই মেসেঞ্জারে চাকরির বিজ্ঞপ্তি পেয়ে যাচ্ছেন প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষজন।

ফেসবুক মেসেঞ্জারে চ্যাটবট খুলতে টাইগার ডিজিটাল তাদের নিজস্ব ‘বাঘা কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা’ ব্যবহার করছে। এই কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তা গ্রাহককে স্বয়ংক্রিয়ভাবে প্রশ্ন করে চাকরি সংক্রান্ত সকল তথ্য সংগ্রহ করে থাকে। পরবর্তীতে সংগৃহীত তথ্যাদি বিশ্লেষণ করে তার দক্ষতা এবং আগ্রহ অনুযায়ী চাকরির বিজ্ঞপ্তি মেসেঞ্জারের মাধ্যমে জানায়। বাঘা নামের এই কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা গ্রাহকের ইংরেজি, বাংলা এবং ‘বাংলিশ’ ভাষা বুঝতে পারে। রিয়াদ বলেন, ‘চাকরি প্রার্থীর প্রয়োজন অনুযায়ী দিনে একাধিক চাকরির বিজ্ঞপ্তি দিতে সক্ষম এই চ্যাটবট। এর মাধ্যমে নির্ধারিত মানদণ্ড অনুযায়ী সীমিত সংখ্যক দক্ষ লোকও পেয়ে যাচ্ছে চাকরিদাতা প্রতিষ্ঠান। সেক্ষেত্রে তাদের অনেকগুলো সিভি ঘাঁটা লাগছে না।’ 

রিয়াদ

চ্যাটবট থেকে আয়ের আপাতত দুটি উৎস আছে বলে জানান রিয়াদ। এক, যেসব প্রতিষ্ঠান চাকরির বিজ্ঞপ্তি দিচ্ছেন তাদের থেকে ছোট্ট অর্থ নেওয়া হচ্ছে। বিনিময়ে তাদেরকে চ্যাটবটে একটি ড্যাশবোর্ড দেওয়া হচ্ছে। এছাড়াও বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ফেসবুক মেসেঞ্জারের চ্যাটবট থেকে টাকা আয় করা সম্ভব। রিয়াদ বলেন, বাংলাদেশে এখনও চ্যাটবটে বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা আয়ের সুবিধাটি চালু হয়নি। তবে আগামী ৬ মাসের মধ্যেই এই সুবিধা চালু হওয়ার সম্ভাবনা আছে।’

চ্যাটবটির অধীনে বর্তমানে ১৫টি স্থানীয় প্রতিষ্ঠান যুক্ত আছে। এসব প্রতিষ্ঠানের চাকরির বিজ্ঞপ্তি চ্যাটবটটিতে পাওয়া যাচ্ছে। তবে ধীরে ধীরে আরও স্থানীয় এবং আন্তর্জাতিক প্রতিষ্ঠান যুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন রিয়াদ। তা ছাড়া আগামী ৫ বছরে চ্যাটবটটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষা, স্কলারশিপ, দেশ-বিদেশে বিভিন্ন এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামের বিজ্ঞপ্তিও যুক্ত করা হবে বলে জানান তিনি। রিয়াদ বলেন, দেশে দক্ষ জনবল গড়ে তুলতে ৫০০ জবস গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। আমরা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে সঠিক তথ্য ও প্রশিক্ষণ দিয়ে দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে সহায়তা করতে চাই।

Shawmo-mobile-discounts-and-gifts 


আসন্ন ঈদ উল আযহা উপলক্ষে বিশ্বখ্যাত স্মার্টফোন ব্র্যান্ড শাওমি ঘোষণা করেছে আকর্ষণীয় ঈদ অফার। প্রতিটি স্মার্টফোনের সঙ্গে থাকছে নিশ্চিত উপহার, ফ্রি ইন্টারনেট ডাটা এবং একটি স্ক্র্যাচ কার্ড। নিশ্চিত উপহারের মধ্যে থাকছে থার্মাল স্মার্ট বোতল, টি- শার্ট, পাওয়ার ব্যাংক ইত্যাদি। শাওমি থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব জানানো হয়েছে।


এছাড়া শাওমির ফ্লাগশিপ প্রোডাক্ট পণ্য মি মিক্স (৬+২৫৬ জিবি) কিনলেই ক্রেতা পাচ্ছেন একটি মি ব্যান্ড-২ ফ্রি।

আর স্ক্র্যাচ কার্ডটি ঘষলেই নিশ্চিত উপহার হিসেবে ক্রেতা পেতে পারেন মি-সাইকেল, মি-ইলেকট্রিক স্কুটার, ঢাকা-বালি-ঢাকা এয়ার টিকিট, ঢাকা-কক্সবাজার-ঢাকা এয়ার টিকিট, হাত ঘড়ি, নগদ ২০০ থেকে ১০ হাজার টাকা পর্যন্ত ছাড়।

ঈদ অফারে রেডমি ৪-এ (২+১৬ জিবি) –এর দাম ১০ হাজার ৯৯০ টাকা, রেডমি ৪-এ (২+১৬ জিবি) –এর দাম ১০ হাজার ৯৯০ টাকা, রেডমি ৪-এ (২+৩২ জিবি) –এর দাম ১১ হাজার ৯৯০ টাকা, রেডমি ৪-এক্স (২+১৬ জিবি) -এর দাম ১৩ হাজার ৪৯০ টাকা এবং রেডমি ৪-এক্স (৩+৩২ জিবি) –এর দাম ১৫ হাজার ৪৯০ টাকা। এগুলোর সঙ্গে উপহার হিসেবে থাকবে একটি থার্মাল স্মার্ট বোতল।

এই অফারে রেডমি নোট-৪ (৩+৩২ জিবি) –এর দাম ১৮ হাজার ৪৯০ টাকা, রেডমি নোট-৪ (৪+৬৪ জিবি) –এর দাম ২১ হাজার ৯৯০ টাকা মূল্য ঘোষণা করা হয়েছে। উপহার হিসেবে থাকছে টি-শার্ট ও থার্মাল স্মার্ট বোতল।

ঈদ উপলক্ষে মি ম্যাক্স-২ (৪+৬৪ জিবি) বিক্রি হচ্ছে ২৮ হাজার ৪৯০ টাকায়। এর সঙ্গে রয়েছে উপহার। মি-৬ (৬+৬৪ জিবি) বিক্রি হচ্ছে ৪৪ হাজার ৯৯০ টাকায়। উপহার হিসেবে থাকছে থার্মাল স্মার্ট বোতল, টি-শার্ট ও পাওয়ার ব্যাংক। আর মি-মিক্স (৬+২৫৬ জিবি) বিক্রি হচ্ছে ৬৯ হাজার ৯৯০ টাকায়। উপহার হিসেবে পাওয়া যাবে মি-ব্যান্ড-২।

Selling-sacrificial-animals-online-There-is-no-statistic-anywhere 


সময় বাঁচাতে গিয়ে অনেকেই অনলাইনভিত্তিক কোরবানির পশুর হাটের দিকে বেশি ঝুঁকছেন। শৌখিন ক্রেতারা হাটে ভিড়, ভ্যাপসা গরম-গন্ধ ও কাদা এড়াতে ঘরে বসেই কিনে চাইছেন পছন্দের পশু।  দেশে ২০১৩ সালে থেকে অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি হচ্ছে। প্রতি বছর বিক্রির হার বাড়লেও ঠিক কত সংখ্যক পশু অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে, সে তথ্য পাওয়া যায়নি কোথাও।


বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন অব সফটওয়্যার অ্যান্ড ইনফরমেশন সার্ভিসেস (বেসিস) এবং ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব)—কোনও সংগঠনের কাছেই তথ্য নেই।  কয়েকটি ই-কমার্স, অনলাইন মার্কেট প্লেস ও একাধিক ফেসবুক নির্ভর ই-কমার্স সাইটের খোঁজ পাওয়া গেলো, যেখানে কোরবানির পশু পাওয়া যাচ্ছে। 

অনলাইনে কোরবানির পশু কেনার সুবিধার কথা বলতে গিয়ে বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সিনিয় হিসাব রক্ষক মো. জহিরুল ইসলাম বলেন, ‘অনলাইনে গরু কেনার সবচেয়ে বড় সুবিধাটি হলো হোম ডেলিভারির ব্যবস্থা। অনলাইনে অর্ডার দেওয়ার পর বাকি কাজ ওদের। আমার অভিজ্ঞতা ভালো।’

জানতে চাইলে বেসিস সভাপতি মোস্তাফা জব্বার  বলেন, ‘তথাকথিত ব্যবসায়িক ফরম্যাট আর থাকবে না। এটা ট্রান্সফরমেশনের যুগ। সবই কিছুই অনলাইনে চলে যাবে। সেই কারণেই বর্তমানে কোরবানির পশু অনলাইনে বিক্রি হচ্ছে।’  তবে তিনি জানালেন, ‘এ বিষয়ে কোনও ডাটা নেই। এমনকি কারা এ উদ্যোগের সঙ্গে যুক্ত, তারও কোনও পরিষ্কার তথ্যও নেই।’

একই কথা জানলেন ই-ক্যাবের সভাপতি রাজীব আহমেদ। তিনি বলেন, ‘সবে বিষয়টি জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। কিছুদিনের মধ্যে সব তথ্য-উপাত্ত জানা যাবে।’

এদিকে ঈদকে সামনে রেখে সরগরম হয়ে উঠেছে ভার্চুয়াল হাট। অনলাইন মার্কেটপ্লেস বিক্রয় ডট কমে গরু বিক্রেতারা তাদের কোরবানির পশু বিক্রির জন্য ছবি এবং তথ্য আপলোড করছেন সাইটে। বিক্রয় ডট কমের সাইট ঘুরে দেখা গেছে, ইতোমধ্যে প্রচুর গরুর ছবি সাইটে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া রয়েছে উট, ছাগল, ভেড়া ও মহিষ। বিভিন্ন রঙের, বিভিন্ন গড়নের এসব পশুর দামও আলাদা। ফলে ক্রেতারা সহজেই পশু কিনতে পারবেন বলে মনে করছেন ভার্চুয়াল ব্যবসায়ীরা।

শুধু বিক্রয় ডট কম নয়, কোরবানির পশু পাওয়া যাবে আমার দেশ ই-শপ, বেঙ্গল মিট, সাশ্রয় এগ্রো প্রভৃতি সাইটেও। এছাড়া ফেসবুক নির্ভর ই-কমার্স সাইট সাদিক অ্যাগ্রো এবং আর এম অ্যাগ্রোর পেজে পাওয়া যাচ্ছে কোরবানির পশু। এসব প্রতিষ্ঠান ক্রেতাদের আকৃষ্ট করার জন্য নানা ধরনের পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। বিশেষ করে ওষুধের মাধ্যমে গরু মোটাতাজাকরণের বিষয়টি ঘিরে ক্রেতাদের মনে যে আশঙ্কা তৈরি হয়, তা দূর করার দিকেই বেশি নজর তাদের।

আমার দেশ আমার গ্রাম ডট কমের সহ-প্রতিষ্ঠাতা আতাউর রহমান বলেন, ‘আমরা ১৫০টি গরুর ছবি সাইটে আপলোড করব। এরই মধ্যে ১৯টি গরুর জন্য বুকিং জমা পড়েছে।’  তিনি আরও জানান, ‘২০১৩ সালে তাদের প্রতিষ্ঠানই প্রথম অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি শুরু করে। সেই থেকে এখন পর্যন্ত প্রতি কোরবানিতে গড়ে ৩৫-৪০টির মতো গরু বিক্রি করেছে আমার দেশ আমার গ্রাম ডট কম।’ দেশে বন্যার এবার কারণে এবার অনলাইনে কোরবানির পশু বিক্রি কমতে পারে বলে তিনি আশঙ্কা প্রকাশ করেন। 

এদিকে বেঙ্গল মিট তাদের সাইটে ৩০০ গরুর ছবি আপলোড করেছে। এর মধ্যে শতাধিক গরু বিক্রি হয়ে গেছে বলে জানা গেছে। গত বছর বিক্রির পরিমাণ ছিল ১৫০টি গরু।

Quick-Soup-Corn-Soup-in-the-photo 


 বিকেলবেলা হলো এমন একটা সময় যখন ছেলে-বুড়ো সবারই একটুআধটু ক্ষিধে পায়। কিন্তু তখন খুব ভারী খাবার ও খেতে ইচ্ছে করে না। এমন সময়ে হালকা নাস্তা হিসেবে সুইট কর্ন স্যুপের কোন জুড়ি নেই। ঘরে বসেই অল্পকিছু উপকরণের সমন্বয়ে খুব সহজেই আপনি এ স্যুপ বানিয়ে ফেলতে পারবেন। শুধু তাই নয়, বাড়িতে মেহমান চলে এসেছে হঠাৎ করে? বেশিক্ষণ বসিয়ে রাখা বেশ কটু দেখায়। অল্প সময়ের মধ্যেই তার সামনে হাজির করুন কর্ন স্যুপ। গল্পে-আড্ডায় দারুণ কেটে যাবে সময়।


যা লাগবে:


দেড় কাপ সুইট কর্ন (তাজা কিংবা হিমায়িত)

এক চা-চামচ কর্ন স্টার্চ

সিকি কাপ মটরশুঁটি

সিকি কাপ গাজর (মিহি টুকরো করা)

৪/৬ টি শিম (মিহি টুকরো করা)

২/৩ টি পেঁয়াজকলি

আড়াই থেকে তিন কাপ পানি

প্রনালী


-সব্জিগুলো ভালোমতন ধুয়ে, কেটে ফেলুন।

-চুলোয় একটি পাত্রে তেল অথবা মাখন নিন। পেঁয়াজকলি ছাড়া বাকি সবগুলো সবজি ও সুইট কর্ন দিয়ে নাড়তে থাকুন দু'মিনিট ধরে।

-পানি দিন এবার এবং সব্জিগুলো সেদ্ধ না হওয়া পর্যন্ত নাড়তে থাকুন। একদম হালকা আঁচে রান্না করুন তাহলে স্যুপের স্বাদ বাড়বে।

-স্যুপ রান্না হতে হতে একটি আলাদা পাত্রে কর্ন স্টার্চের সঙ্গে পানি মেশান। এটি অবশ্য ঐচ্ছিক। সবজিগুলো হালকাভাবে রান্না হয়ে আসলে এ মিশ্রণ ঢেলে দিন। তাতে স্যুপ বেশি ঘন হবে। লবণ এবং চিনিও দিতে পারেন স্বাদমতো।

-উপরে গোলমরিচ ছিটিয়ে গরম গরম স্যুপ পরিবেশন করুন।

ব্যাস, হয়ে গেলো নাস্তা হিসেবে অসাধারণ এক রেসিপি 'সুইট কর্ন স্যুপ'। 


দেশের অন্যতম শীর্ষ ফ্যাশন হাউজ ‘রঙ বাংলাদেশ’ তাদের মিরপুর আউলেটে বাৎসরিক মূল্যছাড় ঘোষণা করেছে। এর আওতায় পোশাক ও অন্যান্য পণ্য কেনায় উপভোগ করা যাবে ৭০% পর্যন্ত মূল্য ছাড়। আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত এ সুবিধা পাওয়া যাবে।

সহজলভ্য দামে ঈদের পোশাক ও গয়না পছন্দ করা যেতে পারে রঙ বাংলাদেশের মিরপুর আউটলেটে থেকে। রয়েছে গিফট ভাউচার সুবিধা, যা প্রিয়জনকে উপহার দেওয়ার মাধ্যমে প্রিয়জন পছন্দের পোশাকটি কিনে নিতে পারবে। মিরপুর আউটলেটের ঠিকানা: প্রমিজ টাওয়ার, ৩য় তলা (ফায়ার সার্ভিসের বিপরীতে), মিরপর-৬, ঢাকা।

এছাড়া রঙ বাংলাদেশের অন্যান্য আউলেটে থাকছে নিয়মিত সব আয়োজন। রয়েছে ঘরে বসে অনলাইনে (www.rang-bd.com) কেনার সুযোগও। এক্ষেত্রে রয়েছে ক্যাশ অন ডেলিভারির সুবিধা।


চলতি বছরের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেতাদের তালিকা প্রকাশ করেছে বিশ্বের প্রসিদ্ধ বিজনেস ম্যাগাজিন ফোর্বস। ২০১৬ সালের ১ জুন থেকে চলতি বছরের জুন পর্যন্ত তথ্যমতে এটি নির্ধারণ করা হয়েছে। মঙ্গলবার এ জরিপ প্রকাশ করা হয়।

ফোর্বসের জরিপে এবারের তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন হলিউড অভিনেতা মার্ক ওয়ালবার্গ। গত এক বছরে ৬৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছেন তিনি। তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছেন ‘দ্য রক’খ্যাত অভিনেতা ডোয়াইন জনসন। ৬৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করেছেন তিনি। ভিন ডিজেল, অ্যাডাম স্যান্ডলার এবং জ্যাকি চ্যান রয়েছে যথাক্রমে তৃতীয়, চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে। এ অভিনেতাদের আয় যথাক্রমে ৫৪.৫ মিলিয়ন, ৫০.৫ মিলিয়ন ও ৪৯ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। রবার্ট ডাউনি জুনিয়র ও টম ক্রুজ রয়েছেন ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থানে।

সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিকপ্রাপ্ত অভিনেতাদের তালিকার শীর্ষ দশে স্থান পেয়েছেন বলিউড অভিনেতা শাহরুখ খান, সালমান খান ও অক্ষয় কুমার।

ফোর্বসের জরিপ অনুযায়ী রইস সিনেমাখ্যাত এ তারকা চলতি বছর আয় করেছেন ৩৮ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। অন্যদিকে ‘দাবাং’ অভিনেতা সালমান খান আয় করেছেন ৩৭ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। বলিউড বক্স অফিসে একের পর এক ব্যবসাসফল সিনেমা উপহার দিয়ে চলেছেন অক্ষয় কুমার। তার আয় ৩৫.৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। তালিকায় এ তিন তারকা রয়েছেন যথাক্রমে অষ্টম, নবম ও দশম স্থানে।

ফোর্বসের জরিপে সবচেয়ে পারিশ্রমিক পাওয়া শীর্ষ দশ অভিনেতার মোট আয় ৪৮৮. ৫ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। যা সবচেয়ে পারিশ্রমিক পাওয়া শীর্ষ দশ অভিনেত্রীর পারিশ্রমিকের প্রায় তিন গুণ। শীর্ষ দশ অভিনেত্রীর মোট আয় ১৭২.৪ মিলিয়ন মার্কিন ডলার। এর মধ্যে গত ১২ মাসে মাত্র তিনজন অভিনেত্রী ২০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার আয় করতে সক্ষম হয়েছেন। অভিনেত্রীর তালিকায় শীর্ষে রয়েছেন এমা স্টোন। তার আয় ২৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার।



নতুন আপডেটের মাধ্যমে ফেসবুকের মোবাইল অ্যাপে বেশ কিছু পরিবর্তন আনা হচ্ছে। চোখে পড়ার মতো সবচেয়ে বড় পরিবর্তনটি আসবে কমেন্ট সেকশনে।

পোস্টের নিচে থাকা কমেন্টগুলো দেখতে হবে মেসেজ বক্সের টেক্স বাবলের মতো। মূলত কমেন্টকারীকে গ্রুপ চ্যাট করার অনুভূতি দিতে টেক্সট মেসেজের রূপ ধারণ করবে কমেন্ট বক্স।

ব্যবহারকারীদের পোস্ট পড়ার সুবিধার্থে ফেসবুকের গাঢ় নীলও কিছুটা হালকা করা হয়েছে। লিঙ্কের ছবি আর হেডলাইনও কিছুটা চওড়া হয়ে যাবে।
লাইক, কমেন্ট ও শেয়ার বাটনও বড় আকারে যাবে। ফেসবুকের পোস্ট বা কমেন্টে ব্যবহারকারীদের ছবি হয়ে যাবে গোলাকার আকৃতির।

জনপ্রিয় এ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের ক্যামেরা অ্যাপ দিয়ে লাইভে যাওয়ার সুবিধাও এতে যুক্ত করা হচ্ছে। বর্তমানে ফেসবুক লাইভে যেতে হলে ‘লাইভ’ অপশনটিতে ক্লিক করতে হয়। তারপর শুরু হয় সরাসরি ভিডিও।


আমি হব সকালবেলার পাখি, সবার আগে কুসুম বাগে উঠব আমি ডাকি —ছেলেবেলায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের লেখা এই কবিতাটি পড়েননি এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া ভার। কিন্তু বড়বেলায় এসে আমরা কজনই-বা পারছি সকালবেলার পাখি হতে? সকালবেলার পাখি না, তারপরও আমরা অনেকেই চাই আবার সকালবেলার পাখি হতে। কেননা, সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস করা যেমন স্বাস্থ্যসম্মত, তেমনি এটি সময়ের কাজ সময়ে করতেও বেশ সহায়তা করে।
সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস গড়ে তোলার জন্য প্রথমেই রাতে দেরি করে ঘুমোতে যাওয়ার অভ্যাসটি বাদ দেওয়ার কথা বলেছেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের ল্যাবরেটরি সার্ভিসেস বিভাগের অধ্যাপক শুভাগত চৌধুরী। তিনি বলেন, ঘুমানোর আয়োজন মানেই শুধুই ঘুমানোর জন্য তৈরি হওয়া। ঘুমোতে গিয়ে বই পড়া, গান শোনা বা অফিসের কাজ করা উচিত নয়।
যেকোনো ধরনের খাবারই ঘুমোতে যাওয়ার ন্যূনতম তিন ঘণ্টা আগে খেয়ে নিতে হবে। এতে খাবার হজমের প্রক্রিয়াটি ঘুমোতে যাওয়ার সময় ব্যাঘাত ঘটাবে না। শুধু তা-ই নয়, ঘুমানোর জায়গাটি হতে হবে শান্ত ও অন্ধকার।

ভোরে ঘুম থেকে ওঠার অভ্যাস কীভাবে?

জলদি ঘুমানোর অভ্যাস
জলদি ঘুম থেকে ওঠার জন্য অবশ্যই জলদি ঘুমোতে যাওয়ার অভ্যাস করতে হবে। সাধারণত নতুন কোনো অভ্যাস রপ্ত করতে তিন সপ্তাহ সময় লাগে। তাই নতুন অভ্যাস রপ্ত করতে হলে প্রথমেই দরকার ধৈর্য। প্রথম প্রথম আগের সময়ের চেয়ে এক ঘণ্টা কিংবা আধা ঘণ্টা আগে ঘুমোতে যাওয়ার চেষ্টা করুন। প্রথম দিকে ঘুম নাও আসতে পারে, তবে কয়েক দিন পরেই দেখবেন নতুন সময়ে আপনার ঘুম পাচ্ছে। এভাবেই ধীরে ধীরে এগিয়ে আনুন আপনার ঘুমোতে যাওয়ার সময়।
ঘুমের ওষুধকে ‘না’
যাঁদের ঘুমের ওষুধ খাওয়ার প্রবণতা আছে বা ঘুমের ওষুধ খেতে হয়, তাঁদের চেষ্টা করতে হবে ঘুমের ওষুধ পরিহার করা। যদি চিকিৎসকের প্রেসক্রিপশন অনুযায়ী ঘুমের ওষুধ নিতে হয় সে ক্ষেত্রে তাঁদের পরামর্শ নিন। অপর দিকে, যদি আপনি ঘুম হয় না তাই নিজ থেকেই ওষুধ নিয়ে থাকেন, তবে চেষ্টা করুন ঘুমের ওষুধ না খেতে। এ ক্ষেত্রে চেষ্টা করুন দুপুরে ঘুমিয়ে নিতে। তবে যদি দুপুরে ঘুমানোর সুযোগ না থাকে তাহলে চেষ্টা করুন দুপুরে একটু ভারী খাবার খেতে এবং রাতের খাবারের ক্ষেত্রে স্বাভাবিকের চেয়ে একটু কম খেতে। এটি যেমন শরীরে ব্যালান্স করবে, তেমনি শরীরকে ঘুমের জন্য তৈরি করবে।
জলদি ঘুমিয়ে পড়া তবে বেশি ঘুম নয়
জলদি ঘুম থেকে ওঠার জন্য জলদি ঘুমিয়ে পড়া জরুরি, যেন শরীর সঠিক মাত্রায় বিশ্রাম পায়। তবে তাই বলে, বেশি ঘুমের জন্য বেশি জলদি ঘুমিয়ে পড়া যাবে না। সাত ঘণ্টার বেশি রাতের ঘুম শরীরে ঝিমুনি ভাব এনে দিতে পারে।
সুন্দর হোক সকাল
আমি কেন ভোরবেলা ঘুম থেকে উঠব?—সকাল সকাল ঘুম থেকে ওঠার জন্য নিজস্ব কিছু কারণের পাশাপাশি লক্ষ রাখুন আপনার সকালটা যেন সুন্দর হয়। ঘুম থেকে উঠেই আপনার প্রিয় কফি কিংবা পত্রিকাটি যেন আপনার বেড সাইড টেবিলে পান অথবা সূর্যের প্রথম কিরণ যেন আপনার শোবার ঘরে পড়ে, সেটি নিশ্চিত করুন। এটি যেমন আপনাকে ফুরফুরে মেজাজে কাজ শুরু করতে সাহায্য করবে, সেই সঙ্গে আপনাকে প্রতিদিন সকালে জলদি ঘুম থেকে উঠতে অনুপ্রেরণা জোগাবে।
বেরিয়ে পড়ুন সকালে
সকালে ওঠার ক্ষেত্রে যদি কোনো উপায়ই কাজে না আসে সে ক্ষেত্রে কাজের ছকটিই তৈরি করুন সকালের কথা মাথায় রেখে। যদি আপনি শিক্ষার্থী হন এবং আপনার যদি ক্লাসের সময় পছন্দ করার সুযোগ থাকে, তবে চেষ্টা করুন সকালের ক্লাসগুলো নিতে; যদি আপনি চাকরিজীবী হন, তবে চেষ্টা করুন সকালেই অফিসের জন্য বেরিয়ে পড়তে এবং গাড়ির পরিবর্তে কিছুটা পথ হেঁটে যেতে; যদি আপনি একজন ব্যবসায়ী কিংবা ভ্রমণপিপাসু হন, তবে চেষ্টা করুন আপনার মিটিংগুলো সকালের দিকে রাখতে অথবা যদি ভ্রমণপিপাসু হন, তবে আপনার গন্তব্যের জন্য ট্রেন, প্লেন বা লঞ্চের সকালের টিকিট কাটুন।



বেশ অনেক দিন ধরেই ভালো করে ঘুমোতে পারছেন না রায়ান রেনল্ডস। ঘুমোতে পারছেন না এটা না বলে আসলে বলা ভালো ঘুমোনোর সময় পাচ্ছেন না। এত ব্যস্ততার ফাঁকে কি আর ঘুমানো যায়? এমনই বিধ্বস্ত অবস্থা যে দুপুরের খাবার চিবোতে গেলেও তাঁর কষ্ট হচ্ছে! এত ব্যস্ততা কী নিয়ে? আগামীকালই যে মুক্তি পাচ্ছে স্যামুয়েল এল জ্যাকসন, সালমা হায়েক আর গ্যারি ওল্ডম্যানের সঙ্গে তাঁর বহুল প্রতীক্ষিত চলচ্চিত্র দ্য হিটম্যানস বডিগার্ড।

দ্য হিটম্যানস বডিগার্ড ছবির দৃশ্যদ্য হিটম্যানস বডিগার্ড, নামটা শুনলেই ছবির গল্প সম্পর্কে কিছুটা ধারণা পাওয়া যায়। স্যামুয়েল এল জ্যাকসন কুখ্যাত হিটম্যান, টাকার বিনিময়ে মানুষ খুন করাই যার পেশা। আর রায়ান রেনল্ডস নামীদামি মানুষের পেশাদার বডিগার্ড হিসেবে কাজ করেন, সোজা কথায় তাদের হিটম্যানের গুলির আওতা থেকে বাঁচানোই তাঁর কাজ। অর্থাৎ একজন অস্ত্র হাতে খুন করে, আরেকজন ঠিক সেই অস্ত্র দিয়েই রক্ষা করে। গোলটা বাঁধে তখনই, যখন এই পেশাদার বডিগার্ডকে নিযুক্ত করা হয় একজন স্বৈরশাসকের কবল থেকে কুখ্যাত হিটম্যানের জীবন বাঁচানোর জন্য, যেই হিটম্যান কিনা আবার বডিগার্ডের বহু দিনের পুরোনো শত্রু। সঙ্গে আরও আছে হিটম্যানের সুন্দরী স্ত্রী সালমা হায়েক, যে নিজেও সমানভাবে বিপজ্জনক।

দামি গাড়ি আর সমুদ্রযান নিয়ে ধাওয়া-পালটাধাওয়া, খানিক পরপর বন্দুকের ঠা ঠা গুলিবর্ষণ, খালি হাতে মারামারি, দাঙ্গাবাজ নায়ক আর খলনায়ক; পরিপূর্ণ অ্যাকশন ছবির সব মালমসলাই পাবেন ১১৮ মিনিটের এই ছবিতে। সঙ্গে উপরি পাওনা হিসেবে থাকছে রায়ান রেনন্ডস আর স্যামুয়েল এল জ্যাকসনের হাস্যরসাত্মক অভিনয়। তাই দ্য হিটম্যানস বডিগার্ডকে বলাই যায় একদম খাঁটি, আদি ও আসল অ্যাকশন কমেডি! এই ছবিটি দিয়েই প্রথম জুটি বাঁধলেন রায়ান রেনন্ডস আর স্যামুয়েল এল জ্যাকসন। এর আগে অ্যানিমেশন সিনেমা টার্বোতে দুজন একসঙ্গে কণ্ঠ দিয়েছিলেন, কিন্তু একসঙ্গে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ালেন এবারই প্রথম। ১২ বছর ধরে স্যামুয়েলকে চেনেন রায়ান, অনেক দিন ধরেই বড় পর্দার ডেড পুল সুযোগ খুঁজছিলেন আরেক সুপারহিরো ‘নিক ফিউরি’র সঙ্গে কাজ করার। তাই এবার ব্যাটে-বলে মিলে যাওয়ায় আর দেরি হয়নি, স্যামুয়েল ছবিতে আছেন শুনেই এককথায় রাজি হয়ে যান রায়ান রেনল্ডস। ছবিটির শুটিংয়ে এরই মধ্যে ভালো খাতির জমে গেছে সবার। এই তো কয়েক দিন আগে রায়ানের বাড়িতে রাতের দাওয়াতেও গিয়েছিলেন ছবির আরেক কুশলী সালমা হায়েক। সেখানে তিনি রান্না করেছেন, রায়ানের মেয়ের দেখভাল করেছেন। সেই ছবিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভালো সাড়া ফেলেছিল।

দ্য হিটম্যানস বডিগার্ড পরিচালনা করেছেন অস্ট্রেলিয়ান পরিচালক প্যাট্রিক হিউজ। আর চিত্রনাট্য লিখেছেন টিম ও’কনর। ছবিটির শুটিং হয়েছে লন্ডন, সোফিয়া ও আমস্টারডামে। আমস্টারডামে শুটিংয়ের সময় ছবির গাড়ি নিয়ে ধাওয়ার একটি দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছিল, যার কারণে ছবির কাহিনিতে পরে পরিবর্তন আনা হয়।

মুক্তির আগেই বিশেষ শোতে বেশ কিছু দর্শক ছবিটি দেখার সুযোগ পেয়েছেন, যাঁরা একবাক্যে এখনই হিটম্যান আর বডিগার্ডের প্রশংসায় পঞ্চমুখ! ছবিটি এখনো মুক্তি না পেলেও সিক্যুয়েল নিয়ে আলাপ শুরু হয়ে গেছে এরই মধ্যে।

Scorpio-people-the-potential-for-national-success 

মেষ রাশি : আজ আপনার ধর্মকর্মের প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে। শিক্ষার্থীদের জন্য সময় অনুকূল থাকবে। পড়াশোনায় মন বসাতে পারবেন। সৃজনশীল কাজে সুফল পাবেন। সন্তানের কোনো সাফল্য আপনার জন্য আনন্দদায়ক হতে পারে।


বৃষ রাশি : আধ্যাত্মিক চিন্তা-চেতনায় সমৃদ্ধি আসবে। পড়াশোনার প্রতি আগ্রহবোধ করবেন। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে। মাতৃস্বাস্থ্য ভালো যাবে। মাআসিক প্রশান্তি ভালো থাকবে। বিলাসদ্রব্য কেনাকাটা হতে পারে। তবে হিসেব করে খরচ করুন।

মিথুন রাশি : আজ পরিবেশের সঙ্গে নিজেকে মানিয়ে চলুন। কাজকর্মে উৎসাহবোধ করবেন। ছোট ভাইবোনদের সঙ্গে সুসম্পর্ক বজায় থাকতে পারে। প্রয়োজনে তাদের সহযোগিতা পেতে পারেন। বাড়িতে আত্মীয় সমাগম হতে পারে। ঠাণ্ডা সম্পর্কে সতর্ক থাকুন।

কর্কট রাশি : আর্থিক দিক ভালো যেতে পারে। প্রাপ্তিযোগ আছে। পড়াশোনায় আনন্দ পাবেন। আজ কাউকে কোনো প্রতিশ্রুতি না দিলেই ভালো করবেন। অধীনদের কাজে লাগাতে চেষ্টা করুন। মূল্যবোধ সমুন্নত রাখতে পারবেন। আইনি ঝামেলা এড়িয়ে চলুন।

সিংহ রাশি : শরীর মোটামুটি ভালো থাকবে। মানসিক প্রশান্তি বজায় থাকবে। নিজেকে যথাযথভাবে প্রকাশ করার চেষ্টা করুন। ব্যক্তিত্ব দিয়ে অন্যকে প্রভাবিত করতে পারবেন। ভালো ব্যবহার দিয়ে কাজ আদায় করা সহজ হতে পারে।

কন্যা রাশি : দিনটি মিশ্র সম্ভাবনাময়। অনভিপ্রেত কোনো সংবাদ পেতে পারেন। ব্যয় বৃদ্ধি পেতে পারে। ঋণগ্রস্ত হওয়ার আশঙ্কা আছে। কোনো গুরুত্বপূর্ণ কাজ শেষ করতে পারবেন। ভ্রমণ ফলপ্রসূ হতে পারে। সকল কাজের দলিল বা প্রমাণ রাখার চেষ্টা করুন।

তুলা রাশি : আর্থিক দিক ভালো যাবে। আয়-উপার্জন বৃদ্ধি পেতে পারে। মনের কোনো গোপন ইচ্ছা পূরণ হতে পারে। পেশাগত যোগাযোগ ফলপ্রসূ হতে পারে। শ্রমিক নেতাদের জন্য দিনটি শুভ।

বৃশ্চিক রাশি : সামাজিক কাজকর্মে অংশ নিতে পারেন। সে ক্ষেত্রে সাফল্যের সম্ভাবনা আছে। সুনাম ও মর্যাদা বৃদ্ধি পেতে পারে। কর্মপরিবেশ অনুকূল থাকবে। পিতৃস্বাস্থ্য ভালো যেতে পারে। বেকারদের কারো কর্মসংস্থান হতে পারে।

ধনু রাশি : সামাজিক অগ্রগতি অব্যাহত থাকবে। কাজকর্মে ভাগ্যের আনুকূল্য পাবেন। উচ্চশিক্ষার্থীদের জন্য দিনটি শুভ। জ্ঞানস্পৃহা বৃদ্ধি পাবে। সম্ভাব্য ক্ষেত্রে বিদেশযাত্রার যোগ আছে। পেশাগত দিক ভালো যাবে। সহকর্মীদের সাথে মিলেমিশে থাকার চেষ্টা করুন।

মকর রাশি : অতিন্দ্রীয় শাস্ত্রের প্রতি আগ্রহ বৃদ্ধি পাবে। পরধন প্রাপ্তির সম্ভাবনা আছে। ট্যাক্স-সংক্রান্ত কোনো ঝমেলা হতে পারে। ব্যবসায়িক দিক খুব একটা ভালো নাও যেতে পারে। বিক্রয়-বাণিজ্যে লোকসান হতে পারে। সামাজিক সংকট এড়িয়ে চলার চেষ্টা করুন

কুম্ভ রাশি : দাম্পত্য সম্পর্ক ভালো থাকবে। পারস্পরিক সামাজিক সম্পর্ক ভালো যেতে পারে। ব্যবসায়িক দিক ভালো যাবে। অপরের প্রতি সদাচরণ করুন। কোনো ঘনিষ্ঠ বন্ধুর সহযোগিতা পেতে পারেন। আপনজন কেউ শত্রুতা করতে পারে।

মীন রাশি : শরীর খুব একটা ভালো নাও থাকতে পারে। সামায়িক কোনো অসুস্থতায় ভুগতে পারেন। আহারে-বিহারে সতর্ক থাকুন। শত্রুরা ক্ষতি করার চেষ্টা করতে পারে। তাই সাবধানে থাকুন। সকল লেনদেনের প্রমান রাখুন। আইনি ঝামেলা এড়িয়ে চলুন।

Jewelery-headphones-arrived-in-the-market 

ফ্যাশনপ্রিয় নারীদের জন্য বাজারে এসেছে জুয়েলারি হেডফোন। দেখতে মুক্তার মালার মতো, কিন্তু এর ভেতরে রয়েছে মোবাইল হেডফোন। যা আপনাকে করে তুলবে আরো ফ্যাশনেব। কারণ এই হেডফোন আপনি নেকলেস, ব্রেসলেট হিসেবেও ব্যাবহার করতে পারবেন।


এর বিশেষ সুবিধা হচ্ছে স্যামসাং, নোকিয়া, আইফোন এবং যেকোনো ফোনে সহজেই সেট হয়ে যায়। তাই আপনার হাতে যে মোবাইলই থাকুক না কেনো, এই হেডফোন ব্যাবহার করতে পারেন।

দাম ১৬০০ থেকে ২৫০০ টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। ঢাকার কিছু সিটি মল এবং বেশ কিছু অনলাইন সপে পাবেন এই জুয়েলারি হেড ফোনগুলো।

নিচে একটি অনলাই সপের লিংক দেয়া হল।

লিংকটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন......

আলু ও পোস্ত দিয়ে ঝটপট বানিয়ে ফেলতে পারবেন মজাদার এই আইটেমটি। গরম ভাতের সঙ্গে খেতে সুস্বাদু আলু পোস্ত। জেনে নিন রেসিপি।  

Banglalink-s-mobile-internet-preparation


উপকরণ


আলু- ৪টি
কাঁচামরিচ- ৪টি
লবণ- স্বাদ মতো
হলুদ গুঁড়া- আধা চা চামচ
পোস্তদানা- ৫ টেবিল চামচ
পাঁচফোড়ন- আধা চা চামচ
সরিষার তেল- ২ টেবিল চামচ
পানি ১ টেবিল চামচ

প্রস্তুত প্রণালি  


পানিতে ২০ থেকে ৩০ মিনিট ভিজিয়ে রেখে বেটে নিন পোস্তদানা। মরিচ কুচি ও সামান্য লবণ দিন পেস্টে। আলু ছোট টুকরা করে কেটে নিন। প্যানে তেল গরম করে পাঁচফোড়ন ভেজে নিন। একই প্যানে আলুর টুকরা দিয়ে ৩ থেকে ৪ মিনিট মাঝারি আঁচে ভাজুন। এবার সামান্য লবণ, হলুদ গুঁড়া ও মরিচ কুচি দিন। ১ কাপ পানি দিয়ে ঢেকে দিন পাত্র। আলু অর্ধেক সেদ্ধ হলে পোস্তবাটা দিয়ে দিন পাত্রে। আবার ঢেকে দিন পাত্র। মাঝে মাঝে নেড়ে দেবেন। আলু পুরোপুরি সেদ্ধ হলে নামিয়ে গরম ভাতের সঙ্গে পরিবেশন করুন আলু পোস্ত।  

Banglalinks-mobile-internet-preparation 

বাংলাদেশের অন্যতম ডিজিটাল সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বাংলালিংক উন্নত ও আধুনিক ফোরজি নেটওয়ার্ক স্থাপনের মাধ্যমে সকলের কাছে চতুর্থ প্রজন্মের ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে প্রস্তুতি নিচ্ছে। গ্রাহকদের কাছে উচ্চমাত্রার ইন্টারনেট ও নিরবিচ্ছিন্ন যোগাযোগ সেবা পৌঁছে দেওয়ার লক্ষ্যে বাংলালিংক অবিরতভাবে কাজ করে যাচ্ছে এবং নেটওয়ার্ক ক্রমাগত উন্নয়নের মাধ্যমে তা নিশ্চিত করছে।


সম্প্রতি ঢাকা সফরকালে এক সংবাদ সম্মেলনে ভিওনের সিইও জন- ইভস্‌ সার্লিয়ার আগামী ৩ বছরে বাংলাদেশে ১ বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করার ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন, যার মধ্যে প্রায় অর্ধেক বিলিয়ন ডলার ব্যয় হবে শুধু নেটওয়ার্ক উন্নয়নের জন্য। এর ফলস্বরূপ আরও বেশি নতুন ডিজিটাল সার্ভিস, গ্রাহকদের সন্তুষ্টি ও সত্যিকার অর্থে ডিজিটাল জীবনযাপন বাস্তবায়ন করা যাবে।

ডিজিটাল জীবনযাপন আগামী দিনের বাস্তবতা। স্মার্টফোন ও নির্ভরযোগ্য ইন্টারনেট ব্যবহারের কারণে এখন সমগ্র বিশ্ব একজন ব্যক্তির হাতের মুঠোয় চলে এসেছে। ইন্টারনেটের ব্যবহার দ্রুত বৃদ্ধির ক্ষেত্রে সমগ্র বিশ্বে বাংলাদেশ অন্যতম। বর্তমানে দেশের ৩০% মানুষ স্মার্টফোন ব্যবহার করছে এবং এই সংখ্যা উল্লেখযোগ্য হারে বেড়ে চলেছে।

বাংলালিংক দ্রুতগতির ও সাশ্রয়ী মূল্যের ইন্টারনেট সেবা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে সামনে এগিয়ে চলছে। প্রতিষ্ঠানটির এই উদ্যোগের ফলে নতুন সুযোগের সৃষ্টি হবে এবং এটি ডিজিটাল ইকোনমি, ডিজিটাল হেলথ, ডিজিটাল এডুকেশন ও অন্যান্য অনেক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে বাংলাদেশকে তথ্য, জ্ঞান ও ডিজিটাল সেবা ভিত্তিক মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত করতে সাহায্য করবে।

গ্রাহক সেবা ও বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল ভিশনকে সামনে রেখে বাংলালিংক একটি শক্তিশালী ফোরজি নেটওয়ার্ক চালু করতে প্রস্তুত। গত বছর বাংলালিংকের নেটওয়ার্কে ফোরজি সেবার পরীক্ষা সফলভাবে সম্পন্ন হয়। এছাড়া নেটওয়ার্ক আধুনিকীকরণের জন্য অভিনব উদ্যোগ নেওয়া এবং সম্প্রতি সিমগুলোকে ফোরজিতে রূপান্তর করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। এছাড়াও দ্রুতগতির থ্রিজি সেবা প্রদানের লক্ষ্যে নেটওয়ার্কের কাভারেজ আরো বিস্তৃত ও উন্নত করার লক্ষ্যে নেটওয়ার্কে বিনিয়োগ করা অব্যাহত রয়েছে। বর্তমানে ৯০% এর বেশি সাইট থ্রি-জি কাভারেজের আওতায় আনা হয়েছে এবং এই বছরের মধ্যে বাকি অংশও আপগ্রেড করা হবে।

বাংলালিংকের চিফ টেকনোলজি অফিসার পিয়েরে বউট্রস ওবেইদ বলেন, ‘সর্বাধুনিক প্রযুক্তির মাধ্যমে গ্রাহকদের চাহিদা পূরণ করার ক্ষেত্রে বাংলালিংক অগ্রণী ভূমিকা পালন করে আসছে। আমরা বিশ্বাস করি, ডিজিটাল সেবা প্রদানের মাধ্যমে ভবিষ্যতের দ্বার উন্মোচিত হবে এবং ফোরজি প্রযুক্তি আমাদেরকে এই সার্ভিস প্রদান করতে সক্ষম করে তুলবে। সকলের জন্য সার্বিকভাবে ডিজিটাল জীবনযাপন নিশ্চিত করার জন্য সর্বোৎকৃষ্ট ফোরজি নেটওয়ার্ক প্রদানে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

প্রযুক্তির মাধ্যমে জীবনযাত্রাকে পরিবর্তন করার ক্ষেত্রে একটি দৃষ্টান্তমূলক ভূমিকা রেখে গত বারো বছর ধরে বাংলাদেশে কার্যক্রম পরিচালনা করছে বাংলালিংক। শুধু টেলিকম ইন্ডাসট্রিকে এগিয়ে নেওয়াই নয়, বাংলাদেশ সরকারের ডিজিটাল ভিশন বাস্তবায়নের ক্ষেত্রেও সহায়ক ভূমিকা পালন করছে বাংলালিংক।
Blogger দ্বারা পরিচালিত.