ব্যান্ডউইথের ব্যবহার আইএসপিতে বেশি, মোবাইল ইন্টারনেটে কম

 

মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো দেশের মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৯৪ শতাংশ ‘মোবাইল ইন্টারনেট’ ব্যবহার করে দাবি করলেও ব্যান্ডউইথের হিসেবে দেখা গেছে এগিয়ে আছে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বা আইএসপিগুলো। দেশে মোট ব্যবহৃত হওয়া ব্যান্ডউইথের মধ্যে ৩১৭ জিবি আইএসপিগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন আর মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন মাত্র ১০৪ জিবি।


মোবাইলফোন অপারেটর, আইএসপি এবং ব্যান্ডউইথ পরিবহনকারী প্রতিষ্ঠান এনটিটিএনগুলোর (নেশন ওয়াইড টেলিকমিউনিকেশন ট্রান্সমিশন নেওয়ার্ক) দেওয়া হিসাব থেকে এসব তথ্য জানা গেছে।

মোবাইলফোন অপারেটরগুলো ১০৪ জিবি ব্যান্ডউইথ দিয়ে যে ইন্টারনেট সেবা দিয়ে থাকে তা মোট ব্যান্ডউইথের মাত্র ২৫ শতাংশ। অবশিষ্ট ৭৫ শতাংশ কাভারেজ দিয়ে থাকে আইএসপিগুলো (ইন্টারনেট সার্ভিস প্রোভাইডার)।

প্রসঙ্গত, সি-মি-উই-ফোর সাবমেরিন ক্যাবলের মাধ্যমে এখন বাংলাদেশ পাচ্ছে ৩০০ জিবিপিএস ব্যান্ডউইথ। এর মধ্যে ব্যবহৃত হচ্ছে ২২০ জিবিপিএস, যা সরবরাহ করছে বিএসসিসিএল (বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড)। আর ২২০ জিবিপিএস’র কিছু কম ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করছে দেশের ৬টি আইটিসি (ইন্টারন্যাশনাল টেরেস্ট্রিয়াল ক্যাবল) প্রতিষ্ঠান, যার পুরোটাই আমদানি নির্ভর।

জানতে চাইলে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠানগুলোর সংগঠন আইএসপিএবি’র সভাপতি আমিনুল হাকিম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘কাভারেজ এরিয়া হিসেবে শতাংশের দিক থেকে আইএসপিগুলো পিছিয়ে থাকলেও আমরা মোবাইল অপারেটরগুলোর চেয়ে অনেক এগিয়ে আছি ব্যান্ডউইথ বিক্রিতে। দেশের মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৬ শতাংশ (আইএসপিগুলোর গ্রাহক) ওদের ৯৪ শতাংশের চেয়ে বেশি ব্যান্ডউইথ ব্যবহার করে।’

তিনি বলেন, ‘এটা সম্ভব হয়েছে আইএসপিগুলোর প্যাকেজের কারণে। বেশির ভাগ আইএসপিগুলো মাসিক একটি নির্দিষ্ট হারে তার গ্রাহকদের আনলিমিটেড ডাটা (ইন্টারনেট) ব্যবহারের সুযোগ দেয়। ফলে ব্যান্ডউইথের ব্যবহার বেশি। অন্যদিকে মোবাইল অপারেটরগুলো ডাটা ক্যাপিং (সীমিত করে দেওয়া) করে দেওয়ায় ব্যবহার কম হয়। ফলে ওদের কাভারেজ এলাকা এবং ব্যবহারকারী বেশি হলেও ব্যান্ডউইথ সামগ্রিকভাবে আইএসপিরটাই বেশি ব্যবহার হচ্ছে।’

তিনি আরও জানান, বর্তমানে ব্রডব্যান্ড (উচ্চগতি) ইন্টারনেট ব্যবহারের হার ১৫ শতাংশ। এই হার দিন দিন বাড়ছে। ফলে আগামীতে আইএসপি গ্রাহকগুলোর ব্যান্ডউইথ ব্যবহারের হারও বাড়বে।

টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রক সংস্থা বিটিআরসি প্রকাশিত সর্বশেষ প্রতিবেদনে দেখা গেছে, বর্তমানে দেশে ৭ কোটি ৩৩ লাখ ৪৭ ব্যবহারকারী ইন্টারনেট ব্যবহার করছেন। এরমধ্যে ৬ কোটি ৮৬ লাখ ৫০ হাজার গ্রাহক মোবাইল ইন্টারনেট ব্যবহার করেন। এছাড়া ৪৬ লাখ ২২ হাজার গ্রাহক আইএসপি ও পিএসটিএন-এর এবং ৭৫ হাজার রয়েছেন ওয়াইম্যাক্স ইন্টারনেট ব্যবহারকারী।

উল্লেখ্য যে, আইএসপি এবং মোবাইল অপারেটরগুলোতে ব্যান্ডউইথ সরবরাহ করে আইআইজিগুলো (ইন্টারন্যাশনাল ইন্টারনে

মোবাইল ফোন অপারেটরগুলো দেশের মোট ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর ৯৪ শতাংশ ‘মোবাইল ইন্টারনেট’ ব্যবহার করে দাবি করলেও ব্যান্ডউইথের হিসেবে দেখা গেছে এগিয়ে আছে ইন্টারনেট সেবাদাতা প্রতিষ্ঠান বা আইএসপিগুলো। দেশে মোট ব্যবহৃত হওয়া ব্যান্ডউইথের মধ্যে ৩১৭ জিবি আইএসপিগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন আর মোবাইল ফোন অপারেটরগুলোর গ্রাহকরা ব্যবহার করেন মাত্র ১০৪ জিবি।