গ্রিন টি পানে ভুল করছেন না তো?

 

গ্রিন টিকে বলা হয় ‘পাওয়ার ড্রিংক।’ এনার্জির যোগান দেওয়ার পাশাপাশি গ্রিন টি ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এছাড়া সুস্থ থাকতে প্রতিদিন গ্রিন টি পান করার পরামর্শ দেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তবে অনেকেই নিয়ম না মেনে এমনভাবে গ্রিন টি পান করেন যা শরীরের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। গ্রিন টিতে থাকা ভিটামিন ও মিনারেল নষ্ট হয়ে যেতে পারে যদি সঠিক উপায়ে এটি পান না করেন।


জেনে নিন গ্রিন টি পান করার আগে কী কী বিষয়ের উপর লক্ষ রাখতে হবে-

    দুপুর কিংবা রাতের খাবারের পরপরই গ্রিন টি পান করবেন না। খাবার খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে এটি পান করলে মাত্র খাওয়া প্রয়োজনীয় ক্যালোরি গায়েব হয়ে যেতে পারে বেমালুম!

    একদম গরম গ্রিন টি পান করবেন না। এতে পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়। কুসুম গরম গ্রিন টি পান করুন।

    অনেকে গ্রিন টি এর সঙ্গে মধু মিশিয়ে পান করেন। তবে অতিরিক্ত গরম গ্রিন টিতে মধু মেশানো উচিৎ নয়। এতে মধুর গুণ নষ্ট হয়ে যায়। সামান্য ঠাণ্ডা হওয়ার পর তারপর মেশান মধু।  

    গ্রিন টি এর পাতা দীর্ঘক্ষণ গরম পানিতে ফেলে রাখবেন না।
    গ্রিন টি এর সঙ্গে অন্যান্য ফ্লেভাবের চা মেশাবেন না।

    তাড়াহুড়া করে গ্রিন টি পান না করাই ভালো। গ্রিন টি খাবার হজমে সাহায্য করার পাশাপাশি মস্তিষ্ক সুস্থ রাখে। তাই খুব ধীরে সুস্থে পান করুন এটি।

    টিন অথবা পলিথিনে গ্রিন টি পাতা সংরক্ষণ করবেন না। এতে গ্রিন টির পুষ্টিগুণ নষ্ট হয়ে যায়।

    সকালে পান করতে পারেন গ্রিন টি। এটি সতেজতা নিয়ে আসবে।

গ্রিন টিকে বলা হয় ‘পাওয়ার ড্রিংক।’ এনার্জির যোগান দেওয়ার পাশাপাশি গ্রিন টি ওজন কমাতেও সাহায্য করে। এছাড়া সুস্থ থাকতে প্রতিদিন গ্রিন টি পান করার পরামর্শ দেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তবে অনেকেই নিয়ম না মেনে এমনভাবে গ্রিন টি পান করেন যা শরীরের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। গ্রিন টিতে থাকা ভিটামিন ও মিনারেল নষ্ট হয়ে যেতে পারে যদি সঠিক উপায়ে এটি পান না করেন।