প্রতিদিন ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর হাতে হোয়াটসঅ্যাপ

প্রতিদিন ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর হাতে হোয়াটসঅ্যাপ 

একের পর এক রেকর্ড গড়ছে হোয়াটসঅ্যাপ। ২০০৯ সালে চালু হওয়া মেসেজিং অ্যাপটি ২০১৪ সালে মাত্র বিলিয়ন মার্কিন ডলারে কিনে নেয় ফেসবুক। মূলত এরপর থেকে এই মেসেজিং অ্যাপটির জনপ্রিয়তা দ্রুত গতিতে বাড়তে থাকে। ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি একের পর এক মাইলফলক স্পর্শ করতে শুরু করে বর্তমানে ফেসবুকের মালিকানাধীনে থাকা হোয়াটসঅ্যাপ।


এই মেসেজিং অ্যাপটি গত বছরই মাসিক ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর মাইলফলক স্পর্শ করেছিল। আর এখন হোয়াটসঅ্যাপ দাবি করছে, এটি ইতোমধ্যে প্রতিদিন ১০০ কোটি ব্যবহারকারীর মাইলফলক স্পর্শ করে ফেলেছে।

কোম্পানিটি এক ব্লগ পোস্টে জানায়, গত বছর আমরা সবার সঙ্গে শেয়ার করেছিলাম প্রতি মাসে সারাবিশ্বে এক বিলিয়ন মানুষ হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে। আর আজ আমরা ঘোষণা করছি, প্রতিদিন বিশ্বজুড়ে এক বিলিয়ন মানুষ তাদের পরিবার ও বন্ধুদের সঙ্গে যুক্ত থাকার জন্য হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে।

ভবিষ্যতে হোয়াটসঅ্যাপে আরও নতুন কিছু বৈশিষ্ট্য যোগ হতে যাচ্ছে। কোম্পানির দাবি, অ্যাপটিকে আরও নির্ভরযোগ্য, সহজ ও সুরক্ষিত করার জন্য তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। ওই ব্লগ পোস্টের মাধ্যমে কোম্পানিটি এছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপের কিছু পরিসংখ্যানও তুলে ধরে।

পরিসংখ্যান অনুযায়ী প্রতিমাসে ১ দশমিক ৩ বিলিয়ন মানুষ সক্রিয়ভাবে হোয়াটসঅ্যাপ ব্যবহার করে এবং এতে প্রতিদিন ৫৫ বিলিয়ন বার্তা আদান-প্রদান হয়। এছাড়া হোয়াটসঅ্যাপের মাধ্যমে প্রতিদিন প্রায় ৪ দশমিক ৫ বিলিয়ন ছবি এবং ১ বিলিয়ন ভিডিও আদান-প্রদান হয়।

একের পর এক রেকর্ড গড়ছে হোয়াটসঅ্যাপ। ২০০৯ সালে চালু হওয়া মেসেজিং অ্যাপটি ২০১৪ সালে মাত্র বিলিয়ন মার্কিন ডলারে কিনে নেয় ফেসবুক। মূলত এরপর থেকে এই মেসেজিং অ্যাপটির জনপ্রিয়তা দ্রুত গতিতে বাড়তে থাকে। ব্যবহারকারীর সংখ্যা বাড়ার পাশাপাশি একের পর এক মাইলফলক স্পর্শ করতে শুরু করে বর্তমানে ফেসবুকের মালিকানাধীনে থাকা হোয়াটসঅ্যাপ।