প্রথম দেখায় আপনার ব্যাপারে কী ভাবে মানুষ?

How-does-the-first-person-see-you 

প্রথমবার দেখে মানুষ আপনার ব্যাপারে কী চিন্তা করে, এ নিয়ে ১৫ বছরেরও বেশি সময় কাজ করছেন হার্ভার্ডের এক অধ্যাপক অ্যামি কাডি। তাঁর মতে, প্রথম দেখায় আপনার দুইটি বৈশিষ্ট্য নিয়ে একটা ধারণা তৈরি হয় মানুষের মনে। সেগুলো কী?


সাইকোলজিস্ট অ্যামি ক্যাডি, সুজান ফিস্ক এবং পিটার গ্লিক একসাথে এই গবেষণা করেন। অ্যামি কাডি তাঁর বই “প্রেজেন্স” এ জানান, আপনাকে দেখার পর খুব দ্রুত মানুষ নিজেকে দুইটি প্রশ্ন করে-

১) এই মানুষটি কি আমার বিশ্বাসের যোগ্য?

২) এই মানুষটি কি আমার সম্মানের যোগ্য?

এই দুইটি বৈশিষ্ট্যকে সাইকোলজিস্টরা সম্বোধন করেন “উষ্ণতা” এবং “দক্ষতা” হিসেবে। আর অন্য কারো সামনে নিজেকে ভালোভাবে উপস্থাপন করতে হলে এই দুটি প্রশ্নেরই উত্তর “হ্যাঁ” হওয়াটা জরুরী।

কাডি বলেন, অনেকেই ভাবে (বিশেষ করে কর্মক্ষেত্রে) দক্ষতা আছে এ ব্যাপারটা নিজের মাঝে ফুটিয়ে তোলাই সবচাইতে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ তারা ভাবে, কর্মক্ষেত্রে কাজ সামলানোর ক্ষেত্রে তারা যথেষ্ট বুদ্ধিমান ও চৌকস কিনা সেটাই দরকারি। আসলে কিন্তু আপনার “উষ্ণতা” বা বিশ্বস্ততাও দেখানো জরুরী। কারণ বিবর্তনের দিক দিয়ে চিন্তা করলে দেখা যায়, আরেকটি মানুষ বিশ্বস্ত কিনা তা বুঝতে পারাটা মানুষের টিকে থাকার জন্য জরুরী ছিল। আর এই ব্যাপারটা এখনো আমাদের মস্তিষ্কে রয়ে গেছে যার কারণে বিশ্বস্ত মনে হয় এমন মানুষকে আমরা বেশি পছন্দ করি।

যদিও কাজে দক্ষতা জরুরী, কিন্তু কাডি বলেন, আগে নিজের বিশ্বস্ততা দেখানো জরুরী। নিজের দক্ষতা দেখানোর ওপরে বেশি জোর দিলে অনেক সময়ে হিতে বিপরীত হতে পারে। অনেক সময়ে এমবিএ ইনটার্নরা কাজের ওপরে বেশি জোর দেন এবং সামাজিকতার দিক দিয়ে পিছিয়ে পড়েন, এতে তাদেরকে পছন্দ করেন না অন্যরা। অন্যরা তাদেরকে বিশ্বস্ত মনে না করার কারণে দেখা যায় তারা পছন্দের চাকরিটা পাচ্ছে না।

“একজন অমায়িক, বিশ্বস্ত মানুষ যদি কাজের ক্ষেত্রে দক্ষ হয় তাহলে তিনি অবশ্যই সুনাম পাবেন, কিন্তু বিশ্বাস স্থাপন করার পরেই দক্ষতা দেখানোটা কাজে আসে,” বলেন কাডি।

প্রথমবার দেখে মানুষ আপনার ব্যাপারে কী চিন্তা করে, এ নিয়ে ১৫ বছরেরও বেশি সময় কাজ করছেন হার্ভার্ডের এক অধ্যাপক অ্যামি কাডি। তাঁর মতে, প্রথম দেখায় আপনার দুইটি বৈশিষ্ট্য নিয়ে একটা ধারণা তৈরি হয় মানুষের মনে। সেগুলো কী?