ফোর্বস-এর তালিকায় সর্বাধিক আয়ের অভিনেত্রীরা

 


হলিউডের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেত্রীর তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করলেন এমা স্টোন। গত এক বছরে সবচেয়ে বেশি আয় করেছেন তিনিই। এই দৌড়ে তার পেছনে পড়ে গেছেন জুলিয়া রবার্টস, কেট ব্ল্যানচেট ও শার্লিজ ত্রোনের মতো বাঘা বাঘা নায়িকারা।


২০১৬ সালের জুন থেকে এ বছরের জুন পর্যন্ত অস্কারজয়ী এমা স্টোনের হাতে এসেছে ২ কোটি ৬০ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২১০ কোটি ৪৭ লাখ টাকা)। এর মধ্য দিয়েই হলিউডের সর্বোচ্চ আয়ের অভিনেত্রীর সিংহাসনে বসলেন ২৮ বছর বয়সী এই তারকা। বুধবার (১৭ আগস্ট) এ তথ্য প্রকাশ করেছে ব্যবসা-সংক্রান্ত বিখ্যাত ম্যাগাজিন ফোর্বস।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ‘লা লা ল্যান্ড’ ছবির জন্য জীবনের প্রথম অস্কার জেতেন ২৮ বছর বয়সী এমা স্টোন। এতে হলিউডে ক্যারিয়ার নিয়ে সংগ্রামরত অভিনেত্রীর ভূমিকায় অনবদ্য নৈপুণ্য দেখিয়েছেন তিনি। ছবিটি বিশ্বব্যাপী আয় করে সাড়ে ৪৪ কোটি মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৩ হাজার ৫৯০ কোটি ৯২ লাখ ৭৫ হাজার টাকা)।

সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেত্রীদের শীর্ষে থাকা এমা স্টোনকে সামনে স্টিভ ক্যারেলের সঙ্গে দেখা যাবে টেনিস খেলা বিষয়ক ছবি ‘ব্যাটেল অব দ্য সেক্সেস’-এ। তিনি এখন ব্যস্ত নেটফ্লিক্সের ‘ম্যানিয়াক’ ছবির কাজ নিয়ে।

আগের টানা দুই বছর ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত তালিকাটির এক নম্বরে ছিলেন জেনিফার লরেন্স। এবার ২৭ বছর বয়সী এই তারকা নেমে গেছেন তিনে। এ বছর তিনি আয় করেছেন ২ কোটি ৪০ লাখ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১৯৩ কোটি ৬৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা)। যদিও গত বছর এর দ্বিগুণ (৪ কোটি ৬০ লাখ ডলার) আয় হয়েছিল তার। ‌

‘হাঙ্গার গেমস’ সিরিজ শেষ হওয়ার কারণেই উপার্জন কমেছে জেনিফার লরেন্সের। তবে স্বল্প বাজেটের ছবি ‘মাদার!’ ও ‘রেড স্প্যারো’ এবং ক্রিশ্চিয়ান ডিওরের মতো ফ্যাশন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিজ্ঞাপনী চুক্তির সুবাদে তার আয়টা একেবারে কমও হয়নি।

এবারের তালিকায় এমা স্টোনের পরেই দুই নম্বরে আছেন জেনিফার অ্যানিস্টন। ৪৮ বছর বয়সী মার্কিন এই অভিনেত্রী উপার্জন করেছেন ২ কোটি ৫৫ লাখ ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ২০৬ কোটি ৪২ লাখ ২৫ হাজার টাকা)। এর বেশিরভাগই এসেছে স্মার্টওয়াটার, এমিরেটস এয়ারলাইনসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে বিজ্ঞাপনী চুক্তির মাধ্যমে।

১ কোটি ৮০ লাখ ডলার আয়ের সুবাদে ফোর্বস ম্যাগাজিনের তালিকাটির চার নম্বরে আছেন ‘গোস্টবাস্টারস’ তারকা মেলিসা ম্যাককার্থি। তারপরেই মিলা কুনিসের অবস্থান। ‘ব্যাড মমস’ তারকা ১ কোটি ৫৫ লাখ ডলার আয়ের সুবাদে ঠাঁই পেলেন পাঁচ নম্বরে।

‘বিউটি অ্যান্ড দ্য বিস্ট’ এবং ‘দ্য সার্কেল’ ছবির সুবাদে গত এক বছরে ১ কোটি ৪০ লাখ ডলার আয় করেছেন এমা ওয়াটসন। তিনি আছেন ছয় নম্বরে।


জেনিফার লরেন্স
তালিকায় শীর্ষ দশের পরের অবস্থানগুলোতে রয়েছেন যথাক্রমে ‘অ্যাটোমিক ব্লন্ড’ তারকা শার্লিজ ত্রোন (১ কোটি ৪০ লাখ ডলার), কেট ব্ল্যানচেট (১ কোটি ২০ লাখ ডলার), ‘মানি মনস্টার’ তারকা জুলিয়া রবার্টস (১ কোটি ২০ লাখ ডলার) এবং অ্যামি অ্যাডামস (১ কোটি ১৫ লাখ ডলার)।

এ বছর শীর্ষ ১০ অভিনেত্রীদের মধ্যে তিন জন আয়ে ২ কোটি ডলারের ঘর পেরোতে পেরেছেন। গতবার এ অর্জন ছিল চার জনের। তবে এশিয়া থেকে এবার কোনও তারকাই তালিকাটিতে স্থান করে নিতে পারেননি। এছাড়া তালিকায় সেরা দশে ঠাঁই পাননি অ্যাঞ্জেলিনা জোলি, সান্ড্রা বুলকসহ বিখ্যাত অভিনেত্রীদের অনেকে।

ফোর্বসের দাবি, গত এক বছরে সর্বাধিক উপার্জনকারী ১০ জন অভিনেত্রীর সংগৃহীত মোট আয় ১৭ কোটি ২৫ লাখ মার্কিন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ১ হাজার ৩৯১ কোটি ৯৮ লাখ ৮৭ হাজার ৫০০ টাকা)। গতবারের তুলনায় এ অঙ্ক ১৬ শতাংশ কম।

২০১৬ সালে ফোর্বসের সর্বোচ্চ আয়ের অভিনেতা ডোয়াইন জনসন আয় করেছিলেন ৬ কোটি ৪৫ লাখ ডলার। এ বছর এমা স্টোনের আয় হয়েছে তার প্রায় অর্ধেকের কম। এতেই বোঝা যায়, হলিউডে পারিশ্রমিকের সমতা নিয়ে অনেকে সোচ্চার থাকলেও নারীদের তুলনায় পুরুষের আয়ই বেশি।

হলিউডের সবচেয়ে বেশি পারিশ্রমিক পাওয়া অভিনেত্রীর তালিকায় শীর্ষস্থান দখল করলেন এমা স্টোন। গত এক বছরে সবচেয়ে বেশি আয় করেছেন তিনিই। এই দৌড়ে তার পেছনে পড়ে গেছেন জুলিয়া রবার্টস, কেট ব্ল্যানচেট ও শার্লিজ ত্রোনের মতো বাঘা বাঘা নায়িকারা।